corona virus btn
corona virus btn
Loading

আকাশ ছোঁয়া হতে চলেছে সবজির দাম, মাথায় হাত মধ্যবিত্তের

আকাশ ছোঁয়া হতে চলেছে সবজির দাম, মাথায় হাত মধ্যবিত্তের

সবজি বিক্রেতারা জানিয়েছেন এতটা আতঙ্কিত হওয়ার কোনও কারণ নেই ৷ বাজার খোলা থাকবে ৷ জিনিসপত্রও মিলবে ৷ তবে হ্যাঁ তার জন্য বেশি টাকা দিতে হতে পারে ৷

  • Share this:

#কলকাতা: সোমবার বিকেল ৫টা থেকে লাগু হয়ে গিয়েছে লক ডাউন ৷ আপাতত গৃহবন্ধি সকলে ৷ করোনা ভাইরাসের মোকাবিলা করতে বাড়িতে থাকার পরামর্শ দেওয়া হয়েছে ৷ বন্ধ থাকবে রেল যোগাযোগ ৷ বন্ধ দোকানপাট ৷ তবে বিশেষ কয়েকটি পরিষেবা খোলা থাকবে ৷ এরকম পরস্থিতিতে স্বাভাবিকভাবে আতঙ্কিত হয়ে পড়েছেন সাধারণ মানুষ ৷ রবিবার জনতা কার্ফুর পর এদিন সকালে ভিড় জমাতে শুরু করেন মানুষ ৷ লক ডাউনের জেরে সমস্ত দোকানপাট বন্ধ থাকবে তাই আগেভাগেই খাবার জিনিসপত্র স্টক করতে শুরু করে দিয়েছেন ৷ তবে সবজি বাজার খোলা থাকবে বলেই আশ্বাস দিয়েছেন ব্যবসায়ীরা এবং সরকার ৷ কিন্তু পরিবহন ও ট্রেন যোগাযোগ বন্ধ থাকায় কাঁচা মাল আসবে কোথা থেকে ? চিন্তায় মাথায় হাত সাধারণ মানুষের ৷ কাঁচা সবজি কতটাই বা কিনে নিয়ে গিয়ে স্টক করা যায় ?

তবে সবজি বিক্রেতারা জানিয়েছেন এতটা আতঙ্কিত হওয়ার কোনও কারণ নেই ৷ বাজার খোলা থাকবে ৷ জিনিসপত্রও মিলবে ৷ তবে হ্যাঁ তার জন্য বেশি টাকা দিতে হতে পারে ৷ মঙ্গলবার বাজারে গেলেই টের পাওয়া যাবে ৷ মনে করা হচ্ছে যে সবজি কিনেছিলেন ২০ টাকা কেজি ,সেটি হয়ে যাবে ৮০-১০০টাকা কেজি। কাঁচালঙ্কা কিনেছিলেন ১০০গ্রাম ৫ টাকা। আগামিকাল সেটা কিনতে হবে ১৫ টাকা দিয়ে। রীতিমত কাঁচা সবজির পাইকারি বাজারে আগুন জ্বলছে। টাস্কফোর্স বানিয়ে দাম নিয়ন্ত্রণের রাখার ব্যবস্থা করেছে সরকার। সঙ্গে চলছে এনফোর্সমেন্ট ব্রাঞ্চের রীতিমতো নজরদারি। কিন্তু চাহিদা এবং যোগান দুটোর সামঞ্জস্য না থাকলে বাজারে প্রতিটি জিনিসের দাম অগ্নিমূল্য হতে বাধ্য ।

ছোট ছোট বাজারের খুচরা বিক্রেতাদের দাবি, যেভাবে পাইকারি দাম বেড়ে গিয়েছে তাতে কিনে নিয়ে বিক্রি করতে কঠিন সমস্যার সম্মুখীন হতে হবে। দাম বাড়ানোয় পুলিশি নজরদারি যেরকম রয়েছে ,তেমনি রাজনৈতিক নেতাদের বারণ রয়েছে।হঠাৎ করেই ট্রেন বন্ধ থাকার জন্য সবজি কলকাতায় খুব কম আসছে। যে পরিমাণ সবজি আনতে ট্রেনে করে ৪০০ টাকা খরচা হত ।সেখানে লরিতে করে কিংবা টেম্পোতে করে আনতে অন্ততপক্ষে ৩০০০ টাকা খরচা পড়ছে। স্বাভাবিক ভাবেই জিনিসের দাম বৃদ্ধি হয়েছে বেশ কয়েক গুণ। উপরন্তু যে পরিমাণে সবজি প্রতিদিন মার্কেটে আসে এখন তার অনেকটাই কম আসছে ৷ ফলে শুরু হয়েছে কালো বাজারি ৷ খবর পেয়ে কলকাতা পুলিশের এনফোর্সমেন্ট ব্রঞ্চের অফিসাররা বাজারে আসে। পাইকারি বিক্রেতাদের অনুরোধ করেন, বেশি দামে সবজি বিক্রি না করার জন্য। বিক্রেতাদের দাবি ,তারা যে দামে বিক্রি করছেন, সেই দামেই বিক্রি করবেন। এক্ষেত্রে কারোর কোনও বারন মানবেন না।

বাজারে সবজির অভাব তৈরি হয়েছে। যার ফলে আগামিকাল থেকে মানুষ আলু, পেঁয়াজ, ডালের উপর নির্ভরশীল হয়ে পড়বেন বেশি করে। আবার ,এই তিনটি দ্রব্য মার্কেটে আসা অনেক কমে গিয়েছে। যা যোগান রয়েছে তার অনেক বেশি চাহিদা। সঙ্গে পরিবহনের সমস্যা রয়েছে। সেই সুযোগে কিছু মানুষ আছে,যারা কারণ দেখিয়ে কালোবাজারি করছে।

First published: March 23, 2020, 9:02 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर