• Home
  • »
  • News
  • »
  • kolkata
  • »
  • অধীর-মান্নানকে কটাক্ষ করে মানসের ‘বিবেক দংশন’ চিঠি

অধীর-মান্নানকে কটাক্ষ করে মানসের ‘বিবেক দংশন’ চিঠি

পিএসি চেয়ারম্যানের পদ বাঁচাতে কংগ্রেসের অন্দরের গোষ্ঠীদ্বন্দ্বকে  নিজের ঢাল করে তুলে ধরার চেষ্টায় মানস ভুঁইঞা। কংগ্রেসের অন্তর্দ্বন্দ্বকে খুঁচিয়ে তোলার সুর শোনা গেল তাঁর গলায় ৷

পিএসি চেয়ারম্যানের পদ বাঁচাতে কংগ্রেসের অন্দরের গোষ্ঠীদ্বন্দ্বকে নিজের ঢাল করে তুলে ধরার চেষ্টায় মানস ভুঁইঞা। কংগ্রেসের অন্তর্দ্বন্দ্বকে খুঁচিয়ে তোলার সুর শোনা গেল তাঁর গলায় ৷

পিএসি চেয়ারম্যানের পদ বাঁচাতে কংগ্রেসের অন্দরের গোষ্ঠীদ্বন্দ্বকে নিজের ঢাল করে তুলে ধরার চেষ্টায় মানস ভুঁইঞা। কংগ্রেসের অন্তর্দ্বন্দ্বকে খুঁচিয়ে তোলার সুর শোনা গেল তাঁর গলায় ৷

  • Pradesh18
  • Last Updated :
  • Share this:

    #কলকাতা: পিএসি চেয়ারম্যানের পদ বাঁচাতে কংগ্রেসের অন্দরের গোষ্ঠীদ্বন্দ্বকে  নিজের ঢাল করে তুলে ধরার চেষ্টায় মানস ভুঁইঞা। কংগ্রেসের অন্তর্দ্বন্দ্বকে খুঁচিয়ে তোলার সুর শোনা গেল তাঁর গলায় ৷ পিএসি-র চেয়ারম্যানের পদ ছাড়ার আর্জি জানিয়ে মঙ্গলবার মানসকে চিঠি দেন কংগ্রেস মুখ্য সচেতক মনোজ চক্রবর্তী ৷ চিঠিতে সই ছিল ৩৯ বিধায়কের ৷

    পিএসি বিতর্কে নিজের অবস্থান তুলে ধরতে দলের ৪৩ কংগ্রেস বিধায়ককে পৃথকভাবে চিঠি দিলেন সবংয়ের বিধায়ক। চিঠিতে প্রদেশ সভাপতি ও বিরোধী দলনেতার বিরুদ্ধে মানসের সুর যথেষ্টই চড়া। অধীর ও মান্নানের বিরুদ্ধে ক্ষোভ উগরে লিখেছেন, ‘অধীরের পাপ ও মান্নানের পাপ ৷ হাইকম্যান্ডকে সামনে রেখে ঢাকার চেষ্টা করছে প্রদেশ কংগ্রেস ৷’

    দল ও বিধায়কদের মধ্যে গোষ্ঠীদ্বন্দ্ব এমনিতেই কম নেই। কংগ্রেসের সেই পরিস্থিতিকে কাজে লাগিয়েই কী টিকে থাকার চেষ্টায় সবংয়ের বিধায়ক? পিএসি বিতর্কে দলের মধ্যেই কী গোষ্ঠী তৈরির চেষ্টায় মানস? মানসের দেওয়া চিঠিতে এমন সম্ভাবনাই স্পষ্ট হয়েছে ৷ মানস মুখে বলছেন, বিবেক দংশনেই চিঠি দিয়েছেন। কিন্তু এর পিছনে প্রবীণ বিধায়কের কৌশল অনেকটাই স্পষ্ট। দলের অন্দরে গুজব, এবার প্রদেশ সভাপতি ও বিরোধী দলনেতার বিরুদ্ধে দিল্লিতে দরবার করতে চলেছেন মানস ৷

    জোট বিরোধী মানস ভোটের আগে ভোল বদলে জোটপন্থী হয়ে উঠেছিলেন। তৃণমূল সরকার ক্ষমতায় আসার পর ফের পুরনো অবস্থানেই ফেরেন তিনি। মানসের এই ভূমিকা পরিবর্তনে নানা প্রশ্ন উঠছে রাজনৈতিক মহলে ৷ বামেদের সঙ্গে জোট বেঁধে ভোটে না জিতলেও বিধানসভায় প্রধান বিরোধী দলের মর্যাদা পাওয়া হয়ে গিয়েছে ৷ তাই PAC চেয়ারম্যান পদের বিদ্রোহের আড়ালে কী কংগ্রেসকে জোট থেকে বের করে আনতেই  কৌশলে এই চাল চাললেন সবংয়ের বিধায়ক?

    মানসের সাম্প্রতিক বেশ কিছু পদক্ষেপ এমন সম্ভাবনাই জোরালো করছে ৷ যেমন- দলের মধ্যে জোটবিরোধীদের সঙ্গে নিয়ে দলের ওপর চাপ বাড়ানো, জোটপন্থী মান্নান ও অধীরকে কোণঠাসা করা, জোট বিরোধীদের মনোভাব হাইকম্যান্ডের কাছে তুলে ধরা ইত্যাদি ৷

    জোট নিয়ে কংগ্রেসে মতবিরোধ নতুন নয়। এবার তাকেই হাতিয়ার করে অস্তিত্ব রক্ষার চেষ্টায় মানস ভুঁইঞা।

    First published: