বেআব্রু মেট্রোর নিরাপত্তা, ২৪ ঘন্টা পরেও অধরা সুড়ঙ্গে দৌড়ানো ব্যক্তি

বেআব্রু মেট্রোর নিরাপত্তা, ২৪ ঘন্টা পরেও অধরা সুড়ঙ্গে দৌড়ানো ব্যক্তি
২৪ ঘন্টা পরেও অধরা সুড়ঙ্গে দৌড়ানো ব্যক্তি

রবিবারের ঘটনার পর ফের প্রশ্নের মুখে মেট্রোর নিরাপত্তা ব্যবস্থা

  • Share this:

#কলকাতা: ২৪ ঘন্টা পার। এখনও অধরা মেট্রোর সুড়ঙ্গে নেমে দৌড় লাগানো ব্যক্তি। আর পি এফ, মেট্রো কর্মী ও মেট্রো রেলওয়ে পুলিশের চোখে ধুলো দিয়ে কিভাবে ওই ব্যক্তি পালিয়ে গেল তা নিয়ে সোমবার দিনভর চর্চা চলল কলকাতা মেট্রোর সদর দফতরে। মেট্রোর এমন কর্তব্যে হতবাক যাত্রীরা। তাদের প্রশ্ন আদৌ সুরক্ষিত তো পাতাল পথ? রবিবার সন্ধ্যা ৭:৪০ মিনিট নাগাদ মহাত্মা গান্ধি মেট্রো স্টেশনে এক ব্যক্তিকে আটক করেন আর পি এফ কর্মীরা। অভিযোগ উপযুক্ত টোকেন ছিল না ওই ব্যক্তির কাছে। আর পি এফের সঙ্গে বচসার সময়ে ওই ব্যক্তি হাত ছাড়িয়ে মেট্রোর সুড়ঙ্গের লাইনে নেমে পড়েন। গোটা ঘটনায় হকচকিয়ে যান প্ল্যাটফরমে থাকা যাত্রী ও কর্মীরা। যতক্ষণে হুঁশ ফেরে ততক্ষণে টানেল দিয়ে গিরিশ পার্কের দিকে দৌড় শুরু করেন ওই ব্যক্তি। খবর দেওয়া হয় মেট্রোর সেন্ট্রাল কন্ট্রোল রুমে। বন্ধ করা হয় সেন্ট্রাল থেকে গিরীশ পার্কের মধ্যে বিদ্যুৎ সংযোগ। যদিও ১৭ মিনিট পরে ওই ব্যক্তি ৭:৫৭ মিনিট নাগাদ বেরিয়ে যান গিরীশ পার্ক মেট্রো স্টেশন থেকে। সিসিটিভি তে ধরা পড়েছে ওই ব্যক্তি বিবেকানন্দ রোডের দিকে চলে গেছেন। এখানেই উঠছে প্রশ্ন। একজন ব্যক্তি কি করে এত গুলি মানুষের নজর এডিয়ে পালাতে পারলেন? গিরীশ পার্ক মেট্রো স্টেশনে কেন কোনও আর পি এফ আটক করতে পারল না? সিসিটিভিতে নজরদারি করার কথা সেটা করা যাদের কাজ তারা কি করছিলেন?মেট্রো সূত্রে খবর, ওই ব্যক্তিকে আর পি এফ কর্মীরা নিয়ে যান মহাত্মা গান্ধি রোড স্টেশন মাষ্টারের ঘরে। সেখানে তাকে ফাইন দিতে বলা হলে। তিনি একটা ফোন করতে চান। তারই ফাঁকে তিনি দৌড় লাগান। কিন্তু ওই ব্যক্তি যখন সুড়ঙ্গে মধ্যে নেমে গিরীশ পার্কের দিকে যাচ্ছেন। তখন কেন গিরীশ পার্কের নিরাপত্তার দেখভাল যে সমস্ত আর পি এফ রা করছিলেন তারা কেনও টানেলে নামলেন না তা নিয়ে উঠছে প্রশ্ন। মেট্রো কর্তৃপক্ষ জানিয়েছে ৭:৪১ থেকে পাওয়ার ব্লক নেওয়া ছিল। তাহলে তাদের সুড়ঙ্গের মধ্যে নেমে ওই ব্যক্তির সন্ধান পাওয়া অসুবিধা ছিল না। মেট্রোর এক কর্তা জানান, ডাউন লাইনে দাঁড়িয়ে ছিল আর পি এফ। আর ওই ব্যক্তি আপ লাইন দিয়ে এসে ওঠেন প্ল্যাটফরমে। কিন্তু প্ল্যাটফরম থেকে একেবারে রাস্তা অবধি যাওয়ার সময়ে বেশ কয়েকটি নিরপত্তা বেষ্টনী পেরোতে হয়। সেখানে কর্মরত আর পি এফ কর্মীরা কি করছিলেন তা নিয়েও উঠেছে প্রশ্ন। গাফিলতির বিষয়টি মেনে নিয়েছে কলকাতা মেট্রো রেল কর্তৃপক্ষ। মেট্রোর মু্খ্য জনসংযোগ আধিকারিক ইন্দ্রানী ব্যানার্জি বলেন, আমরা তিন সদস্যের তদন্ত কমিটি গঠন করেছি। তারা কোথায় কোথায় সমস্যা হয়েছে তা তদন্ত করে দেখবেন। এর পাশাপাশি রবিবার সন্ধ্যার ঘটনার সিসিটিভি ফুটেজ তুলে দেওয়া হয়েছে কলকাতা পুলিশের হাতে। তাদের সাহায্য চাইছে মেট্রো ওই অজ্ঞাতপরিচয় ব্যক্তির সন্ধানে। যদিও রবিবার ঘটনায় চিন্তিত মেট্রো যাত্রীরা। তাদের প্রশ্ন, ভাড়া তো বৃদ্ধি হল। কিন্তু নিরাপত্তা কোথায়? রবিবারের ঘটনার পরে তাই ফের প্রশ্নের মুখে মেট্রোর নিরাপত্তা ব্যবস্থা।

First published: January 6, 2020, 7:55 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर