‘বোনের মতো আপনার পাশে থাকব’, জমি-বিতর্কে অমর্ত্য সেনকে চিঠি মমতার

‘বোনের মতো আপনার পাশে থাকব’, জমি-বিতর্কে অমর্ত্য সেনকে চিঠি মমতার

এই ঘটনায় নোবেল জয়ী বাঙালি অর্থনীতিবিদের ইচ্ছাকৃতভাবে নাম জড়িয়ে কালিমালিপ্ত করার চেষ্টা চলছে বলে দাবি করেছেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় ৷

এই ঘটনায় নোবেল জয়ী বাঙালি অর্থনীতিবিদের ইচ্ছাকৃতভাবে নাম জড়িয়ে কালিমালিপ্ত করার চেষ্টা চলছে বলে দাবি করেছেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় ৷

  • Share this:

    #কলকাতা: শান্তিনিকেতনে অর্মত্য সেনের বাড়ির জমি বিতর্ক নিয়ে সরব হলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় ৷  বাঙালি কৃতীকে চিঠিতে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় লিখেছেন, ‘অসহিষ্ণুতার বিরুদ্ধে আপনার লড়াইয়ের পাশে আছি ৷ বোনের মতো আপনার পাশে থাকব ৷’ অমর্ত্য সেনের শান্তিনিকেতনের বাড়ি ‘প্রতীচী’ নিয়ে সম্প্রতি এক বিতর্ক উপস্থিত ৷ বিশ্বভারতীর জমি নিয়ে দীর্ঘদিন ধরে রয়েছে জটিলতা ৷ সম্প্রতি বিশ্বভারতীতে কেন্দ্রের শাসকদলের ঘনিষ্ঠ শিবিরের তরফে দাবি করা হয়েছে অমর্ত্য সেনের বাড়ি প্রতীচী সংলগ্ন জমি আসলে বিশ্ববিদ্যালয়ের ৷ তা অবৈধভাবে দখল করা হয়েছে ৷ এই ঘটনায় নোবেল জয়ী বাঙালি অর্থনীতিবিদের ইচ্ছাকৃতভাবে নাম জড়িয়ে কালিমালিপ্ত করার চেষ্টা চলছে বলে দাবি করেছেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় ৷ অর্মত্য সেন, নাম রেখেছিলেন স্বয়ং কবিগুরু রবীন্দ্রনাথ ৷ শান্তিনিকেতনের সঙ্গে তাঁর পরিবারের সঙ্গে সম্পর্ক আজকের নয় ৷ বংশপম্পরায় অমর্ত্য সেনের গোটা পরিবার বরাবরই শান্তিনিকেতনেই থাকেন ৷ কবিগুরুর পর দ্বিতীয় বাঙালি হিসেবে নোবেল পুরস্কার পেয়েছিলেন অর্মত্য সেন ৷ এহেন কৃতী ব্যক্তির নাম এমন সমস্যায় টেনে আনায় ক্ষুব্ধ মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় ৷ চিঠিতে,  সম্মানীয় অমর্ত্যদা বলে মুখ্যমন্ত্রী লিখেছেন, ‘শান্তিনিকেতনের সাম্প্রতিক কিছু ঘটনার কথা সংবাদমাধ্যম থেকে জেনে আমি হতভম্ব ৷ শান্তিনিকেতনের সঙ্গে আপনার শিকড়ের যোগসূত্র নিয়ে যে জঘন্য ইঙ্গিত করা হয়েছে তাতে আমি ব্যথিত ৷’ শান্তিনিকেতনের সঙ্গে অমর্ত্য সেনের সম্পর্ক কতটা গভীর তা উল্লেখ করে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় লিখেছেন, ‘আপনার মাতামহ পণ্ডিত ক্ষিতিমোহন সেন ছিলেন শান্তিনিকেতনের শুরুর দিকের বাসিন্দাদের মধ্যে অন্যতম। আপনার বাবা প্রখ্যাত শিক্ষাবিদ এবং প্রশাসক আশুতোষ সেন ৷ প্রায় আট দশক আগে উনিই নির্মাণ করেছিলেন প্রতীচী।’ কেন্দ্রের মোদি সরকারের বহু অর্থনৈতিক নীতি নিয়ে বার বার সমালোচনায় সরব হয়েছেন অর্থনীতিবিদ ৷ নোট বাতিল থেকে লকডাউনের সময় কেন্দ্রের অর্থনৈতিক পরিকল্পনা, বিভিন্ন সময়ই শাসকের ভুল-ত্রুটি তুলে ধরার সঙ্গে সঙ্গে এমনকী সিএএ, এনআরসি, অসহিষ্ণুতার মতো রাজনৈতিক ইস্যুগুলিতেও নোবেলজয়ীর প্রতিবাদী কণ্ঠ শোনা গিয়েছে ৷ সে সমস্ত কারণে কেন্দ্রের শাসক দলের বিষনজরে নোবেলজয়ী অর্থনীতিবিদ ৷ তাদের অঙ্গুলি হেলনেই পরিকল্পিতভাবে অর্মত্য সেনের ইমেজকে কালিমালিপ্ত করার চেষ্টা করছে বলে অভিযোগ করেছেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় ৷ চিঠির শেষে তিনি লিখেছেন, ‘এদেশের আধিপত্যবাদ এবং অসহিষ্ণুতার বিরুদ্ধে লড়াইয়ে আমি আপনার বোন ও বন্ধু হিসেবে পাশে আছি ৷’ এর আগে বৃহস্পতিবারের নবান্নে সাংবাদিক সম্মেলনেও এই প্রসঙ্গটি উত্থাপন করে মুখ্যমন্ত্রী বলেছিলেন, ‘বাংলার মণীষীদের লাগাতার অপমান করছে বিজেপি ৷ এবার অমর্ত্য সেনের নাম নিয়ে টানাটানি করছে ওরা ৷ ওনার অমর্যাদা আমরা হতে দেব না ৷ আপনারা কি বিশ্বাস করেন, অমর্ত্য সেনের এমন দিনও আসবে, যে তাঁকে শান্তিনিকেতনে জমি দখল করতে হবে! অমর্ত্য সেন আদর্শগত ভাবে বিজেপি-র বিরুদ্ধে বলে তাঁর বিরুদ্ধে যা ইচ্ছা তাই বলে যাবে, এটা বাংলার মানুষ সহ্য করবে না। আমি বাংলার হয়ে ক্ষমা চাইছি। ক্ষমা করবেন অমর্ত্যদা। ’

    Published by:Elina Datta
    First published: