Mamata Banerjee: আজ আর হুইল চেয়ারে নয়, পায়ে হেঁটে দলীয় কার্যালয়ে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়

Mamata Banerjee: আজ আর হুইল চেয়ারে নয়, পায়ে হেঁটে দলীয় কার্যালয়ে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়

পায়ে হেঁটে দলীয় কার্যালয়ে মমতা বন্দ্যোপা‌ধ্যায়।

নন্দীগ্রামের ভোটের দিন এই হুইলচেয়ারে বসেই মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় দুই ঘণ্টা ধর্না দিয়েছিলেন বয়ালের ভোট কেন্দ্রে।

  • Share this:

    #কলকাতা: নন্দীগ্রামে জিতেছেন। জিতেছেন গোটা বাংলার মন। ভোটের যুদ্ধে বিপুল সংখ্যাগরিষ্ঠতা অর্জন করে আজ, রবিবার হুইলচেয়ারও ছাড়লেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। নিজের পায়ে হেঁটেই এলেন দলীয় কার্যালয়ে। বার্তা দিলেন, বাংলাই পারে।

    নন্দীগ্রামের বিরুলিয়া বাজারে পায়ে চোট পাওয়ার পরে এই হুইলচেয়ারই ছিল তাঁর অষ্টপ্রহরের সঙ্গী। নন্দীগ্রামের ভোটের দিন এই হুইলচেয়ারে বসেই মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় দুই ঘণ্টা ধর্না দিয়েছিলেন বয়ালের ভোট কেন্দ্রে।

    এই প্রতিবেদন লেখার সময়ে এখন নন্দীগ্রামে গণনা শেষ হয়নি। তবে জয়ের অভিমুখেই দাঁড়িয়ে রয়েছেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। আর তাঁর দল নিরঙ্কুস সংখ্যাগরিষ্ঠতা পাচ্ছে সে বিষয়ে আর কোনও সন্দেহ নেই কারণ।

    আজ পোস্টাল ব্যালট খোলা থেকেই গোটা রাজ্যে তৃণমূলের ঝড় দেখা গিয়েছে। বাংলা নিজের মেয়েকে চায় এই স্লোগানকে প্রমাণিত করে ছেড়েছেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। এমনকি গত লোকসভা নির্বাচনে পিছিয়ে থাকা জেলা মালদহ, ঝাড়গ্রাম, নদিয়া জেলাতেও তৃণমূলের প্রার্থীদের ফল অভাবনীয়। পরাজিত হয়েছেন প্রায় সব সদ্য তৃণমূলত্যাগীরা। এই তালিকায় রয়েছে রাজীব বন্দ্যোপাধ্যায়, জীতেন্দ্র তিওয়ারি, প্রবীর ঘোষালরা। তৃতীয় বারের জন্য পরাজিত হয়েছেন রাহুল সিনহাও।

    ২০২১ নির্বাচনে বিজেপির টার্গেট ছিল এবার পূর্ব-মেদিনীপুর, বলা হচ্ছিল শুভেন্দু অধিকারীর গড় এই এলাকা। তাঁকেই পোস্টার বয় বানিয়ে লড়াইয়ে নেমেছিল বিজেপি। কিন্তু ভোটের দিন বেলা গড়াতে দেখা যায় ব্র্যান্ড মমতার সামনে দাঁড়াতেই পারেনি  বিজেপি।

    এই খবরটি সবেমাত্র দেওয়া হয়েছে। এই খবরটি সবিস্তারে আসছে কিছুক্ষণেই। খবরটি বিস্তারিত পড়তে অল্প সময় পরে পাতাটি রিফ্রেশ করুন। ভোটের দিন ঘোষণা থেকে ফল-প্রতিদিন প্রতিটি পুঙ্খানুপুঙ্খ আপডেট আপনাদের সামনে তুলে ধরেছি আমরা। আপনাকে সত্যনিষ্ঠ, নির্ভুল খবর দিতে আমরা বদ্ধপরিকর।

    Published by:Arka Deb
    First published: