corona virus btn
corona virus btn
Loading

#COVID19: কেন্দ্রের কাছে ১৫০০ কোটি টাকার প্যাকেজ দাবি করলেন মমতা

#COVID19: কেন্দ্রের কাছে ১৫০০ কোটি টাকার প্যাকেজ দাবি করলেন মমতা

নবান্নে বুধবার সাংবাদিকদের প্রশ্নের উত্তরে তিনি অভিযোগ করেন কেন্দ্রীয় সরকারের কাছ থেকে এখনও পর্যন্ত কোন রকমের অর্থ সাহায্য পাওয়া যায়নি।

  • Share this:

#কলকাতা: করোনা ভাইরাসের চিকিৎসার সরঞ্জাম কেনার জন্য মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় কেন্দ্রীয় সরকারের কাছে ১৫০০ কোটি টাকার প্যাকেজ দাবি করেছেন। নবান্নে বুধবার সাংবাদিকদের প্রশ্নের উত্তরে তিনি অভিযোগ করেন কেন্দ্রীয় সরকারের কাছ থেকে এখনও পর্যন্ত কোন রকমের অর্থ সাহায্য পাওয়া যায়নি। এই অবস্থায় রাজ্যের ত্রাণ তহবিলে অর্থ সাহায্য করার জন্য তিনি সকলের কাছে আবেদন জানান। একই সঙ্গে কেন্দ্রের লক ডাউন মেনেও রাজ্য সরকার কিছু ক্ষেত্রে নিয়ম শিথিল করতে পারে বলে এদিন ইঙ্গিত দিয়েছেন মমতা।

করোনা সংক্রমণ ও লকডাউন পরিস্থিতির নিরিখে যাবতীয় সমস্যা ও অভিযোগের দূর করতে রাজ্য সরকার একটি অভিন্ন কেন্দ্রীয় হেল্পলাইন চালু করেছে। নবান্নে এদিন এক সাংবাদিক বৈঠকে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় এই কথা ঘোষণা করেন। তিনি বলেন বর্তমান পরিস্থিতিতে নাগরিকরা যে কোন সমস্যায় এই হেল্পলাইনে ফোন করতে পারবেন। টোল ফ্রি নম্বরটি হল ১০৭০। এছাড়া ০৩৩ ২২১৪৩৫২৬ নম্বরে ফোন করে সমস্যা বা অভিযোগ জানানো যাবে।

এছাড়া পরিস্থিতির ওপর নজরদারির জন্য রাজ্য সরকার দুটি পৃথক টাস্কফোর্স গঠন করেছে বলে মুখ্যমন্ত্রী জানিয়েছেন। রাজ্যের মুখ্যসচিব ও রাজ্য পুলিশের মহানির্দেশকের নেতৃত্বে এই কমিটি দুটি গঠন করা হবে । মুখ্য সচিবের নেতৃত্বে গঠিত টাস্ক ফোর্সে জরুরি পরিষেবার সঙ্গে যুক্ত সব দফতরের সচিবরা থাকবেন। রাজ্য পুলিশের মহানির্দেশকের নেতৃত্বে অন্য কমিটিতে থাকবেন রাজ্যের এডিজি আইনশৃঙ্খলা, কলকাতা পুলিশের কমিশনার। তারা নিরন্তর সমন্বয় ও নজরদারির কাজ চালাবেন। অন্যদিকে জরুরি পরিষেবাকে লকডাউনের আওতা থেকে বাইরে রাখা হলেও স্থানীয় ভাবে পুলিশ কর্মীরা ই-কমার্সের ডেলিভারি বয়, সবজি বা অন্যান্য নিত্য প্রয়োজনীয় সামগ্রীর জোগানদারদের হেনস্থা করছে বলে অভিযোগ উঠেছে। জরুরি পরিষেবা যাতে কোনও ভাবে ব্যাহত না হয় তা নিশ্চিত করতে মুখ্যমন্ত্রী প্রশাসনকে নির্দেশ দিয়েছেন।

লক ডাউন চলাকালীন নিয়ম না মানলে সাধারণ মানুষের বিরুদ্ধে যেমন ব্যবস্থা নেওয়া হবে সরকারের নির্দেশ যথাযথ পালন না করলে পুলিশ প্রশাসনের কর্মীদের বিরুদ্ধেও একই আইনে ব্যবস্থা নেওয়া হবে বলে মুখ্যমন্ত্রী জানিয়েছেন। একই সঙ্গে বিধবা ভাতা-সহ বিভিন্ন সামাজিক ভাতা দু’মাসের টা এক মাসে এপ্রিলেই দিয়ে দেবে রাজ্য সরকার। সিনিয়র সিটিজেনদের দায়িত্ব হাউসিংগুলিকে নেওয়ার আবেদন করেছেন মুখ্যমন্ত্রী ।

অন্যদিকে পরিস্থিতি মোকাবিলায় রাজ্য সরকারের তহবিলে অর্থ দান করার জন্য মুখ্যমন্ত্রী আবেদন জানিয়েছেন। wb.gov.in ওয়েবসাইটে অনলাইনে অর্থদান করা যাবে।

মুখ্যমন্ত্রী জানান সরকার পরিস্থিতির ওপর নজর রাখছে। সকলকে কেন্দ্রের নির্দেশ মেনে তিন সপ্তাহের লক ডাউন মেনে চলার তিনি আবেদন জানিয়েছেন। ৩১ সে মার্চ পরিস্থিতি পর্যালোচনা করে রাজ্য সরকার পরবর্তী পদক্ষেপ নেবে বলে মুখ্যমন্ত্রী জানিয়েছেন। সকলকে একযোগে পরিস্থিতির মোকাবিলা করার তিনি আহ্বান জানান।

First published: March 25, 2020, 5:00 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर