• Home
  • »
  • News
  • »
  • kolkata
  • »
  • ‘সিঙ্গুর’ বামেদের ঐতিহাসিক আত্মহত্যা

‘সিঙ্গুর’ বামেদের ঐতিহাসিক আত্মহত্যা

সিঙ্গুরের জমি আন্দোলনকে কেন্দ্র করেই রাজ্যে রাজনৈতিক পরিবর্তনের সূত্রপাত। বামদুর্গ গুড়িয়ে মা-মাটি-মানুষের ডাকে পরিবর্তনের যাত্রা শুরু।

সিঙ্গুরের জমি আন্দোলনকে কেন্দ্র করেই রাজ্যে রাজনৈতিক পরিবর্তনের সূত্রপাত। বামদুর্গ গুড়িয়ে মা-মাটি-মানুষের ডাকে পরিবর্তনের যাত্রা শুরু।

সিঙ্গুরের জমি আন্দোলনকে কেন্দ্র করেই রাজ্যে রাজনৈতিক পরিবর্তনের সূত্রপাত। বামদুর্গ গুড়িয়ে মা-মাটি-মানুষের ডাকে পরিবর্তনের যাত্রা শুরু।

  • Pradesh18
  • Last Updated :
  • Share this:

    #কলকাতা: সিঙ্গুরের জমি আন্দোলনকে কেন্দ্র করেই রাজ্যে রাজনৈতিক পরিবর্তনের সূত্রপাত। বামদুর্গ গুড়িয়ে মা-মাটি-মানুষের ডাকে পরিবর্তনের যাত্রা শুরু। সুপ্রিম কোর্টের রায়ে আজ সেই আন্দোলনের বৃত্ত সম্পূর্ণ হল। এই রায় তাই মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় ও তৃণমূল সরকারের সবচেয়ে বড় বিজ্ঞাপন। দশ বছরের অপেক্ষা শেষে আজ তাই স্বস্তিতে মুখ্যমন্ত্রী।

    সাংবাদিকদের মুখোমুখি হয়ে বললেন, ‘এটা হল ল্যান্ডমার্ক ভিকট্রি ৷ বাংলা নামের রাজ্য নামকরণের পর বাংলায় যে সম্পদ আমরা পেলাম তা ঐতিহাসিক জয় ৷ ধারাবাহিক আন্দোলনের জয় ৷ সিঙ্গুরের কৃষকদের জয় ৷ আমি খুবই খুশি হয়েছি ৷ এটা আমার কাছে আনন্দাশ্রুর জয় ৷’

    সিঙ্গুরের মাটি আঁকড়েই রাজ্যে পরিবর্তনের ডাক দিয়েছিলেন রাজ্যের তৎকালীন বিরোধী নেত্রী। সাদা শাড়ি আর নীল হাওয়াই চটি পড়ে স্লোগান তুলেছিলেন মা-মাটি-মানুষের। এক দশকের লড়াই জিতে তাই এবার উৎসবের পালা। উচ্ছ্বসিত মুখ্যমন্ত্রীর প্রতিক্রিয়া, ‘পরবর্তী বৈঠক আমরা সিঙ্গুরেই করব ১৪ সেপ্টেম্বর ৷ প্রশাসনিক বৈঠকের পরেই সেদিন সিঙ্গুরে বিজয়োৎসব হবে ৷ আজ থেকে সিঙ্গুরে বিজয়োৎসব শুরু হয়ে গিয়েছে ৷ ২ তারিখে রাজ্যের ব্লকে ব্লকে সিঙ্গুর উৎসব পালিত হবে ৷ ১৪ তারিখ কেন্দ্রীয়ভাবে সিঙ্গুরে বিজয়ো‍ৎসব হবে সিঙ্গুরে ৷ ’

     বামেদের সৌজন্যে 'ঐতিহাসিক ভুল' বহুবার দেখেছে এ রাজ্য। এবার সিঙ্গুরকে বামেদের ঐতিহাসিক আত্মহত্যা বলে আখ্যা দিলেন মুখ্যমন্ত্রী। তৎকালীন বাম শাসকদের দিকে কটাক্ষ ছুঁড়ে বললেন, ‘আগের সরকার যা করেছিল তা বেআইনি ৷ জোর করে জমি দখল করেছিল আগের সরকার ৷ ওটা ছিল ঐতিহাসিক আত্মহত্যা ৷’ একই সঙ্গে তৃণমূল সরকার ক্ষমতায় আসার পর যেকথা ঘোষণা করেছিলেন মুখ্যমন্ত্রী, তা এদিন আরও একবার মনে করিয়ে দিলেন, ‘আমরা জোর করে জমি দখল করব না ৷ এই রায় জমি অধিগ্রহণে দিগন্ত খুলে দিল ৷ জমির অধিকারে নতুন দিগন্ত এনে দিল ৷ জমি যার, জমিতে তারই অধিকার ৷ আজ আদালত তাতেই সিলমোহর দিল ৷’

    সুপ্রিম কোর্টের রায়ে সিঙ্গুরের জমি হাতছাড়া হয়েছে টাটাদের। কিন্তু শিল্পোদ্যোগী মুখ্যমন্ত্রী আবেগকে সংযত রেখেছেন। টাটাকে বাংলায় শিল্প গড়তে আহ্বান জানাবেন কিনা, সাংবাদিকদের এই প্রশ্নের উত্তরে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় বলেন, ‘বাংলাই হল শিল্পের শেষ গন্তব্য ৷ আমি আপনাদের আবার বলছি ৷ আমাদের কাছে কেউ বঞ্চিত হয় না ৷ আমরা নিয়ম মেনেই কাজ করি ৷’

    সর্বোচ্চ আদালতের এই রায় ব্যক্তি মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের আন্দোলনের বৃত্তও সম্পূর্ণ করল। সিঙ্গুর আন্দোলন থেকেই পরিবর্তনের জন্ম ৷ সুপ্রিম-রায়ে সেই আন্দোলনের বৃত্ত সম্পূর্ণ ৷ ১০ বছরের অপেক্ষা শেষে স্বস্তিতে মমতা ৷ বললেন, ‘এবার আমি শান্তিতে মরতে পারব ৷’ আইনি জয়ের পর এবার উৎসবের পালা ৷ তবু টাটাদের জন্যে রাজ্যে দরজা খোলাই রাখছেন তিনি ৷

    First published: