বাংলার স্বার্থ আগে, তারপর তিস্তা চুক্তিতে সায়: মমতা

তিস্তার জল কি বাংলাদেশ পাবে? তিস্তার জল নিয়ে এই প্রশ্ন ও বিতর্কের জল বহু বছর ধরেই পশ্চিমবঙ্গ ও বাংলাদেশের মধ্যে বিভেদ তৈরি করেছে ৷

তিস্তার জল কি বাংলাদেশ পাবে? তিস্তার জল নিয়ে এই প্রশ্ন ও বিতর্কের জল বহু বছর ধরেই পশ্চিমবঙ্গ ও বাংলাদেশের মধ্যে বিভেদ তৈরি করেছে ৷

  • Share this:

    #কলকাতা: তিস্তার জল কি বাংলাদেশ পাবে? তিস্তার জল নিয়ে এই প্রশ্ন ও বিতর্কের জল বহু বছর ধরেই পশ্চিমবঙ্গ ও বাংলাদেশের মধ্যে বিভেদ তৈরি করেছে ৷ এপ্রিল মাসে ভারত সফরে আসছেন বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ৷ এই সফরেই কী তিস্তা চুক্তি নিয়ে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের সঙ্গে আলাপ আলোচনায় কোনও সবুজ সংকেত মিলবে? বৃহস্পতিবার এবিপি আনন্দকে দেওয়া এক বিশেষ সাক্ষাৎকারে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় তিস্তা চুক্তি নিয়ে স্পষ্টই জানিয়েদেন, ‘বাংলাদেশের জন্য যা করার করব, তবে বাংলার স্বার্থ বাঁচিয়ে ৷ ’

    বাংলাদেশের সঙ্গে তিস্তা জল বন্টনের চুক্তি করার উদ্যোগ দ্বিতীয় ইউপিএ সরকারের সময়ও নেওয়া হয়েছিল ৷ পশ্চিমবঙ্গের উত্তর প্রান্তের চাষবাস বেশিরভাগ ক্ষেত্রেই তিস্তার জলের ওপর নির্ভরশীল ৷ তাই জল বন্টন করা হলে, উত্তরবঙ্গের চাষবাসে ক্ষতির আশঙ্কা রয়েছে বলে মনে করা হচ্ছে ৷ সেই কারণেই ২০১১ সালে শেষ মুহূর্তে ঢাকা সফর বাতিল করেছিলেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় ৷ সেই সময় মমতা স্পষ্টই জানিয়েছিলেন, রাজ্য সরকারের সঙ্গে আলোচনা না করেই তিস্তা চুক্তির দিকে এগিয়েছে মনমোহনের সরকার ৷ এই একই অভিযোগ মোদি সরকারের বিরুদ্ধেও ৷

    বাংলাদেশের সঙ্গে তিস্তা চুক্তি নিয়ে বলতে গিয়ে সাক্ষাৎকারে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় জানান, ‘যেখানে রাজ্যের স্বার্থ সেখানে রাজ্যের সঙ্গে আলোচনা করা উচিত। কিন্তু শুনছি ২৫ মে বাংলাদেশে গিয়ে তিস্তা চুক্তি হবে। অথচ, আমি এখনও কিচ্ছু জানি না।’’

    First published: