‌"আগে জানলে আগেই তাড়াতাম", ডোমজুড়ের সভায় রাজীবের বিরুদ্ধে বিস্ফোরক অভিযোগ মমতার

‌"আগে জানলে আগেই তাড়াতাম", ডোমজুড়ের সভায় রাজীবের বিরুদ্ধে বিস্ফোরক অভিযোগ মমতার

রাজীবকে কাঠগড়ায় তুললেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। ফাইল চিত্র

মীরজাফর বলে একের পর এক তোপ দাগলেন তাঁর বিরুদ্ধে। বুঝিয়ে দিলেন লড়াইটা আসলে তাঁর প্রার্থী কল্যান ঘোষ নয়, তাঁর সঙ্গেই রাজীবের। এই প্রেস্টিজ ফাইটে কল্যাণ প্রতিনিধিমাত্র।

  • Share this:

    #কলকাতা: ১০ এপ্রিল অগ্নিপরীক্ষা ডোমজুড়ে। গোটা বাংলা নিয়েই মাথাব্যথা থাকলেও  অনেকটা নন্দীগ্রামের মতোই ডোমজুড়ে মমতার প্রেস্টিজ ফাইট। কারণ নন্দীগ্রামে যেমন বিজেপির প্রার্থী শুভেন্দু অধিকারী, তেমনই এইখানে রাজীব বন্দ্যোপাধ্যায়। দুজনেই মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের দীর্ঘ পথচালর সঙ্গী। আজ অন্তিমক্ষণে জ্যাকেট বদলে বিজেপি শিবিরে। কাজেই ডোমজুড়ে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় নিশানা করলেন রাজীব বন্দ্যোপাধ্যায়কেই। মীরজাফর বলে একের পর এক তোপ দাগলেন তাঁর বিরুদ্ধে। বুঝিয়ে দিলেন লড়াইটা আসলে তাঁর প্রার্থী কল্যান ঘোষ নয়, তাঁর সঙ্গেই রাজীবের। এই প্রেস্টিজ ফাইটে কল্যাণ প্রতিনিধিমাত্র।

    এদিন মমতা বলেন, একটা মীরজাফরকে এখানে নমিনেশন দিয়েছিলাম। জনগনের টাকা মেরে দিয়ে কারসাজি করে। রাজীব সম্পর্কেই যে বলছেন  তা বলার অপেক্ষা রাখে না। ক্রমে মমতা অভিযোগ স্পষ্ট করলেন আরও। বললেন, "সেচমন্ত্রী ছিল। আমি কিছু টাকার অভিযোগ পেয়ে ওকে সরিয়ে বনমন্ত্রক দিলাম। আমায় বলেছিল ইঞ্জিনিয়ারিং ডিপার্টমেন্ট দিতে। তাহলে আরও টাকা মারত।"

    কিন্তু সব জেনেও তাঁকে কেন রেখেছিলেন মমতা! তৃণমূল সুপ্রিমো নিজেই খোলসা করলেন। বললেন,  আমি ক্ষমাপ্রার্থী। ফরসা লম্বা, দেখে বুঝিনি। আগে জানলে আগে সরিয়ে দিতাম।

    রাজীবকে সম্পত্তি নিয়েও কটাক্ষ করতে ছাড়লেন না মমতা। না‌ম না করেই বললেন,  কলকাতায় কত জায়গা রয়েছে তোমার, কলকাতা থেকে দুবাই কত সম্পত্তি করেছো! মানুষকে জবাব দাও।

    পাশাপাশি এদিন ক্লিনচিট দিলেন তাঁর প্রার্থী  কল্যাণ ঘোষকে। রাজীবকে কল্যানের তুলনায় এগিয়ে রাখার কারণও ব্যাখ্যা করে বললেন,  আগুন লাগলে ওই ঝাঁপিয়ে পড়বে।

    রাজীব বন্দ্যোপাধ্যায়ের উন্নয়ন সংক্রান্ত দাবিদাওয়া নস্যাৎ করলেন মমতা। বললেন, উনি নাকি সব করেছেন, তাহলে মুখ্যমন্ত্রীর দরকার ছিল না! সাধারণ মানুষের কাছে মমতার আর্জি, 'ডোমজুরে গদ্দারকে পরাজিত করবেন।'

    হাওয়া পালে না উল্টোদিকে তা বোঝা যাবে ২ মে। তবে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের চক্ষুশূল  যে তাঁর একসময়ের দুই নয়নের মণি, তা বুঝতে বাকি রইল না।

    Published by:Arka Deb
    First published:

    লেটেস্ট খবর