Mamata on Cyclone Yaas: ইয়াস মোকাবিলায় কেন ওড়িশা-অন্ধ্রের থেকে বাংলাকে কম টাকা? প্রশ্ন তুলে অমিত শাহকে কটাক্ষ মমতার

অমিত শাহকে কটাক্ষ মমতার

সাইক্লোন (Cyclone) মোকাবিলায় কী কী ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে সেগুলিও আজ জানান তিনি। পাশাপাশি ইয়াস প্রসঙ্গেই স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহকে (Amit Shah) কটাক্ষ করেন মমতা।

  • Share this:

#কলকাতা: আমফানের (Amphan) থেকেও ভয়াবহ হতে পারে ঘূর্ণিঝড় ইয়াস (Yaas)। সাংবাদিক বৈঠকে সাবধান করলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় (Mamata Banerjee)। এছাড়া সাইক্লোন (Cyclone) মোকাবিলায় কী কী ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে সেগুলিও আজ জানান তিনি। পাশাপাশি ইয়াস প্রসঙ্গেই স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহকে (Amit Shah) কটাক্ষ করেন মমতা।

ঘূর্ণিঝড়ের পরিস্থিতি খতিয়ে দেখতে আজ পশ্চিমবঙ্গ, ওড়িশা ও অন্ধ্রপ্রদেশের মুখ্যমন্ত্রীদের সঙ্গে বৈঠক করেন অমিত শাহ। সেই বৈঠকে রাজ্যগুলিকে কত টাকা দেওয়া হবে তা নিয়েও আলোচনা হয়। মমতা বলেন, "আজ অমিত শাহ বৈঠক করেছেন। সাহায্য করবেন বলেছেন। রাজ্য তার প্রাপ্য টাকাই পাবে। তবে ওড়িশা ও অন্ধ্রপ্রদেশকে ৬০০ কোটি টাকা করে দিচ্ছেন। বাংলাকে ৪০০ কোটি টাকা দিচ্ছেন।"

এই নিয়ে রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী প্রশ্ন তোলেন, "বাংলা এত বড় রাজ্য। তাহলে বাংলাকে কেন ৪০০ কোটি টাকা দেওয়া হচ্ছে? আমরাই কেন বঞ্চিত হচ্ছি? আমাদের জনঘনত্ব এবং জেলাও অনেক বেশি। তা সত্ত্বেও বার বার কেন বঞ্চিত আমরাআমফানে পেলাম না। বুলবুলে পেলাম না। বাংলা তো বড় জেলা। "

মমতা জানান, ওড়িশা বা অন্ধ্রপ্রদেশ তাদের প্রাপ্য টাকা পাচ্ছে, এ নিয়ে তাঁর কোনও আক্ষেপ নেই। কিন্তু বার বার বাংলাকেই কেন বঞ্চিত হতে হবে। কেন এই বৈষম্য, প্রশ্ন তুলেছেন মমতা। অমিত শাহ জানিয়েছেন, সমস্ত কিছু বৈজ্ঞানিক ভাবে ঠিক হয়েছে। মমতার কথায়, "আমি আর কিছু বলিনি। আমি রাষ্ট্রবিজ্ঞান ভালো বুঝি। কিন্তু বিজ্ঞান কম বুঝি!"

এদিন সাংবাদিক বৈঠকে মানুষকে সতর্ক করতে মমতা বলেন, আমফানের থেকেও বড় হতে পারে ইয়াস। আর তাই মৎস্যজীবীদের সমুদ্রে যেতে না করেছেন তিনি। ঝড় চলাকালীন বাইরে বেরিয়ে দেখা ইত্যাদিও যেন কেউ না করে তাও সাবধান করেছেন মমতা।

ইতিমধ্যেই বিপজ্জনক ও উপকূলবর্তী অঞ্চলগুলি থেকে মানুষকে সরাতে শুরু করা হয়েছে। মুখ্যমন্ত্রী জানান ১০০ লক্ষ মানুষকে সরিয়ে নিরাপদে নিয়ে আসার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। তাঁর কথায়, "এখন থেকেই একটা দুর্যোগের আশঙ্কা আছে। ৭২ ঘণ্টা চলবে। সুন্দরবন এলাকা, দক্ষিণ ২৪ পরগনা,উত্তর ২৪ পরগনা এলাকা থেকে মানুষকে নিরাপদ এলাকায় সরানো হচ্ছে। ২০ টি জেলায় দাপট থাকবে ঝড়। সাইক্লোনও চলবে, বৃষ্টিও চলবে।" ২৪ ঘণ্টা কন্ট্রোল রুম খোলা থাকছে এবং প্রতিনিয়ত পরিস্থিতি কোন দিকে এগোচ্ছে সেদিকে নজর রাখা হচ্ছে বলে জানান তিনি।

Published by:Swaralipi Dasgupta
First published: