লড়াকু মমতা, হাসপাতালের বেডে শুয়েই কর্মীদের জন্য জরুরি বার্তা! কী বললেন তিনি?

লড়াকু মমতা, হাসপাতালের বেডে শুয়েই কর্মীদের জন্য জরুরি বার্তা! কী বললেন তিনি?

মমতার বিশেষ বার্তা

'দিদি'র উপর 'হামলা'র অভিযোগে দিকে-দিকে বিক্ষোভও শুরু করেছেন দলীয় কর্মী-সমর্থকরা।

  • Share this:

    #কলকাতা: গুরুতর চোট পেয়েছেন মনোনয়নপত্র জমা দেওয়ার দিনই। পায়ে এখনও প্লাস্টার। ফের করা হতে পারে প্লাস্টার। ফলে কর্মীদের মধ্যেই গুঞ্জন, 'কবে প্রচারে ফিরবেন দিদি?' একইসঙ্গে 'দিদি'র উপর 'হামলা'র অভিযোগে দিকে-দিকে বিক্ষোভও শুরু করেছেন দলীয় কর্মী-সমর্থকরা। বিজেপির সঙ্গে সংঘর্ষ জড়িয়ে পড়ার ঘটনাও ঘটছে। এতে জনমানসে ভুল বার্তা ছড়াতে পারে বলেও আশঙ্কা দলীয় নেতৃত্বের। তাই এগিয়ে আসতে হল সেই দলনেত্রীকেই। হাসপাতালের বেড থেকেই দলীয় কর্মীদের উদ্দেশ্যে বার্তা দিলেন তিনি।

    কবে ভোট প্রচারে ফিরবেন মমতা, তা এখনও বলতে পারছেন না চিকিৎসকরা। কিন্তু মমতা মানেই যেন লড়াই। আর হাসপাতালের বেড থেকেও সেই লড়াইয়ের বার্তাই যেন দিতে চাইলেন তৃণমূল নেত্রী। জানিয়ে দিলেন, প্রয়োজনে হুইলচেয়ারে বসে সভা করবেন। নন্দীগ্রামের ঘটনার পর থেকেই উত্তপ্ত হয়ে উঠেছে রাজ্যের বিভিন্ন জায়গা। দিকে-দিকে বিক্ষোভে নেমেছেন তৃণমূল কর্মী-সমর্থকরা। এসএসকেএম-এর উডবার্ন ওয়ার্ডের কেবিন থেকে বুধবার রাতের ঘটনার পর নিজের শারীরিক অবস্থার কথা জানানোর পাশাপাশি দলীয় কর্মীদের উদ্দেশ্যে মমতা বলেন, 'সকলকে অনুরোধ করব শান্ত থাকুন, ভালো থাকুন। এমন কিছু করবেন না যাতে মানুষের অসুবিধে হয়।' চিকিৎসকরা কিছু না জানালেও খোদ মমতা বলেন, 'দু-তিনদিনেই ফিল্ডে ফিরতে পারব মনে হচ্ছে।' ওই ভিডিও বার্তার শুরুতেই মমতা বলেন, 'আমার কর্মী-ভাইবোন ও সাধারণ মানুষকে বলছি, আমার কাল খুব জোরে লেগেছিল। মাথায় ও বুকে খুব ব্যথা লেগেছে। বনেটের উপর দাঁড়িয়ে নমস্কার করছিলাম। তখন এমন জোরে চাপ আসে, আমার গাড়িটা চেপে যায় পায়ে। তখনই সঙ্গে যা ওষুধ ছিল, সেগুলি খেয়েই কলকাতায় রওনা হই। সকলকে অনুরোধ করব শান্ত থাকুন, ভালো থাকুন।'

    মমতা বলার আগেই অবশ্য দলের ট্যুইটার হ্যান্ডেল থেকেও একই বার্তা দেওয়া হয় দলীয় কর্মীদের উদ্দেশে। লেখা হয়, 'আমরা সকল দলীয় কর্মীদের উদ্দেশ্যে বলছি, সকলে আবেগ নিয়ন্ত্রণে রাখুন। আমরা আপনাদের অনুভূতি বুঝতে পারছি। মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের শারীরিক বিষয়ে সমস্ত আপডেট দেওয়া হবে। কিন্তু সকলে শান্তি বজায় রাখুন। এমন কিছু করবেন না, যাতে দিদিকে বিব্রত হতে হয়। তাঁর দ্রুত আরোগ্য কামনা করুন সকলে।' বিকেলে দলের নির্বাচনী কমিটির বৈঠক শেষেও একই আর্জি জানিয়েছেন দলের মহাসচিব পার্থ চট্টোপাধ্যায়।

    Published by:Suman Biswas
    First published: