corona virus btn
corona virus btn
Loading

‘যৌবন জাগো নতুন ভোরে’,শহিদ দিবসের উপলক্ষে গান বাঁধলেন তৃণমূল নেত্রী, সুর দিলেন দেবজ্যোতি বসু

‘যৌবন জাগো নতুন ভোরে’,শহিদ দিবসের উপলক্ষে গান বাঁধলেন তৃণমূল নেত্রী, সুর দিলেন দেবজ্যোতি বসু

শহিদ ১৩ তরতাজা প্রাণের সম্মানে শহিদ দিবসে সারাদিন বাজবে এই গান ৷

  • Share this:

#কলকাতা: একুশের আগে শেষ একুশ । ভিড়ে ঠাসা সভার বদলে ভার্চুয়াল জমায়েত । ২৬ বছরে পা রাখা একুশে জুলাই এবার রাজনীতি এবং আঙ্গিক দুই দিক থেকেই তাৎপর্যপূর্ণ । এক অন্যরকম শহিদ দিবস ৷ ফের কলম ধরলেন তৃণমূলনেত্রী মমতা বন্দ্যেপাধ্যায় ৷ দিনটিকে উৎসর্গ করে তিনি লিখেছেন একটি গান- ‘সকল বাধা ছিন্ন করে জাগে যৌবন নতুন সুরে’ ৷

দেবজ্যোতি বসুর সুরে সা রে গা মা পা -য় অংশ নেওয়া ১১ জন শিল্পী গেয়েছেন শহিদ দিবস উপলক্ষে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের লেখা এই গান ৷ কোরাসে গলা দিয়েছেন আরও ছয় জেলার শিল্পীরা ৷ রয়েছেন প্রতিভাবান খুদে শিল্পীরাও ৷ মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের এই গানে কঠিন সময়ের সঙ্গে লড়ে সমস্ত বাধা কাটিয়ে ফের জীবনে ফেরার বার্তা রয়েছে ৷ যা আমফান, করোনা বিধ্বস্ত বাংলাকে নতুন করে বাঁচার অনুপ্রেরণা দেবে বলেই মনে করছেন অনুরাগীরা ৷ দলীয় সূত্রে খবর, শহিদ ১৩ তরতাজা প্রাণের সম্মানে শহিদ দিবসে সারাদিন বাজবে এই গান ৷

করোনা সংক্রমণের আবহে একুশের ইতিহাসে এই প্রথম ভার্চুয়াল জমায়েতে মমতা। এবারের একুশ তাই বোধহয় অন্য বছরের চেয়ে আলাদা। রাজনৈতিক মূল্যের পাশাপাশি আয়োজনের বিন্যাসেও। ১৯৯৩-এর 'নো আইডেন্টিটি, নো ভোট' এই স্লোগানকে হাতিয়ার করে রাইটার্স অভিযান করে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের নেতৃত্বাধীন প্রদেশ যুব কংগ্রেস। পুলিশের গুলিতে প্রাণ হারান ১৩ জন তরতাজা যুবক। শহিদের স্মৃতি তর্পণে ১৯৯৪ থেকেই শুরু হয় একুশে জুলাইয়ের জনসমাবেশ । ২০১৩ সাল ছিল ব্যতিক্রম । ওই বছর বাদে প্রতি বছরই পালিত হয়েছে এই সমাবেশ ।

এ‌কনজরে দেখে নেওয়া যাক এবার তৃণমূলের কী কী কর্মসূচি একুশে জুলাইয়ের অনুষ্ঠানকে ঘিরে-

-বেলা সাড়ে এগারোটায় একুশে স্মারকে (বিড়লা তারামণ্ডলের পাশে) মাল্যদান করবেন ফিরহাদ হাকিম৷ -বেলা এগারোটায় ধর্মতলার শহিদ স্মৃতি বেদিতে মাল্যদান করবেন দলের রাজ্য সভাপতি সুব্রত বক্সী । -বেলা বারোটায় বুথে বুথে তোলা হবে দলীয় পতাকা । -বেলা একটায় প্রতি বিধানসভা কেন্দ্রে ভাষণ দেবেন স্থানীয় বিধায়করা। অঞ্চলে অঞ্চলে তাঁদের ভাষণ দিয়েই শুরু হবে একুশে জুলাই উদযাপন অনুষ্ঠান। -এর পর দুপুর দুটোয় ভাষণ দেবেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় । জায়েন্ট স্ক্রিনে দলনেত্রীর ভাষণ দেখানোর ব্যবস্থা করা হয়েছে দলের তরফে। এছাড়া ফেসবুক, ইউটিউব এবং দলের সব কটি অফিসিয়াল ফেসবুক পেজে এই ভাষণ শোনা যাবে ।

এবছর আরও একটি ব্যতিক্রম। ধারাবাহিকতা বজায় রেখেই আঙ্গিকে বড়সড় বদল৷ একুশে জুলাই ভার্চুয়াল প্ল্যাটফর্মেই দুপুর দুটোয় ভাষণ দেবেন দলনেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। করোনা, আমফানের জেরে রাজ্যের অনেক জায়গাই বিধ্বস্ত৷ সামনেই রাজ্যে নির্বাচন। আক্রমণের ঝাঁঝ বাড়াচ্ছে বিজেপি৷ এই পরিস্থিতিতে দলনেত্রীর রাজনৈতিক ভাষণের দিকে তাকিয়ে তৃণমূল। একদিকে নিজের দলের নেতা কর্মীদের বার্তা । অন্যদিকে বিরোধীদের অভিযোগের জবাব। দলনেত্রীর ভাষণে এই দুইয়েরই ইঙ্গিত পেতে চায় দল৷

Published by: Elina Datta
First published: July 21, 2020, 10:04 AM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर