corona virus btn
corona virus btn
Loading

লোক ঢোকাতে সুপারিশ করছেন বিধায়করা, অভিযোগ পেয়েই কড়া মমতা

লোক ঢোকাতে সুপারিশ করছেন বিধায়করা, অভিযোগ পেয়েই কড়া মমতা
মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়৷ PHOTO- FILE

এই অভিযোগ শুনেই রেগে যান মুখ্যমন্ত্রী৷ স্পষ্ট জানিয়ে দেন, এ বিষয়ে কোনও বিধায়ক, সাংসদ বা রাজনৈতিক নেতাদের সুপারিশকে আমল দেওয়ার প্রয়োজন নেই৷

  • Share this:

#কলকাতা: করোনা সংক্রমণের ধাক্কায় কর্মহীন হয়ে পড়েছেন ভিন রাজ্যে কাজ করতে যাওয়া বহু শ্রমিক৷ নিজেদের রাজ্যে ফিরে আসতে মরিয়া তাঁরা৷ লকডাউনের মধ্যেও কোনও বিধিনিষেধ না মেনেই নিজেদের রাজ্যে ফিরতে চাইছেন পরিযায়ী শ্রমিকরা৷ কেন্দ্রীয় সরকার ইতিমধ্যেই নির্দেশ দিয়েছে, সংক্রমণ ঠেকাতে কোনও শ্রমিককেই এক রাজ্য থেকে অন্য রাজ্যে যেতে দেওয়া হবে না৷ তাঁরা যে রাজ্যে আছেন, সেখানকার সরকাররাই তাঁদের দায়িত্ব নেবে৷ কেন্দ্রের নির্দেশে ইতিমধ্যে আন্তঃ রাজ্য সীমান্তগুলিও সিল করা হয়েছে৷

কিন্তু অভিযোগ সীমান্ত সিল হওয়ার পরেও বিভিন্ন চোরা পথ দিয়ে এক রাজ্য থেকে অন্য রাজ্যে ঢুকে পড়ছেন শ্রমিকরা৷ এ দিন নবান্নে করোনা পর্যালোচনা বৈঠকে এই বিষয়টি ওঠে৷

অভিযোগ, উত্তর দিনাজপুরে প্রায় দুশো শ্রমিক সীমান্ত সিল হওয়ার পরও ঢুকে পড়েছেন৷ বিষয়টি কানে আসতেই ভিডিও কনফারেন্সে জেলা পুলিশ সুপারকে ভর্ৎসনা করেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়৷ তখনই মুখ্যমন্ত্রীর কাছে অভিযোগ আসে, রাজ্যের বেশি কিছু বিধায়ক নিজেদের এলাকার শ্রমিকদের জেলায় ঢুকতে দেওয়ার জন্য সীমান্তবর্তী জেলার পুলিশ সুপারদের সুপারিশ করছেন৷

এই অভিযোগ শুনেই রেগে যান মুখ্যমন্ত্রী৷ স্পষ্ট জানিয়ে দেন, এ বিষয়ে কোনও বিধায়ক, সাংসদ বা রাজনৈতিক নেতাদের সুপারিশকে আমল দেওয়ার প্রয়োজন নেই৷ এর পরেও কোনও রাজনৈতিক নেতা বা জনপ্রতিনিধি এমন সুপারিশ করলে তাঁকে জানানোর জন্য বলেন মুখ্যমন্ত্রী৷

এ দিনের বৈঠক থেকেই রাজ্যের প্রতিটি জেলায় এক বা একাধিক বেসরকারি হাসপাতালে শুধুমাত্র করোনা আক্রান্তদের চিকিৎসার ব্যবস্থা করার জন্য জেলা প্রশাসনগুলিকে নির্দেশ দেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়৷ তিনি জানিয়েছেন, করোনা মোকাবিলায় কাজ করা বেসরকারি হাসপাতালের চিকিৎসক, নার্স, স্বাস্থ্যকর্মীরাও সরকারি হাসপাতালের চিকিৎসক বা স্বাস্থ্যকর্মীদের মতো সব সুযোগ সুবিধাই পাবেন৷ চিকিৎসক এবং স্বাস্থ্যকর্মীদের জন্য স্বাস্থ্যবিমার পরিমাণ বাড়িয়ে মাথাপিছু দশ লক্ষ করা হয়েছে৷ আগে তা ছিল ৫ লক্ষ৷

 
First published: March 30, 2020, 5:40 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर