Home /News /kolkata /

একবারই গায়ে চাপিয়েছিলেন ওকালতির গাউন, একুশে জুলাই মামলায় সওয়াল করেন খোদ মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়, মামলার হাল কী জানেন,  রইল বিস্তারিত    

একবারই গায়ে চাপিয়েছিলেন ওকালতির গাউন, একুশে জুলাই মামলায় সওয়াল করেন খোদ মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়, মামলার হাল কী জানেন,  রইল বিস্তারিত    

সূত্রের খবর, বিধানসভা নির্বাচনের লক্ষে এখনই দলের নেতাদের ঝাঁপিয়ে পড়ার নির্দেশ দিয়েছেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। সূত্রের খবর ভোটের ইশতেহার তৈরি জন্যও প্রস্তুতি নিতে বলেছেন তৃণমূল নেত্রী। PHOTO- FILE

সূত্রের খবর, বিধানসভা নির্বাচনের লক্ষে এখনই দলের নেতাদের ঝাঁপিয়ে পড়ার নির্দেশ দিয়েছেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। সূত্রের খবর ভোটের ইশতেহার তৈরি জন্যও প্রস্তুতি নিতে বলেছেন তৃণমূল নেত্রী। PHOTO- FILE

মামলার পর ২৭ বছর কেটে গেছে। আজও অধরা বিচার।

  • Share this:

#কলকাতা: রাজ্যের পালাবদলের নেপথ্যে বড় ভূমিকা  মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের মহাকরণ অভিযানের। ২১ জুলাই, এক আবেগের নাম। যুব কংগ্রেসের সেদিনের মহাকরণ অভিযান ঘিরে শহিদ হন ১৩ জন। যুব কর্মীদের বিরুদ্ধে মিথ্যা মামলায় ফাঁসানোর অভিযোগ ছিল খোদ মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের।  তাই নিজে আইনজীবী হওয়ায় সটান পৌঁছে যান ব্যাঙ্কশাল আদালতের।

৯ জুলাই আইনজীবী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় উকিলের কালো পোশাক পড়ে সওয়াল করেন ৬ নম্বর মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেটের এজলাসে। ২ টি পৃথক মামলায় অভিযুক্ত করা হয় ৪৩ জন যুব কর্মীকে। যাদের বিরুদ্ধে জামিন অযোগ্য ধারায় মামলাগুলি আজও বিচারাধীন।  মামলার পর ২৭ বছর কেটে গেছে। আজও অধরা বিচার।

৪৩ যুব কর্মীর বিরুদ্ধে ২ টি পৃথক মামলা হয়। পার্ক স্ট্রিট ও হেস্টিংস থানায়।ভারতীয় দণ্ডবিধির ১৪৮,১৪৯, ৩০৭,৩৩২,৪২৭,৪৩৫ ধারায়। পাশাপাশি বিস্ফোরক এবং অস্ত্র আইনে মামলা হয় যুব কর্মীদের বিরুদ্ধে। হেস্টিংস থানার মামলা এখনও বিচারাধীন ষষ্ঠ মেট্রোপলিটান ম্যাজিস্ট্রেটের বেঞ্চে এবং পার্ক স্ট্রিট থানার মামলাটি চলছে ১৭তম মেট্রো পলিটান ম্যাজিস্ট্রেট এজলাসে। ১৮-২০ জনের নাম-ঠিকানা সঠিক হওয়ায় তাদের সমন পাঠায় ব্যাঙ্কশাল আদালত। তাঁদের বিরুদ্ধে গ্রেফতারি পরোয়ানা জারি করে ব্যাঙ্কশাল আদালত। বাকি ২৩-২৫ জনের হদিশই দিতে পারেনি পুলিশ তাই মামলা এখনও চলেছে ঢিমেতালে। একুশে জুলাইয়ের ঘটনার ৫ বছর পর কলকাতা পুলিশ চার্জশিট দেয় আদালতে।  কিন্তু আজ পর্যন্ত  চার্জ ফ্রেম করা যায়নি।

সংগৃহীত ছবি সংগৃহীত ছবি

টানা ২৭ বছর মামলার সঙ্গে যুক্ত আইনজীবী অলোককুমার দাস। অলোককুমার দাসের কথায়,"একই ঘটনায়, একই সময়ে দুই পৃথক থানায় কীভাবে অভিযুক্তরা উপস্থিত থাকতে পারেন তার সদুত্তর খুঁজে বের করতে পারেনি পুলিশ। রাজনৈতিক উদ্দেশ্যে করা মামলা খারিজ করার আবেদন করেছি বারবার।" চলতি বছরের ৭ এপ্রিল ও ২১ এপ্রিল মামলা দুটির শুনানির দিন ছিল। লকডাউনের কারণে স্বাভাবিক ভাবেই তা পিছিয়ে গেছে। করোনা আবহে এখনই শুনানির সম্ভাবনা কম ।

Arnab Hazra

Published by:Elina Datta
First published:

Tags: Mamata Banerjee, TMC

পরবর্তী খবর