• Home
  • »
  • News
  • »
  • kolkata
  • »
  • Mamata Banerjee GTA Election| মমতার মুখে জিটিএ ভোট, কেন এই ইঙ্গিত দিলেন? অঙ্ক কষছে বিজেপি

Mamata Banerjee GTA Election| মমতার মুখে জিটিএ ভোট, কেন এই ইঙ্গিত দিলেন? অঙ্ক কষছে বিজেপি

মমতার নজরে এবার পাহাড় সমস্য়ার স্থায়ী সমাধান।

মমতার নজরে এবার পাহাড় সমস্য়ার স্থায়ী সমাধান।

Mamata Banerjee GTA Election| হঠাৎ কেন এই তৎপরতা মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের? স্বভাবতই নানা মুনির নানা মত।

  • Share this:

#কলকাতা: উত্তরের মন পেতে বলটা নিজের হাতে না রেখে তিনি উল্টোদিকেই বাড়িয়ে দিলেন। হ্যাঁ, পরিস্থিতি ঠিকঠাক হলেই পাহাড়ের জিটিএ নির্বাচন হবে বলে জানিয়ে দিলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় (Mamata Banerjee GTA Election )। এর জন্য অবশ্য ভোটার তালিকা প্রকাশ এবং সংবিধান সংশোধনের জন্য অপেক্ষা করবেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। কিন্তু প্রশ্ন হল, হঠাৎ কেন এই তৎপরতা মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের? স্বভাবতই নানা মুনির নানা মত।

একাংশ বলছে, ভোটে জেতা হয়ে গিয়েছে। এখন সময় ফাঁক-ফোকর যেটুকু যা আছে তা প্রশাসনিক ভাবে মেরামত করার। আর সে কারণেই দার্জিলিংয়ের দীর্ঘস্থায়ী সমস্যা জিইয়ে না রেখে তাঁর একটি স্থায়ী সমাধান চান মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় ((Mamata Banerjee GTA Election )।

পক্ষান্তরে অবশ্য এই অভীপ্সার রাজনৈতিক ব্যাখ্যাও রয়েছে। মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের দলের যদি কিছুমাত্র দুর্বলতা থাকে, ঘুরিয়ে বললে বিজেপির যদি কোনও ঠাঁই এই বাংলায় থেকে থাকে তবে তাও উত্তরবঙ্গেই। সেখানে বিজেপি যে বিভাজনের রাজনীতি করছে তা রুখতে নিজের সক্রিয় উপস্থিতিই যে পাল্টা দাওয়াই তা জানেন মমতা। সেই কারণে ভরকেন্দ্র নবান্ন থেকে উত্তরকন্যয় ঘোরাতে তিনি সময় নিচ্ছেন না। আবার এ কথাও ঠিক, রাজনীতির ময়দানে তৃণমূল নেত্রী অবশ্যই চাইবেন  বিজেপিকে কোথাও ওয়াকওভার না দিতে।

আরও পড়ুন-সরকারে অনাস্থা জানিয়ে পেগাসাস তদন্তে কমিটি গড়ল সুপ্রিম কোর্ট

কিন্তু এই কাজটা তিনি করছেন অনেকটা বামেদের পুরনো ধাঁচায়, দল এবং প্রশাসনকে যেন মেলাতে চাইছেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। অর্থাৎ সরাসরি পতাকা ধরে নয় বরং প্রশাসনিক ভিত্তিপ্রস্থর স্থাপন করে উন্নয়নের মাধ্যমে পাহাড়বাসীর মনে স্থায়ী দাগ রাখতে চাইছেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। আর সেই কারণেই জিটিএ ভোটের পরিকল্পনা বলা চলে। বলা চলে এটা তাঁর গণতান্ত্রিক ভাবেই পার্মানেন্ট সলিউশনের ভাবনা।  স্থায়ী সমাধান আসতে পারে জিটিএ নির্বাচনের মাধ্যমে, পাহাড়ে ঠাঁইও পাকা হতে পারে, মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের ভাবনা খানিকটা যেন এমনই।

আরও পড়ুন-১৯টি গাড়ি বোঝাই ফেরি ডুবে গেল পদ্মায়! প্রবল উৎকণ্ঠা বাংলাদেশে

রাজনৈতিক বেত্তারা বলছেন, পুরভোটকেও মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় মাথায় রাখছেন। ২০২১ বিধানসভা ফলের বিচারে উত্তরবঙ্গের ২২ টি পুরসভা ও শিলিগুড়ি কর্পোরেশনে বিজেপি ২০ টিতে এগিয়ে । আর, ২০১৮ ও ২০ তে মেয়াদ উর্ত্তীর্ন ৬ + ১২ = ১৮ টি পুরসভা ও শিলিগুড়ি কর্পোরেশনের মধ্যে ১৬ টিতে বিজেপি এগিয়ে । একমাত্র কোচবিহারের মেখলিগঞ্জ ( ১১৬ ভোটে এগিয়ে তৃণমূল)ও উত্তর দিনাজপুরের ডালখোলা ( ১৬৬৫ ভোটে এগিয়ে তৃণমূল)।  মিরিক ৫৯৩ ও মাল ৬০৭ ভোটে বিজেপি এগিয়ে (মার্জিন নেক টু নেক)। অবশ্য ভোটের পরে দলবদলের যে হাওয়া, তাতে এই অঙ্কেও নানা বদল আসবে তা স্বাভাবিক, তবে বিজেপি একদম হাত তুলে দেবে না, বিনাযুদ্ধে মেদিনী না দেওয়ার আস্ফালন দেখাবেনই শুভেন্দুরা তা মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় জানেন। সে কারণেই প্রশাসনিক উন্নয়নমূলক কর্মকাণ্ডে জোর দিচ্ছেন তিনি।

কেন এখন ভোট এর কথা বলছেন মমতা, এই প্রশ্নের উত্তরে বিজেপি নেতা শমীক ভট্টাচার্য বলছেন, তৃণমূল দখলদারি সংস্কৃতিতে অভ্যস্ত। ফলে, যখন ভোট করলে তৃণমূলের সুবিধা তখন তারা ভোট করে। "  তার মানে কার্যত বিজেপি মেনে নিচ্ছে এখন ভোট করলে রাজনৈতিক ভাবে লাভ বা সুবিধা তৃণমূলের। এবং বিজেপি ভাবছে  আটকে থাকা মমতা বন্দ্যোপাধ্য়ায়ের উত্তরবঙ্গ সফরটা সব দিক বিবেচনা করেই পরিকল্পিত।

Published by:Arka Deb
First published: