সিলেবাস পশ্চিমবঙ্গ, ১৫ ফ্রেব্রুয়ারীর মধ্যে প্রথম রিভিশন শেষ করার নির্দেশ মমতা বন্দোপাধ্যায়ের 

সোমবার থেকে ভোট প্রচারে দেব-নুসরাত-মিমি-শতাব্দী

সোমবার থেকে ভোট প্রচারে দেব-নুসরাত-মিমি-শতাব্দী

  • Share this:

#কলকাতা: নির্বাচন একটা পরীক্ষা। এই পরীক্ষায় সফল হতে এবার হোম টাস্ক বেঁধে দিল তৃণমূল কংগ্রেস। দলের গুরুত্বপূর্ণ নেতাদের নিয়ে বৈঠকে মমতা বন্দোপাধ্যায় জানিয়ে দিয়েছেন সকলকে রুটিন মেনেই পড়াশোনা এক্ষেত্রে দলের কাজ করতে হবে। ভোট কুশলী প্রশান্ত কিশোরের টিম দলের সঙ্গে থেকে বানিয়ে দেবে রুটিন। যার ওপর কড়া নজরদারি থাকবে প্রশান্ত কিশোরের সংস্থার।

এবারের ভোটে তৃণমূলের গুরুত্বপূর্ণ নেতাদের সঙ্গে আলাপচারিতায় মমতা বন্দোপাধ্যায় মনে করিয়ে দিয়েছেন এবারের সিলেবাস পশ্চিমবঙ্গ, গোটা রাজ্য। আর সেই সিলেবাস সকলকে শেষ করতে হবে গোটা ভোট প্রক্রিয়া জুড়ে। শুক্রবার বিকেলে যে সমস্ত নেতাদের নিয়ে ভোটের কৌশল নির্ধারণের বৈঠক করেন মমতা বন্দোপাধ্যায় সেখানেই নেতা-নেত্রীদের মনে করিয়ে দেওয়া হয়েছে, সকলকে ভোট চলাকালীন মাসের ১০ দিন করে সময় দিতে হবে। দলের তরফ থেকে সেই সময় বেঁধে দেওয়া হবে। অর্থাৎ রুটিন তৈরি করে দেবে দল। সেই রুটিন মেনেই করতে হবে দলের কাজ। দলনেত্রী তার বৈঠকে একথা মনে করিয়ে দিয়েছেন। নন্দীগ্রাম বিধানসভা কেন্দ্র যেখানে খোদ দলনেত্রী মমতা বন্দোপাধ্যায় ভোটে লড়বেন বলে জানিয়েছেন। সেই কেন্দ্রের জন্যে বিশেষ প্রচার টিম তৈরি করা হয়েছে।

এবার ভোটের প্রচারে গোটা রাজ্য জুড়েই বিশেষ নজর দিচ্ছে তৃণমূল কংগ্রেস। আর ১লা ফ্রেব্রুয়ারি থেকে সেই বিশেষ প্রচারে বাছাই করা হচ্ছে তারকা সাংসদদের। মিমি-নুসরাত-দেব-শতাব্দী সহ একাধিক তারকা মুখকে ভোটের প্রচারে ব্যবহার করছে দল। তাদের হেড দিদিমণির মতো টাস্ক দিয়েছেন মমতা বন্দোপাধ্যায়। আগামী মাসের প্রথম দিন থেকেই তারা বিভিন্ন জায়গায় প্রচারে যাবে। আগামী ১৫ ফ্রেব্রুয়ারি পর্যন্ত তাঁরা তাঁদের প্রচার চালিয়ে যাবেন। উত্তর ও দক্ষিণবঙ্গের বিভিন্ন বিধানসভা কেন্দ্রে প্রচার চালিয়ে যাবেন তারা। যেটাকে কার্যত বলা হচ্ছে সিলেবাসের প্রথম রিভিশন হিসাবে। তবে কোর কমিটির প্রত্যেক সদস্যকেই বলা হয়েছে এই কাজ আগামী মাসের প্রথম ১৫ দিন করার জন্যে। তবে এই প্রচারে পিছিয়ে নেই সুজাতা খান। তাকে জঙ্গলমহলে বিশেষ দায়িত্ব দেওয়া হয়েছে।

Published by:Ananya Chakraborty
First published: