Mamata on letter to Modi:সৌজন্য দেখিয়েই প্রধানমন্ত্রীকে চিঠি, এটা ধারাবাহিক প্রক্রিয়া: মমতা

প্রধানমন্ত্রীকে চিঠি দিয়ে মুখ্যসচিবের বদলির নির্দেশ প্রত্যাহারের আর্জি জানিয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী৷

আলাপন বন্দ্যোপাধ্যায়ের (Alapan Bandopadhyay) বদলির নির্দেশ প্রত্যাহার করার আবেদন জানিয়ে এ দিনই প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদিকে (Narendra Modi) চিঠি দিয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়(Mamata Banerjee)৷

  • Share this:

#কলকাতা: কেন্দ্রীয় সরকার প্রথমে চিঠি দিয়ে মুখ্যসচিবের বদলির নির্দেশ দিয়েছিল৷ তাই সৌজন্যবশতই রাজ্যের তরফে সেই চিঠিরর জবাব দিয়েছেন তিনি৷ আলাপন বন্দ্যোপাধ্যায়ের বদলির নির্দেশ প্রত্যাহার করার আবেদন জানিয়ে এ দিনই প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদিকে চিঠি দিয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়৷ সেই চিঠির প্রসঙ্গে প্রশ্ন করা হলে এ দিন নবান্নে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় বলেন, সৌজন্য দেখিয়েই প্রধানমন্ত্রীকে চিঠি লিখেছেন তিনি৷

প্রসঙ্গত গত ২৮ মে রাতে রাজ্যের মুখ্যসচিবকে বদলির নির্দেশ পাঠিয়েছিল কেন্দ্রীয় সরকার৷ মুখ্যমন্ত্রী এর আগে অভিযোগ করেছিলেন, রাজ্যের সঙ্গে কোনওরকম আলোচনা না করেই মুখ্যসচিবকে বদলির নির্দেশ দিয়েছে কেন্দ্র৷ এ দিন অবশ্য প্রধানমন্ত্রীকে পাঠানো চিঠি প্রসঙ্গে মুখ্যমন্ত্রীর সুর অনেকটাই নরম ছিল৷ মুখ্যমন্ত্রী বলেন, 'কেন্দ্রের থেকে প্রথমে আমরা চিঠি পেয়েছি৷ তাই সৌজন্যবশতই তার জবাব দিয়েছি৷ উন্নয়নমূলক কাজ, সাংবিধানিক দায়বদ্ধতা থেকেই কেন্দ্র- রাজ্য যোগাযোগ রেখে চলে৷ কেন্দ্র- রাজ্যের মধ্যে এটা একটা ধারাবাহিক প্রক্রিয়া৷'

তবে মুখ্যমন্ত্রী জানিয়েছেন, এ প্রসঙ্গে এখনও কেন্দ্রের তরফে এই বিষয়ে কোনও জবাব দেওয়া হয়নি৷ আলাপন বাবু মুখ্যসচিব পদে কাজ চালিয়ে যাবেন কি না, সেই প্রশ্নের উত্তরও তিনি যথাসময়ে দেবেন বলে জানিয়েছেন মমতা৷

এ দিন মুখ্যমন্ত্রী প্রধানমন্ত্রীকে চিঠি লিখে দাবি করেন, রাজ্যের করোনা পরিস্থিতি এবং ঘূর্ণিঝড় পরবর্তী পুনর্গঠন ও ত্রাণের কাজের জন্য রাজ্যের আলাপনবাবুকে খুবই প্রয়োজন৷ ফলে তাঁর দিল্লিতে বদলির নির্দেশ প্রত্যাহার করা হোক৷ পাশাপাশি তিনি আরও প্রশ্ন তোলেন, কেন্দ্রই যেখানে গত ২৪ মে আলাপন বন্দ্যোপাধ্যায়কে মুখ্যসচিব পদে আরও তিন মাস কাজ চালিয়ে যাওয়ার অনুমতি দিয়েছিল, সেখানে কীসের ভিত্তিতে মাত্র চার দিনের মধ্যে তাঁকে দিল্লিতে বদলির নির্দেশ দেওয়া হল? কোনও অবস্থাতেই যে রাজ্য সরকার আলাপন বন্দ্যোপাধ্যায়কে ছাড়তে পারবে না, তাও স্পষ্ট করে বুঝিয়ে দেন মুখ্যমন্ত্রী৷

এ দিনই আলাপন বন্দ্যোপাধ্যায়কে দিল্লি গিয়ে কেন্দ্রীয় কর্মিবর্গ ও প্রশিক্ষণ দফতরে যোগ দেওয়ার নির্দেশ দেওয়া হয়েছিল৷ মুখ্যসচিব অবশ্য এ দিন দিল্লি যাননি৷ আজই আলাপন বন্দ্যোপাধ্যায়ের অবসর নেওয়ার কথা ছিল৷ রাজের অনুরোধেই মুখ্যসচিব পদে আরও তিন মাস তাঁকে কাজ চালিয়ে যাওয়ার অনুমতি দিয়েছিল কেন্দ্রীয় সরকার৷

Somraj Bandopadhyay

Published by:Debamoy Ghosh
First published: