কলকাতা

corona virus btn
corona virus btn
Loading

স্বাস্থ্য সাথী প্রকল্পের আওতায় রাজ্যের সব পরিবার, বড় ঘোষণা করলেন মুখ্যমন্ত্রী

স্বাস্থ্য সাথী প্রকল্পের আওতায় রাজ্যের সব পরিবার, বড় ঘোষণা করলেন মুখ্যমন্ত্রী
মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়৷ Photo-File

স্বাস্থ্য সাথীর স্মার্ট কার্ড দেখালে বেসরকারি হাসপাতালেও ক্যাশলেস চিকিৎসা পরিষেবা পাওয়া যাবে৷

  • Share this:

#কলকাতা: রাজ্যে বিধানসভা নির্বাচনের আগে বড় ঘোষণা করলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়৷ এবার থেকে রাজ্যের সব পরিবারকে স্বাস্থ্য সাথী প্রকল্পের অন্তর্ভুক্ত করা হচ্ছে৷ তবে অন্য কোনও সরকারি স্বাস্থ্য পরিষেবার আওতায় থাকলে এই সুবিধে পাওয়া যাবে না বলে জানিয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী৷ আগামী ১ ডিসেম্বর থেকে এই ঘোষণা কার্যকর করা হবে৷

মুখ্যমন্ত্রী জানিয়েছেন, ইতিমধ্যেই রাজ্যের সাড়ে সাত কোটি মানুষ এই প্রকল্পের আওতায় আছেন৷ রাজ্যের আরও আড়াই কোটি মানুষকে স্বাস্থ্য সাথী প্রকল্পের আওতায় আনার লক্ষ্যমাত্রা নেওয়া হয়েছে৷ রাজ্যের প্রতিটি পরিবারকেই স্বাস্থ্য সাথীর স্মার্ট কার্ড দেওয়া হবে৷ স্বাস্থ্য সাথীর স্মার্ট কার্ড দেখালে বেসরকারি হাসপাতালেও ক্যাশলেস চিকিৎসা পরিষেবা পাওয়া যাবে৷ প্রতি বছর পরিবার পিছু পাঁচ লক্ষ টাকা পর্যন্ত ক্যাশলেস চিকিৎসার সুযোগ পাওয়া যাবে এই প্রকল্পে৷

স্মার্ট কার্ডের মধ্যে পরিবারের প্রত্যেকের নাম থাকবে৷ ১ ডিসেম্বর থেকে দুয়ারে দুয়ারে সরকার প্রকল্প শুরু হলে স্বাস্থ্য সাথী কার্ডের জন্য নাম নথিভুক্ত করা যাবে৷ মুখ্যমন্ত্রী আরও বলেন, 'প্রায় দেড় হাজার হাসপাতাল স্বাস্থ্য সাথী প্রকল্পের আওতায় নথিভুক্ত আছে৷ সরকারি হাসপাতালে তো বিনা পয়সাতেই চিকিৎসা হয়, বেসরকারি হাসপাতালেও বিনা পয়সায় চিকিৎসার সুযোগ পাওয়া যাবে৷ পাশাপাশি ভেলোরের হাসপাতালগুলি, এইমস-এর মতো হাসপাতালেও এই কার্ডের সুবিধে পাওয়া যাবে৷'

পরিবারের প্রধান মহিলা সদস্যের নামে এই স্মার্টকার্ড দেওয়া হবে৷ এর ফলে মহিলাদের ক্ষমতায়ণও হবে বলে জানিয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী৷

মুখ্যমন্ত্রী জানিয়েছেন, এই পরিষেবা দিতে প্রতি বছর রাজ্যের ২০০০ কোটি টাকা ব্যয় হবে৷ তিনি বলেন, 'এই পরিষেবা আমাদের রাজ্যে সামাজিক সুরক্ষায় নতুন মুকুট যুক্ত করল৷ সরকার যখন দু' মাস ধরে দুয়ারে দুয়ারে ক্যাম্প করবে তখন একদিন গিয়ে নাম লিখিয়ে আসুন৷ যেদিন কার্ড নিয়ে আসতে বলবে গিয়ে নিয়ে আসবেন৷' সমাজের সবস্তরের মানুষই স্বাস্থ্য সাথী প্রকল্পের সুবিধে পাবে৷ রাজ্য সরকারের এই প্রকল্প গোটা বিশ্বেই নজির সৃষ্টি করেছে বলেও দাবি করেছেন মুখ্যমন্ত্রী৷ তিনি দাবি করেন, আয়ুষ্মান ভারত প্রকল্পে ষাট শতাংশ টাকা দিচ্ছে কেন্দ্রীয় সরকার৷ তাঁর প্রশ্ন, বাকি চল্লিশ শতাংশ টাকা কি জনগণ দেবে?

Published by: Debamoy Ghosh
First published: November 26, 2020, 5:03 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर