Mamata Banerjee Call Party Meeting: ত্রাণ নিয়ে আর বিড়ম্বনা বরদাস্ত নয়, দলের নেতাদের বৈঠকে ডাকলেন 'দিদি'!

মমতার বার্তা

Mamata Banerjee Call Party Meeting: সকলেই নিজের ত্রাণ যেমন দুয়ারে পাবেন, তেমনি ক্ষতিপূরণের জন্য নিজেরাই আবেদন করবেন। আর এ ক্ষেত্রে দলের তরফে যাতে আর কোনও দুর্নীতির অভিযোগ না ওঠে, সেই বার্তাই এবার দলে কঠোরভাবে জানিয়ে দিতে চলেছেন তৃণমূল নেত্রী।

  • Share this:

    #কলকাতা: আমফান (Cyclone Amphan) থেকে 'শিক্ষা' নিয়ে নিয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় (Mamata Banerjee)। তাই ইয়াসের (Cyclone Yaas) ক্ষেত্রে আর সেই দলীয় 'ভুলের' পুনরাবৃত্তি চান না তিনি। তাই ইয়াসের ক্ষতিপূরণ ও ত্রাণ বণ্টনের রাশ দল নয়, সম্পূর্ণরূপে প্রশাসনের হাতে রাখছেন তিনি। এদিনই একদিকে যেমন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির (Narendra Modi) সঙ্গে দেখা করে রাজ্যের জন্য ২০ হাজার কোটি টাকার প্যাকেজ দাবি করেছেন মুখ্যমন্ত্রী, অপরদিকে নবান্ন থেকে জানিয়ে দেওয়া হয়েছে কোন খাতে কত করে ক্ষতিপূরণ দেওয়া হবে। আর আগেই মমতা জানিয়েছেন, এবার হবে 'দুয়ারে ত্রাণ'। সকলেই নিজের ত্রাণ যেমন দুয়ারে পাবেন, তেমনি ক্ষতিপূরণের জন্য নিজেরাই আবেদন করবেন। আর এ ক্ষেত্রে দলের তরফে যাতে আর কোনও দুর্নীতির অভিযোগ না ওঠে, সেই বার্তাই এবার দলে কঠোরভাবে জানিয়ে দিতে চলেছেন তৃণমূল নেত্রী।

    সূত্রের খবর, আগামী ৫ জুন তৃণমূল ভবনে বৈঠক ডেকেছেন মমতা। দলের সমস্ত সাংগঠনিক নেতাদের সেই বৈঠকে ডেকেছেন তিনি। রাজ্য এবারের ভোট প্রচারে 'দুয়ারে রেশন'-এর প্রতিশ্রুতি দিয়েছিলেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। ইতিমধ্যেই সেই কাজ শুরু হয়ে গিয়েছে। কিন্তু আমফানের সময় ত্রাণ নিয়ে রাজ্যের বিভিন্ন প্রান্ত থেকে তৃণমূল নেতাদের বিরুদ্ধে ত্রাণ দুর্নীতির ভুড়িভুড়ি অভিযোগ উঠেছিল। যা ভোটের প্রচারে ব্যাপক হারে ব্যবহার করেছিল BJP। তাই এবার ইয়াসে সেই অভিযোগের পুনরাবৃত্তি চান না মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। তাই ‘দুয়ারে সরকার’, তারপর 'দুয়ারে রেশন'-এর আদলে এবার ‘দুয়ারে ত্রাণ’ বিলি করার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী।

    আগামী ৩ জুন থেকে শুরু হবে দুয়ারে ত্রাণ প্রকল্প। ৩ জুন থেকে ১৮ জুন পর্যন্ত হবে আবেদনপত্র জমা নেওয়ার কাজ। ১৯ জুন থেকে ৩১ জুন পর্যন্ত সব আবেদনপত্র খতিয়ে দেখা হবে। ১ জুলাই থেকে ৭ জুলাই পর্যন্ত ক্ষতিগ্রস্তদের সরাসরি ব্যাংকে টাকা দেওয়া হবে। পুরোপুরিভাবে ভেঙে পড়া বাড়ি ঠিক করতে ক্ষতিগ্রস্তদের কুড়ি হাজার টাকা এবং আংশিক ক্ষতিগ্রস্তদের ৫ হাজার টাকা করে দেওয়া হবে। শস্য নষ্ট হবার জন্য ক্ষতিগ্রস্ত চাষিরা ন্যূনতম এক হাজার টাকা এবং সর্বোচ্চ আড়াই হাজার টাকা করে পাবেন। মহিষ কিংবা গরুর মৃত্যুর ক্ষতিপূরণ বাবদ ত্রিশ হাজার টাকা, ছাগল ভেড়া মারা গেলে বা ভেসে গেলে ৩হাজার টাকা, বাছুরের জন্য ১৬০০০ টাকা আর্থিক সাহায্য দেওয়া হবে। পাঁচ হাজার টাকা করে ক্ষতিপূরণ দেওয়া হবে পানচাষিদের। মৎস্যজীবীদের পুরোপুরি ভাবে ক্ষতিগ্রস্ত নৌকা মেরামতি করতে পাঁচ হাজার টাকা, আংশিক ক্ষতিগ্রস্ত নৌকা ঠিক করতে পাঁচশো টাকা, জাল কেনা বাবদ ২৬০০ টাকা করে দেবে। তাঁতের সরঞ্জাম মেরামত যন্ত্রপাতি কেনার জন্য ৪১০০ টাকা, গুদাম ক্ষতিগ্রস্ত হলে ১০ হাজার টাকা আর্থিক সাহায্য দেওয়া হবে।

    Published by:Suman Biswas
    First published: