কলকাতা থেকে গ্রেফতার আন্তর্জাতিক কিডনি পাচার চক্রের মূল পাণ্ডা

কলকাতা থেকে গ্রেফতার আন্তর্জাতিক কিডনি পাচার চক্রের মূল পাণ্ডা

নয়াদিল্লির হাসপাতাল হয়ে ভারত সহ ৭টি দেশে ছড়িয়ে পড়েছিল আন্তর্জাতিক কিডনি পাচার চক্র। কলকাতা থেকে গ্রেফতার হল সেই কিডনি পাচার চক্রের মূল চক্রী টি রাজকুমার রাওকে।

  • Share this:

#কলকাতা: নয়াদিল্লির হাসপাতাল হয়ে ভারত সহ ৭টি দেশে ছড়িয়ে পড়েছিল আন্তর্জাতিক কিডনি পাচার চক্র। কলকাতা থেকে গ্রেফতার হল সেই কিডনি পাচার চক্রের মূল চক্রী টি রাজকুমার রাওকে। কলকাতা ও দিল্লি পুলিশের যৌথ উদ্যোগে গ্রেফতার করা হয় রাজকুমার রাওকে। রাতেই তার শারীরিক পরীক্ষা করানো হয়। বুধবার বারাসত আদালতে ট্রানজিট রিমান্ডের আবেদন জানাবে দিল্লি পুলিশ।

নেপাল, শ্রীলঙ্কা ও ইন্দোনেশিয়ায় কিডনি পাচারের চক্র। ইতিমধ্যেই দেশের বিভিন্ন প্রান্ত থেকে পাঁচ ডোনার ও চক্রের ৩ সদস্যকে গ্রেফতার করা হয়েছে। তাদের সূত্রেই খোঁজ মেলে টি রাজকুমার রাওয়ের খোঁজ । এরপর মঙ্গলবার কলকাতা পুলিশ ও রাজারহাট থানার পুলিশের সাহায্য নিয়ে অভিযান। রাজারহাটের খামা এলাকায় পুলিশের জালে কিডনি পাচার চক্রের মূল পাণ্ডা টি রাজকুমার রাও।

কে এই রাজকুমার রাও? পুলিশ সূত্রে খবর, কিডনি চক্রের পাণ্ডা রাজকুমারের জন্ম হায়দরাবাদের পাঞ্জাগুট্টায় ৷ চেন্নাইয়ে এক চিকিৎসকের সঙ্গে কিডনি পাচারে হাত পাকায় ৷ চেন্নাইয়ে বেশ কিছুদিন জেলও খেটেছে রাজকুমার ৷ এরপর দিল্লিতে শুরু ব্যবসা ৷ ৪-৫ বছর আগে রাজারহাট এলাকায় আস্তানা ৷

প্রথমে ভাড়া বাড়িতে থাকত ৷ ধীরে ধীরে রাজারহাটে দু'টি বাড়ি তৈরি করে ফেলে ৷

vlcsnap-2016-06-08-12h33m53s111

Loading...

রাজারহাট থেকেই গোটা চক্রের নিয়ন্ত্রণ করত রাজকুমার। কীভাবে চলত ব্যবসা, তারও ইঙ্গিত মিলেছে পুলিশ সূত্রে। মোটা টাকার লোভ দেখিয়ে নিয়ে যাওয়া হত দিল্লিতে ৷ দিল্লি ও কোয়েম্বাটোরের বেসরকারি হাসপাতালে হত কিডনির অপারেশন ৷ তারপর নেপাল, শ্রীলঙ্কা বা ইন্দোনেশিয়ায় ট্রান্সপ্লান্ট ৷

কিডনি দাতা পেত ৩ থেকে ৫ লক্ষ টাকা ৷ সেই কিডিনি বিক্রি হত ২৫ থেকে ৪০ লক্ষ টাকায় ৷

রাতেই রাজকুমারকে নিয়ে যাওয়া হয় রাজারহাটের রেকজোয়ানি হাসপাতালে। সেখানেই তার মেডিক্যাল পরীক্ষা করানো হয়। রাজকুমারের বিরুদ্ধে ৪১৯, ৪২০, ৪৬৮, ৪৭১, ১২০বি ধারায় মামলা রুজু হয়েছে রাজারহাট থানায়। ট্রানজিট রিমান্ডে দিল্লি নিয়ে যাওয়া হবে তাকে। ওই দুটি হাসপাতালের কর্মী ও অন্যান্য ধৃতদের মুখোমুখি বসিয়ে জেরা করবে পুলিশ। পাশাপাশি কিডনি চক্রের অন্য সূত্রের সন্ধানে রাজারহাটে রাজকুমারের দু'টি বাড়িতেই তল্লাশি চালাতে পারে পুলিশ।

First published: 12:38:28 PM Jun 08, 2016
পুরো খবর পড়ুন
Loading...
अगली ख़बर