কলকাতা

corona virus btn
corona virus btn
Loading

কবে মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক পরীক্ষা? এবার অন্য রাজ্যগুলির বোর্ড পরীক্ষাগুলির সময়সীমার উপর নজর রাজ্যের

কবে মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক পরীক্ষা? এবার অন্য রাজ্যগুলির বোর্ড পরীক্ষাগুলির সময়সীমার উপর নজর রাজ্যের
Photo: Collected

মাধ্যমিক এবং উচ্চমাধ্যমিক পরীক্ষার সিলেবাস কি হবে সে বিষয়ে এখনও পর্যন্ত চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত হয়নি।

  • Share this:

#কলকাতা: এবার কি তাহলে মাধ্যমিক এবং উচ্চমাধ্যমিক পরীক্ষার সময় সীমা ঠিক হবে অন্য রাজ্যগুলির বোর্ড পরীক্ষার দিন ঠিকের পরেই? অন্তত মঙ্গলবারের স্কুল শিক্ষা সচিবের বৈঠকের পর এমন সম্ভাবনা জোরালো হচ্ছে। এদিন ফের মধ্যশিক্ষা পর্ষদ ও উচ্চমাধ্যমিক শিক্ষা সংসদের সভাপতিদের সঙ্গে ভার্চুয়ালি বৈঠক করেন স্কুল শিক্ষা সচিব মনীশ জৈন।

বৈঠকে কবে থেকে মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক পরীক্ষা নেওয়া যেতে পারে সেই বিষয়ে আবার মতামত নেওয়ার চেষ্টা করেন স্কুল শিক্ষা সচিব। সূত্রের খবর এই বৈঠকেই স্কুল শিক্ষা সচিবের তরফের মধ্যশিক্ষা পর্ষদ ও উচ্চমাধ্যমিক শিক্ষা সংসদকে বার্তা দেওয়া হয় অন্য রাজ্যগুলির বোর্ড পরীক্ষার জন্য নির্দিষ্ট সময় হয় তাহলে এ রাজ্যে ফেব্রুয়ারি-মার্চ মাসেই মাধ্যমিক-উচ্চমাধ্যমিক হতে পারে। যদিও এই বিষয়ে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ই নেবেন। তবে অন্য রাজ্যগুলির বোর্ড পরীক্ষা পিছিয়ে দেয় তাহলে এ রাজ্যে বোর্ড পরীক্ষা পিছানো হবে বলেও একপ্রকার জানিয়েছেন মধ্যশিক্ষা পর্ষদ, উচ্চ মাধ্যমিক শিক্ষা সংসদ-কে বলেই সূত্রের খবর। যদিও এই বিষয় নিয়ে দুই বোর্ডের কোনও আধিকারিকই কোনও মন্তব্য করতে চাননি।

মাধ্যমিক এবং উচ্চমাধ্যমিক পরীক্ষার সিলেবাস কি হবে সে বিষয়ে এখনও পর্যন্ত চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত হয়নি। ইতিমধ্যেই মাধ্যমিক পরীক্ষায় ২০ থেকে ২৫ শতাংশ সিলেবাস কাটছাঁট এবং উচ্চ মাধ্যমিক পরীক্ষায় ৩০ থেকে ৩৫ শতাংশ সিলেবাস কাটছাঁটের প্রস্তাব পাঠানো হয়েছে। যদিও সেই প্রস্তাব মুখ্যমন্ত্রীর দফতরে পৌঁছে গিয়েছে বলেই সূত্রের খবর। মূলত দুই পরীক্ষাতেই গত বছর যে সমস্ত অধ্যায় থেকে পরীক্ষার প্রশ্ন এসেছিল, সেই অধ্যায় বা বিশেষ কিছু অংশও বাদ দেওয়ার প্রস্তাব গিয়েছে বলে জানা গিয়েছে। যদিও শেষ পর্যন্ত কতটা সিলেবাস বাদ দেওয়া হবে, সে বিষয়ে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত মুখ্যমন্ত্রী নেবেন বলে স্কুল শিক্ষা সচিবের তরফে জানানো হয়েছে দুই বোর্ডকে।

অন্যদিকে মাধ্যমিক উচ্চমাধ্যমিক পরীক্ষা নিয়ে সোমবার স্কুল শিক্ষা সচিব ভার্চুয়ালি বৈঠক করেন দুই বোর্ডের আধিকারিকদের সঙ্গে। ওই বৈঠকে দীর্ঘদিনের পর অসুস্থতা কাটিয়ে যোগ দেন মধ্যশিক্ষা পর্ষদের স্থায়ী সভাপতি কল্যাণময় গঙ্গোপাধ্যায়ও। সে ক্ষেত্রে মাধ্যমিক মে-জুন মাসে এবং উচ্চমাধ্যমিক জুন মাসের পরে করার প্রস্তাব দেওয়া হয়েছিল দুই বোর্ডের তরফেই। যদিও সোমবারের বৈঠকে দুই বোর্ডের তরফে ক্লাস চালুর প্রস্তাব দেওয়া হয়েছিল। কারণ ক্লাস চালু না করা গেলে কী ভাবে সিলেবাস শেষ করা সম্ভব সেই বিষয় নিয়েই কার্যত এক প্রকার সংশয় প্রকাশ করা হয়েছিল।

পাশাপাশি আইসিএসই ও সিবিএসই-এর পরীক্ষার উপর বিশেষভাবে নজর রাখতে বলেছিল দুই বোর্ড। তবে সেক্ষেত্রে এই দিনের বৈঠকে ফেব্রুয়ারি-মার্চ মাসে পরীক্ষা নেওয়া যায় নাকি সেই বিষয়ে আরও বিশদে ভাবনা চিন্তা করতে বলা হয়েছে মধ্যশিক্ষা পর্ষদ,উচ্চ মাধ্যমিক শিক্ষা সংসদ কেবল এই স্কুল শিক্ষা দফতর সূত্রে খবর। যদিও আইসিএসসি ও সিবিএসই-এর মতো বোর্ডগুলির পরীক্ষার সময়সীমা এবং অন্যান্য রাজ্যগুলির বোর্ড পরীক্ষা কবে হচ্ছে সেগুলিও নজরে রাখছে রাজ্য। কারণ অন্যান্য রাজ্যগুলির যদি বোর্ড পরীক্ষা আগেই নিয়ে নেন এবং সে ক্ষেত্রে রাজ্য যদি বোর্ড পরীক্ষা মে-জুন মাসে নয় তাহলে রাজ্যে ছাত্রছাত্রীরা অনেকটাই পিছিয়ে পড়বে অন্তত এই দিনের বৈঠকে এমনটাই আশঙ্কা প্রকাশ করেছেন স্কুল শিক্ষা দফতরের আধিকারিকরা।

সোমরাজ বন্দ্যোপাধ্যায়

Published by: Siddhartha Sarkar
First published: October 13, 2020, 5:54 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर