Narada Scam Case in Culcutta High Court: CBI-এর হাতে 'প্রভাবশালী' অস্ত্র নয়, TMC কর্মীদের জরুরি বার্তা মদনের স্ত্রী ও ফিরহাদ কন্যার

তৃণমূল কর্মীদের জমায়েত নয়

নারদ মামলায় (Narada Scam Case) হাইকোর্টের নির্দেশে জেল হেফাজত হয় রাজ্যের চার হেভিওয়েট নেতার। তৃণমূলের মন্ত্রী ফিরহাদ হাকিম (Firhad Hakim), সুব্রত মুখোপাধ্যায় (Subtrata Mukherjee), বিধায়ক মদন মিত্রের (Madan Mitra) পাশাপাশি জেল হেফাজত হয়েছে শোভন চট্টোপাধ্যায়ের (Sovan Chatterjee) প্রভাবশালী মত নেতারও।

  • Share this:

    কলকাতা: সোমবার সকাল থেকে গভীর রাত, শেষ পর্যন্ত নারদ মামলায় (Narada Scam Case) হাইকোর্টের নির্দেশে জেল হেফাজত হয় রাজ্যের চার হেভিওয়েট নেতার। তৃণমূলের মন্ত্রী ফিরহাদ হাকিম (Firhad Hakim), সুব্রত মুখোপাধ্যায় (Subtrata Mukherjee), বিধায়ক মদন মিত্রের (Madan Mitra) পাশাপাশি জেল হেফাজত হয়েছে শোভন চট্টোপাধ্যায়ের (Sovan Chatterjee) প্রভাবশালী মত নেতারও। যদিও ফিরহাদ ছাড়া বাকি তিন নেতারই এখন ঠিকানা এসএসকেএম হাসপাতালের উডবার্ন ওয়ার্ড। এই পরিস্থিতিতে বুধবার ধৃত চার নেতার জামিনের শুনানি যেমন রয়েছে, তেমনি ভিন রাজ্যে নারদ মামলা নিয়ে যাওয়া সংক্রান্ত আবেদনের উপরও বুধবার শুনানি হওয়ার কথা। এই পরিস্থিতিতে 'প্রভাবশালী' তকমা ঘোচাতে একদিকে যেমন দলীয় কর্মীদের শান্ত থাকার বার্তা দিয়েছেন ফিরহাদ হাকিমের কন্যা, তেমনি অপরদিকে প্রায় একই আবেদন মদনের স্ত্রী অর্চনা মিত্রেরও।

    ফেসবুকে মদন মিত্রের পেজ থেকেই তাঁর স্ত্রী অর্চনা মিত্র আবেদন করেন, 'মদন মিত্রের পক্ষ থেকে আমি ওঁর স্ত্রী, সমস্ত শুভবুদ্ধিসম্পন্ন সহকর্মী এবং বাংলার সমস্ত তৃণমূল কর্মীদের অনুরোধ করছি, বিধানসভা, কলকাতা হাইকোর্ট বা তার আশপাশে কোনও জমায়েত করবেন না।' তৃণমূলের কর্মীদের ‘সুশৃঙ্খল সম্প্রদায়’ বলে আখ্যা দিয়ে তাঁদের কাছে মদন মিত্রের স্ত্রী আবেদন করেছেন, ‘সংবিধান অনুযায়ী বিচারবিভাগের কাজ মসৃণ ভাবে পরিচালনা নিশ্চিত করতে’ বেঞ্চকে সম্পূর্ণ সহযোগিতা করুন। প্রসঙ্গত, সোমবার গভীর রাতে মদন মিত্রকে প্রেসিডেন্সি জেলে নিয়ে যাওয়া হলেও শ্বাসকষ্টের সমস্যায় তাঁকে এসএসকেএম হাসপাতালে ভর্তি করানো হয়েছে। এখনও অক্সিজেন সাপোর্টে রাখা হয়েছে তাঁকে।

    অপরদিকে, আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতি, ভিন রাজ্যে নারদ মামলা নিয়ে যাওয়া সংক্রান্ত যে আবেদনের উপর বুধবার শুনানি হওয়ার কথা, তার সঙ্গেই তৃণমূল নেতাদের জামিনের আবেদনও শুনবে কলকাতা হাইকোর্ট৷ ফলে, বুধবার কলকাতা হাইকোর্টেই ধৃত নেতাদের ভাগ্য নির্ধারণ হতে চলেছে৷ কিন্তু এই চার জনকে গ্রেফতার করায় সোমবার তৃণমূল কর্মীরা বিক্ষোভে ফেটে পড়েন। রণক্ষেত্রের চেহারা নেয় নিজাম প্যালেস চত্বর। যা সিবিআই-এর হাতে নতুন অস্ত্র তুলে দেয় বলেই মত রাজনৈতিক মহলের। অপরদিকে, করোনা কালে এই ভিড় একেবারেই কাম্য নয়। এই পরিস্থিতিতে আর্জি জানিয়েছেন ফিরহাদ হাকিমের কন্যা প্রিয়দর্শিনী হাকিম। ভিডিও বার্তায় তিনি বলেন, 'যদি আপনারা ববি হাকিমকে ভালোবাসেন, তাহলে করোনা পরিস্থিতির কথা মাথায় রাখুন। বাংলায় কোনওভাবেই করোনা ছড়াতে দেবেন না। ববি হাকিম আপনাদের এই কথাই বলতে চেয়েছেন। আগামীকাল কেউ হাইকোর্টের সামনে ভিড় করবেন না। সোশ্যাল মিডিয়ায় যা খুশি লিখুন, কিন্তু কেউ বাইরে বের হবেন না, ভিড় জমাবেন না। এটা ববি হাকিম আপনাদের উদ্দেশে বলতে চান। দয়া করে করোনার কথা ভুলে যাবেন না।'

    Published by:Suman Biswas
    First published: