টাকে চুল গজানোর পেঁয়াজের দামও এখন ৪০০০ টাকা বস্তা !

টাকে চুল গজানোর পেঁয়াজের দামও এখন ৪০০০ টাকা বস্তা !
  • Share this:

Sujay Pal

#কলকাতা: কয়েকমাস আগেও যে পেঁয়াজের কোনও জাত ছিল না। হাতে গোনা কয়েকজন বাজার থেকে কিনত। তাও আবার রস করে চুলের গোড়ায় দিয়ে চুল পড়া বন্ধ করার জন্য। সেই গুড়ি বা গুলটি পেঁয়াজের দামও এখন ১০০ টাকা প্রতি কেজি ছুঁয়ে ফেলেছে। পাইকারি বাজারে ৪০ কেজির বস্তা প্রায় চার হাজার টাকা। সৌজন্যে পেঁয়াজের আকাল।

রাজ্য সহ গোটা দেশে পেঁয়াজের চাহিদার বেশিরভাগটাই মেটায় মহারাষ্ট্রের নাসিক। কিন্তু এবছর অকাল বৃষ্টির জন্য সেখানে পেঁয়াজের উৎপাদন ব্যহত হয়েছে। ফলে সর্বত্র পেঁয়াজের দাম সেঞ্চুরি ছাড়িয়েছে। রাজ্যে ইতিমধ্যে ১৫০টাকা ছাড়ানোর পরেও অমিল পেঁয়াজ। ফলে বাঙালি এখন গুড়ি পেঁয়াজ দিয়েও কাজ চালাতে প্রস্তুত।

এই পরিস্থিতিতে যে পেঁয়াজ চুল পড়া বন্ধ করে বলে দাবি করা হয় বা নিয়মিত মাখলে চুল গজায়, সেই পেঁয়াজ হঠাৎ জাতে উঠেছে। বছরের অন্য সময় যখন পেয়াজের আমদানি স্বাভাবিক থাকে তখন এই গুড়ি পেঁয়াজের ৪০কেজির বস্তা ২০০ থেকে ৫০০ টাকায় বিক্রি হয়। খুব বেশি হলে ৮০০ টাকা বস্তা। কিন্তু এখন সেই পেঁয়াজের এক বস্তার দাম লাফাতে লাফাতে ৪০০০ ছুঁয়ে ফেলেছে।

ছোট এই পেয়াজকে ব্যবসায়ীরা গুড়ি বা গুলটি পেঁয়াজ বলে বিক্রি করেন। পোস্তা বাজারের পেঁয়াজের পাইকারি ব্যবসায়ী বিশ্বনাথ দে বলেন, "আগে এই পেঁয়াজ সপ্তাহে এক বস্তাও বিক্রি হত না। ২০০ থেকে ৫০০ টাকা বস্তায় বিক্রি হত। এখন  দেখছি ছোট পেঁয়াজও খাওয়ার জন্য বিক্রি হচ্ছে। বাজারে পেঁয়াজের আকালের জন্যই এই পেঁয়াজেরও চাহিদা বেড়েছে।"

Onion 2

ইন্টারনেট ঘাটলে দেখা যাবে পেয়াজের রসের উপকারিতা। পেঁয়াজে থাকা সালফেট চুলের গোড়া শক্ত করে, নিয়মিত মাখলে নাকি নতুন চুল গজায় বলে দাবি করা হয়। তাই এতদিন গুড়ি পেয়াজের কদর চুল ভালো রাখার জন্যই ছিল। ঝাঁঝ থাকলেও ছোট পেঁয়াজ হেসেল পর্যন্ত খুব কম ক্ষেত্রেই পৌঁছতে পেরেছিল। ছোট হওয়ার জন্য প্রয়োজনমতো গুড়ি পেঁয়াজ খোসা ছাড়ানো ও কুচি করে কাটার সমস্যার জন্যও তার গুরুত্ব কম। কিন্তু এখন নাসিকের পেঁয়াজের দাম ১৫০ টাকা ছুঁয়ে ফেলায় গুরুত্ব বেড়েছে। কারণ গুড়ি পেঁয়াজের দাম বাড়লেও নাসিকের বড় পেঁয়াজের থেকে দামের ফারাক ৪০ থেকে ৫০ টাকা। তাই খরচ বাঁচাতে ঝামেলা পোহাতেও রাজি মানুষ। তাতেই দর বাড়ছে গুড়ি পেঁয়াজের।

ব্যবসায়ীরা জানাচ্ছেন, চাষীরা যখন মাঠ থেকে পেঁয়াজ তোলেন তখন বড় পেয়াজের সাথে অল্প কিছু এই গুড়ি পেঁয়াজ ওঠে। ট্রাকে করে যখন পেঁয়াজ নাসিক থেকে পাঠানো হয় তখন এক ট্রাকে খুব বেশি হলে দু বস্তা আসে। কম দামের বিক্রি হয় সারা বছর। কিন্তু এখন হঠাৎ দাম বেড়ে যাওয়ায় ব্যবসায়ীদের আক্ষেপ, "যাকে এতদিন অবহেলা করা হত সেও এখন এত দামি হবে জানলে এগুলোই স্টক করতাম।"

First published: December 6, 2019, 10:29 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर