• Home
  • »
  • News
  • »
  • kolkata
  • »
  • Liquor sell: ২৪ ডিসেম্বর থেকে ১ জানুয়ারি রেকর্ড মদ বিক্রি রাজ্যে, দৈনিক প্রায় ৭০-৭৫ কোটি

Liquor sell: ২৪ ডিসেম্বর থেকে ১ জানুয়ারি রেকর্ড মদ বিক্রি রাজ্যে, দৈনিক প্রায় ৭০-৭৫ কোটি

প্রতীকী ছবি

প্রতীকী ছবি

Year End: কলকাতা দেখেছে, ২৫ ডিসেম্বরের রাতে কার্যত মানুষের ঢল নেমেছিল পার্কস্ট্রিট ও সংলগ্ন এলাকায়। রেস্তরাঁয় ছিল না তিল ধারণের জায়গা।

  • Share this:

#কলকাতা: মদ বিক্রির হিসাবে রেকর্ড গড়ল রাজ্য (Liquor Sell)। পুজোর সময়ের মদ (Liquor) বিক্রির হিসাব ছাপিয়ে গেল বড়দিন ও নতুন বছরের মদ বিক্রির পরিমাণ। করোনার আতঙ্ক যতই থাক, বড়দিন ও বছর শেষে পার্টিতে সুরাপানে কোনও রকম খামতি ছিল না বাঙালির, কে কথা স্পষ্ট হয়ে গেল সরকারি হিসাবেই। আবগারি দফতরের পরিসংখ্যান দেখলে রীতিমতো চমকে যেতে হবে।  দুর্গাপুজোর দিনগুলিতে মদ বিক্রি করে প্রায় ৪০৪ কোটি টাকা আয় করেছিল আবগারি দফতর। বড়দিন ও নিউ ইয়ারের মদ বিক্রির পরিমাণ সেই রেকর্ডকেও ছাপিয়ে গেল। রাজ্য আবগারি দফতর ও বেভারেজ করপোরেশন সূত্রে খবর ২৪ ডিসেম্বর থেকে পয়লা জানুয়ারি পর্যন্ত মদ ও খাবার বিক্রি হয়েছে প্রায় ৬৫০ কোটি টাকারও বেশি। যার জন্য আবগারি কর বাবদ আয় হয়েছে বিপুল সংখ্যক। সূত্রের খবর সবথেকে বেশি বিক্রি হয়েছে দেশী মদ। যদিও বিদেশী মদ ও বিয়ার উল্লেখযোগ্যভাবে বিক্রি হয়েছে এই দিন গুলোতে।

পুজোর সময় সাধারণত অন্য সময়ের থেকে মদ বিক্রির পরিমাণ বেশি থাকে। পুজোয় বিভিন্ন ঘরোয়া ও রেস্তরাঁর আয়োজনে ফেস্টিভ মুডে থাকা বাঙালির সুরাপানের প্রতি ঝোঁক থাকে বেশি। কিন্তু এ বছরের বড়দিন ও বছর শেষের উৎসব সেই হিসাবকেও ছাড়িয়ে গেল। শীতের ঠাণ্ডা আবহাওয়া গায়ে মেখে সুরাপানে মেতে উঠল বাঙালি। যে হিসাব পাওয়া গিয়েছে, তার সময়কাল ২৪ ডিসেম্বর থেকে ১ জানুয়ারি পর্যন্ত। অর্থাৎ ৯ দিনের হিসাব। আবগারি দফতরের হিসাব বলছে, এই ৯ দিনে গড়়ে রোজ ৭০ থেকে ৭৫ কোটি টাকার মদ বিক্রি হয়েছে। এর মধ্যে সবচেয়ে বেশি বিক্রি হয়েছে ২৫ ও ২৬ ডিসেম্বর। অর্থাৎ বড়দিন ও তার পরের দিন।প্রসঙ্গত গতবছর পুজোতে  দেশি মদ সবথেকে বেশি বিক্রি হয়েছিল। আবগারি দফতর সূত্রে খবর গতবছর পুজোতে দেশি মদ ১.৪৬ কোটি লিটার, বিদেশি মদ ৩৭.৯৩ লাখ লিটার, বিয়ার ৪৩.৭৪ লাখ লিটার বিক্রি হয়েছিল।

আরও পড়ুন- এনআরএস হাসপাতালে ভয়ঙ্কর আকার নিল করোনা! এক ধাক্কায় আক্রান্ত ৭০

কলকাতা দেখেছে, ২৫ ডিসেম্বরের রাতে কার্যত মানুষের ঢল নেমেছিল পার্কস্ট্রিট ও সংলগ্ন এলাকায়। রেস্তরাঁয় ছিল না তিল ধারণের জায়গা। করোনা পরিস্থিতি তখনও এতটা ভয়াবহ হয়নি, তাই নিশ্চিন্তেই পার্টিতে মজেছিলেন অনেকে। সেই কারণেই লাফিয়ে বেড়েছে মদ বিক্রির পরিমাণ।  আবগারি দফতর ফেরত যে পরিসংখ্যান পাওয়া গিয়েছে, তাতে এই ৯ দিনে রাজ্যে বিভিন্ন পানশালা ও রেস্তরাঁয় মোট ৬৫০ কোটি টাকার খাবার ও মদ বিক্রি হয়েছে।

আরও পড়ুন:  করোনা-আখড়া এয়ারপোর্ট? কলকাতা বিমানবন্দরে ভয়ানক কাণ্ড! রিপোর্ট আসতেই জানা গেল...

পুজোর মতোই বড়দিনের আগেই মদের দোকানগুলি প্রয়োজনীয় মদ তুলে নিয়েছিল সরকার নির্ধারিত ডিস্ট্রিবিউটরদের থেকে। আবগারি দফতর সূত্রে খবর সবথেকে বেশি বিক্রি হয়েছে ২৫ ও ২৬ শে ডিসেম্বর। যদিও পুজোতে মদের দাম চড়া থাকলেও সম্প্রতি মদের দাম কমিয়ে ছিল রাজ্য আবগারি দফতর। তার পরেও এত বিপুল সংখ্যক মদ বিক্রিতে রাজ্যের কোষাগারে বিপুল পরিমাণ অর্থ ঢুকল তাতে কোন সন্দেহ নেই। আবগারি দফতর সূত্রে খবর সবথেকে বেশি বিক্রি হয়েছে কলকাতা জেলা থেকেই।একাংশের মতে বড়দিন ও নিউ ইয়ারে রেস্তরাঁগুলি থেকে খাবার বিক্রি ব্যবসায়ীদের কাছে অনেকটাই ইতিবাচক সঙ্কেত দিল।

সোমরাজ বন্দ্যোপাধ্যায়

Published by:Uddalak B
First published: