• Home
  • »
  • News
  • »
  • kolkata
  • »
  • টাটাকে মমতার ‘শিল্প’ বার্তায় উদাসীন বুদ্ধদেব, ভূমিকা বদল সিপিআইএমের

টাটাকে মমতার ‘শিল্প’ বার্তায় উদাসীন বুদ্ধদেব, ভূমিকা বদল সিপিআইএমের

সিঙ্গুর ভূত এখনও তাড়া করছে। মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় প্রশাসনকে আক্রমণে তাই কৃষক দরদি ভাবমূর্তিই নিতে চাইছে সিপিআইএম।

সিঙ্গুর ভূত এখনও তাড়া করছে। মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় প্রশাসনকে আক্রমণে তাই কৃষক দরদি ভাবমূর্তিই নিতে চাইছে সিপিআইএম।

সিঙ্গুর ভূত এখনও তাড়া করছে। মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় প্রশাসনকে আক্রমণে তাই কৃষক দরদি ভাবমূর্তিই নিতে চাইছে সিপিআইএম।

  • Pradesh18
  • Last Updated :
  • Share this:

     #কলকাতা: সিঙ্গুর ভূত এখনও তাড়া করছে। মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় প্রশাসনকে আক্রমণে তাই কৃষক দরদি ভাবমূর্তিই নিতে চাইছে সিপিআইএম। গোয়ালতোড়ের শস্য খামার তৈরির জমি কীভাবে শিল্পের জন্য বরাদ্দ হয়, সেই প্রশ্ন তুলেই সরব সিপিআইএম। নেতারা গলা ফাটালেও এদিনও সিঙ্গুর নিয়ে নীরব বুদ্ধদেব ভট্টাচার্য।

    সিঙ্গুর উৎসবের মঞ্চে মাস্ট্রারস্ট্রোক মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের। সিঙ্গুর মঞ্চ থেকেই টাটাদের বিনিয়োগ বার্তা দেন মুখ্যমন্ত্রী। সিঙ্গুরে ন্যানো কারখানা হয়নি, বদলে গোয়ালতোড়ে এক হাজার জমিতে টাটাদের কারখানা গড়ার জন্য আহবান করেন  মুখ্যমন্ত্রী।

    সিঙ্গুর পর্ব পিছনে ফেলে সবকিছু নতুন করে শুরুর আবেদন জানালেন মমতা। তাঁর আশ্বাস, গাড়ি কারখানা করলে চাইলে টাটা সহ সব অন্য সংস্থাকে যাবতীয় সাহায্য দিতে তৈরি রাজ্য প্রশাসন। কিন্তু এসব কিছুর থেকে শত যোজন দূরে উদাসীন বুদ্ধদেব ভট্টাচার্য ৷

    আরও পড়ুন

    সিঙ্গুর থেকেই টাটাকে শিল্প গড়ার আহবান মুখ্যমন্ত্রীর

    সিঙ্গুর উৎসবের দিনেও নীরবই থাকছেল তিনি। দলের বৈঠকে যোগ সেরে বেরনোর পর সাংবাদিকদের প্রশ্নের মুখেও মুখ খুললেন না বুদ্ধদেব ভট্টাচার্য। সাংবাদিকদের প্রশ্নের উত্তর না দিয়ে গাড়িতে ওঠে গেলেন ৷

    আরও পড়ুন

    পূর্ণ সিঙ্গুর-বৃত্ত, সিঙ্গুর উৎসবের মঞ্চে তৃপ্ত মমতা

    সুপ্রিম কোর্টের সিঙ্গুর রায়ের পর একবারও মুখ খোলেননি একদা টাটাদের কারখানার পোস্টরবয়। কেন্দ্রীয় কমিটি জমি অধিগ্রহণ নিয়ে কার্যত তাঁর দিকেই আঙুল তুলেছিল। সিঙ্গুর সিদ্ধান্ত নিয়ে এদিন খোলাখুলিভাবে তাঁর পাশে দাঁড়ায়নি রাজ্য নেতৃত্বও। বাম নেতা বিমান বসু সিঙ্গুর রায়ের পর বলেন, ‘আদালত আদালতের কাজ করেছে ৷’

    আরও পড়ুন

    এক দশকের লড়াই শেষে প্রতিশ্রুতি পূরণ, জমি ফেরত পেলেন সিঙ্গুরের কৃষকেরা

    সিঙ্গুর অস্বস্তি এড়াতে কৃষক দরদি অবস্থান তুলে ধরতে মরিয়া সিপিএম। গোয়ালতোড়ে শিল্প গড়তে মুখ্যমন্ত্রীর আহ্বান ঘিরেই তাই দ্বিচারিতার অভিযোগ সিপিআইএমের।

    সিঙ্গুরে অধিকাংশ কৃষকই স্বেচ্ছায় জমি দিয়েছিলেন বলে সওয়াল করে এসেছে বাম সরকার। সেই দাবি কতটা সত্যি ছিল? সিঙ্গুর দিবসের পর সেই প্রশ্ন উঠতে বাধ্য। কৃষক দরদি হওয়ার কৌশলও তাই কতটা কাজে দেবে, তা নিয়ে সন্দেহ থাকছেই।

    First published: