• Home
  • »
  • News
  • »
  • kolkata
  • »
  • LALBAZAR TRAFFIC DEPARTMENT TAKES STRICT DECISION TO IDENTIFY RED N BLUE BEACON CARS SDG

Lalbazar Traffic Control New Guideline|| দেবাঞ্জন কাণ্ডের জের! নকল লাল-নীল বাতি গাড়ি ধরতে তৎপর পুলিশ, কড়া নির্দেশিকা লালবাজারের

নকল লাল-নীল বাতি গাড়ি ধরতে তৎপর লালবাজার।

লাল ও নীল বাতি লাগানো গাড়ি নিয়ে আরও কড়া অবস্থান নিল কলকাতা পুলিশের ট্রাফিক বিভাগ। লালবাজার সূত্রের খবর, এ বার থেকে ট্রাফিক সিগন্যালে লাল ও নীল বাতি লাগানো গাড়ির নম্বর লিপিবদ্ধ করা হবে।

  • Share this:

#কলকাতা: লাল ও নীল বাতি লাগানো গাড়ি নিয়ে আরও কড়া অবস্থান নিল কলকাতা পুলিশের ট্রাফিক বিভাগ। লালবাজার সূত্রের খবর, এ বার থেকে ট্রাফিক সিগন্যালে  লাল ও নীল বাতি লাগানো গাড়ির নম্বর লিপিবদ্ধ করা হবে।  ইতিমধ্যে কলকাতা পুলিশের ট্রাফিক বিভাগের তরফে প্রতিটি ট্রাফিক গার্ডে নতুন নির্দেশিকা পাঠানো হয়েছে।

কী আছে এই নতুন নির্দেশিকায়?

সূত্রের খবর, নতুন নির্দেশিকায় বলা হয়েছে- প্রতিটি ট্রাফিক গার্ডের একটি করে সিগন্যাল বেছে নিতে হবে, যেখানে মোতায়েন করা হবে দু-জন সিভিক ভলেন্টিয়ার।  তাঁরা ওই সিগন্যাল দিয়ে যে সমস্ত  লাল-নীল বাতি লাগানো গাড়ি অতিক্রম করবে, তার নম্বর লিপিবদ্ধ করবে। পরবর্তীতে সেই সব গাড়ির নম্বর খতিয়ে দেখা হবে কোন কোন গাড়ি উদ্দেশ্যহীন ভাবে লাল-নীল বাতি ব্যবহার করছে।  তাতে যদি দেখা যায় কোনও গাড়ির মালিক বা চালক তাঁর গাড়িতে অসৎ উপায়ে লাল বা নীল বাতি লাগিয়ে ব্যবহার করছেন, তাঁদের বিরুদ্ধে কড়া পদক্ষেপ নেওয়া হবে।

প্রসঙ্গত, গত মাসেই কসবা থেকে গ্রেফতার হয়েছে ভুয়ো আইএএস এবং সামনে এসেছে ভুয়ো কোভিড টিকাকরণ কেন্দ্র। তা নিয়ে বিতর্ক চলছেই। দেবাঞ্জন দেব নামে ওই যুবক দীর্ঘদিন নিজের গাড়িতে নীল বাতি ব্যবহার করে নিজেকে পুরসভার আধিকারিক বলে ঘুরতেন। এই বিষয়টি সামনে আসার পর লাল ও নীল বাতি লাগানো গাড়ি নিয়ে চিন্তা বেড়েছে লালবাজারের অন্দরে। আর তার জেরে শহরের বিভিন্ন পয়েন্টে ভুয়ো লাল-নীল বাতি লাগানো গাড়ি ধরতে স্পেশাল ড্রাইভ বা অভিযান চালানো হচ্ছে ট্রাফিক বিভাগের তরফে।

গত সপ্তাহে ইস্ট ট্রাফিক গার্ডের তরফে এক যুবককে গ্রেফতার করা হয়। ওই যুবক তাঁর গাড়িতে নীল বাতি লাগিয়ে ঘুরত। পুলিশ ধরতেই নিজেকে সেন্ট্রাল ভিজিল্যান্সের আধিকারিক বলে পরিচয় দেয়। তদন্তে জানা যায় সবটাই ভুয়ো। এ হেন ঘটনা রুখতেই নতুন নির্দেশিকা জারি করল ট্রাফিক বিভাগ। আজ থেকেই শহরের সমস্ত ট্রাফিক গার্ডগুলিতে নির্দিষ্ট কোনও একটি সিগন্যাল পয়েন্ট বেছে লাল-নীল বাতি লাগানো গাড়ির নম্বর লিপিবদ্ধের কাজ শুরু হয়েছে। তবে এই তালিকায় বাদ রাখা হয়েছে অ্যাম্বুল্যান্সকে। অতীতেও একাধিক গাড়ি ধরা পড়েছে যারা বে-আইনি ভাবে গাড়িতে লাল বা নীল বাতি ব্যবহার করেছে। তবে এ বার আরও সতর্ক লালবাজার।

Amit Sarkar

Published by:Shubhagata Dey
First published: