Home /News /kolkata /
বসিরহাটের ঘটনার বিচারবিভাগীয় তদন্ত, দোষীদের বিরুদ্ধে কড়া ব্যবস্থা নেওয়া হবে : মুখ্যমন্ত্রী

বসিরহাটের ঘটনার বিচারবিভাগীয় তদন্ত, দোষীদের বিরুদ্ধে কড়া ব্যবস্থা নেওয়া হবে : মুখ্যমন্ত্রী

বাংলায় এভাবে সন্ত্রাস ছড়ানো নিয়ে মুখ্যমন্ত্রীর অভিযোগের তির কেন্দ্রের শাসক দল বিজেপির বিরুদ্ধে।

  • Share this:

    #কলকাতা: বাদুড়িয়ায় হিংসা-হানাহানির ঘটনার নেপথ্যে কারা ? কোন পক্ষের কারা কারা সরাসরি হামলায় জড়িয়ে ? তা জানতে বিচারবিভাগীয় তদন্তের নির্দেশ দিল রাজ্য সরকার। মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের বক্তব্য, প্রতিবেশী রাষ্ট্র বাংলাদেশ থেকে দুষ্কৃতীরা এসে উত্তর ২৪ পরগনার একাধিক এলাকায় তাণ্ডব চালিয়েছে। অবাধে আন্তর্জাতিক সীমান্ত পেরিয়ে কীভাবে এ রাজ্যে সাম্প্রদায়িক হিংসা ছড়ানো সম্ভব হল তা নিয়েও প্রশ্ন তুলেছেন মুখ্যমন্ত্রী। বসিরহাট ঘটনার তদন্তের নেতৃত্বে থাকছেন অবসরপ্রাপ্ত বিচারপতি সৌমিত্র পাল এবং হাইকোর্টের অবসরপ্রাপ্ত বিচারপতি সৌমিত্র পাল ৷

    একটি ফেসবুক পোস্ট। আর তারপর থেকেই হিংসা আর হানাহানির আগুন। উত্তর ২৪ পরগনার বাদুড়িয়া শুরু থেকে যা ছড়িয়ে পড়ে দেগঙ্গা, বসিরহাটে। দোকানপাট, বাজারে ভাঙচুর। সংঘর্ষ। এমনকী, এড়ানো যায়নি মৃত্যুও। গত রবিবার ২ জুলাইয়ের রাত থেকে যে হানাহানি, গোলমালের সূত্রপাত। সোমবার সকাল থেকে এলাকায় অঘোষিত বনধের চেহারায় তা আরও মারাত্মক হয়ে পড়ে। রাস্তা-রেল অবরোধ করে, পুলিশের গাড়ি জ্বালিয়ে শুরু হয় বেপরোয়া তাণ্ডব। কিন্তু কারা লাগাতার তিন দিন ধরে উত্তর ২৪ পরগনার বিস্তীর্ণ এলাকা জুড়ে দাপিয়ে বেড়ালেন? তা জানতেই বিচারবিভাগীয় তদন্তের নির্দেশ।

    বাদুড়িয়ার ঘটনা নিয়ে ইতিমধ্যেই সরকারের হাতে প্রাথমিক গোয়েন্দা রিপোর্ট এসে পৌঁছেছে। তাতে এ রাজ্যের বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্রের একাধিক প্রমাণ পাওয়া গিয়েছে।

    মুখ্যমন্ত্রী বলেন, ‘‘বসিরহাটের ঘটনার বিচার বিভাগীয় তদন্ত হবে ৷ দোষীদের বিরুদ্ধে কড়া ব্যবস্থা নেওয়া হবে ৷ সীমান্ত পেরিয়ে এসে দাঙ্গা করে চলে গেল, সীমান্ত তো কেন্দ্রীয় সরকার দেখে ৷ কী করে হল তারও তদন্ত হবে ৷ মানুষকে উসকানি দিতে ভোজপুরী ছবি দেখানো হচ্ছে ৷  দেখানো হচ্ছে কুমিল্লার ছবি ৷ বসিরহাটের মানুষ সেই প্ররোচনায় পা দেননি ৷ ’’

    রাস্তায় নেমে ধর্মের নামে হিংসা। সঙ্গে পাল্লা দিয়ে সোশ্যাল সাইটে কুৎসা। মিথ্যে ছবি, ফুটেজ পোস্ট করে হিংসা ছড়ানোর ছক। যে সমস্ত অ্যাকাউন্ট থেকে এই মিথ্যে এবং উদ্দেশ্য প্রণোদিত প্রচার চলছে, যাঁরা এ ধরনের পোস্ট শেয়ার করছেন তাঁদের বিরুদ্ধেও ব্যবস্থা নিতে চলেছে পুলিশ।

    বাংলায় এভাবে সন্ত্রাস ছড়ানো নিয়ে মুখ্যমন্ত্রীর অভিযোগের তির কেন্দ্রের শাসক দল বিজেপির বিরুদ্ধে। বাংলায় সংগঠন, শক্তি কিছুই নেই বিজেপির। তাই বাদুড়িয়ার মতো ষড়যন্ত্র।

    First published:

    Tags: Baduria Violence, Basirhat, Mamata Banerjee, Nabanna, বাদুড়িয়া, মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়

    পরবর্তী খবর