মোট ৫৫,৬৪৭ জন নতুন শিক্ষক নিয়োগ করবে রাজ্য সরকার

File Photo

হাইকোর্টে দায়ের হওয়া একের পর এক মামলায় নিয়োগ বাধাপ্রাপ্ত হওয়ার আশঙ্কাকে সম্পূর্ণ ভুল প্রমাণিত করে প্রাথমিকে নিয়োগ প্রক্রিয়া শুরু করে দিল প্রাথমিক শিক্ষা সংসদ ৷

  • Pradesh18
  • Last Updated :
  • Share this:

    #কলকাতা: হাইকোর্টে দায়ের হওয়া একের পর এক মামলায় নিয়োগ বাধাপ্রাপ্ত হওয়ার আশঙ্কাকে সম্পূর্ণ ভুল প্রমাণিত করে প্রাথমিকে নিয়োগ প্রক্রিয়া শুরু করে দিল প্রাথমিক শিক্ষা সংসদ ৷ ২৬ সেপ্টেম্বর নিয়োগ প্রক্রিয়ার বিস্তারিত বিবরণ সহ বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করবে পর্ষদ ৷ স্কুল সার্ভিস কমিশনের পর প্রাথমিক টেট উত্তীর্ণদের নিয়োগের জন্য উদ্যোগী সরকার ৷ টেট মামলা চলাকালীনই রাজ্য সরকার জানিয়েছিল, ফল প্রকাশিত হলে শীঘ্রই নিয়োগ প্রক্রিয়া সম্পন্ন করবে ৷

    ১৪ সেপ্টেম্বর আদালতের রায়দানে টেট মামলার নিষ্পত্তির পরই দু’ঘণ্টার মধ্যে টেটের জোড়া ফল প্রকাশ করে প্রাথমিক শিক্ষা পর্ষদ ও স্কুল সার্ভিস কমিশন ৷ তখনই পর্ষদ জানিয়েছিল দ্রুত ইন্টারভিউ শুরু হবে ৷ সেই মতো পুজোর আগেই ইন্টারভিউ প্রক্রিয়া শুরু করার কথা বলেছে পর্ষদ ৷

    প্রাথমিকে শূন্যপদের সংখ্যা এই মুহূর্তে ৪১ হাজার ৫৫৯টি ৷ তবে কোন অঞ্চলে কটি শূন্য পদ রয়েছে তা জানা যাবে ২৬ তারিখ অর্থাৎ সোমবারের বিজ্ঞাপনে ৷ কিন্তু কিভাবে ইন্টারভিউয়ের জন্য আবেদন করবেন তা দেখে নেওয়া যাক ৷

    আরও পড়ুন

    বদলাচ্ছে উচ্চপ্রাথমিকেরও নিয়োগ প্রক্রিয়া, দেখে নিন কেমন হবে SSC ইন্টারভিউ

    পর্ষদের নিজস্ব ওয়েবসাইট ছাড়াও বিভিন্ন সংবাদপত্রে প্রকাশিত হবে বিজ্ঞপ্তি ৷ সেখানে লিখিত নির্দেশ অনুসারে টেট উত্তীর্ণদের আবেদন করতে হবে ৷ পর্ষদের নিজস্ব ওয়েবসাইটেও অনলাইনে আবেদন করা যাবে ৷ সংরক্ষিত প্রার্থীদের নতুন করে আবেদনের জন্য ৫০ টাকা ফিজ দিতে। অসংরক্ষিত প্রার্থীদের আবেদন করতে লাগবে ২০০ টাকা।

    আরও পড়ুন

    অপ্রশিক্ষণপ্রাপ্ত প্রার্থীদেরও ন্যায্য সুযোগ দেবে SSC-এর নয়া বিধি

    এই নিয়োগ প্রক্রিয়ার মাধ্যমে উচ্চ প্রাথমিক ও প্রাথমিক মিলিয়ে প্রায় ৫৫ হাজার ৬৪৭টি শূন্যপদে শিক্ষক নিয়োগ করতে চলেছে রাজ্য সরকার ৷  সংখ্যাটা আরও বাড়তে পারে বলেই ইঙ্গিত রাজ্যের শিক্ষা দফতরের ৷ শুক্রবার উচ্চ প্রাথমিকে ১৬ হাজার ৫২৯টি শূন্যপদে শিক্ষক নিয়োগের বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করেছে স্কুল সার্ভিস কমিশন ৷ অন্যদিকে, সোমবার প্রাথমিকে ৪১ হাজার ৫৫৯টি শূন্যপদে নিয়োগের বিস্তারিত বিবরণ প্রকাশ করবে প্রাথমিক শিক্ষা পর্ষদ ৷ শিক্ষা দফতর সূত্রে খবর, প্রাথমিক টেট প্রায় ১ লক্ষ ২৪ হাজার প্রার্থী পাশ করেছেন ৷

    অন্যদিকে, এবারে নিয়োগ পদ্ধতিতে বেশ কিছু নতুন নিয়ম চালু করা হয়েছে ৷ যেমন প্রাথমিক ও উচ্চপ্রাথমিক দুই ক্ষেত্রেই ইন্টারভিউয়ের সময় দিতে হবে টিচিং ডেমস্ট্রেশন ৷ এছাড়া SSC-এর নম্বর বিভাজনের ক্ষেত্রেও এসেছে পরিবর্তন ৷

    আরও পড়ুন

    প্রকাশিত হল উচ্চ প্রাথমিকে শিক্ষক নিয়োগের বিজ্ঞপ্তি, দেখে নিন পরীক্ষার খুঁটিনাটি

    শিক্ষা দফতরের দেওয়া তথ্য অনুযায়ী, প্রশিক্ষণের উপর বরাদ্দ রাখা হয়েছে ১০ নম্বর ৷ সংশ্লিষ্ট পরীক্ষায় ৬০ শতাংশের বেশি পেলেই পাওয়া যাবে পুরো ১০ নম্বর ৷ ৪৫ শতাংশ বা তার বেশি স্কোর হলে যোগ হবে ৮ নম্বর ৷ যদি ৪৫ শতাংশের কম নম্বর পায় পরীক্ষার্থী তাহলে মোট নম্বরের সঙ্গে শিক্ষণের ডিগ্রির জন্য যুক্ত হবে ৬ নম্বর ৷

    আরও পড়ুন

    ফের মামলার ফাঁসে আটক টেট, থমকে যাবে প্রাথমিকে নিয়োগ ?

    উচ্চমাধ্যমিকের জন্য বরাদ্দ ১০ নম্বর, সম্পূর্ণ পাওয়া যাবে উচ্চমাধ্যমিকে ৬০ শতাংশ বা তাঁর বেশি স্কোর থাকলেই ৷ স্কোর ৫০ শতাংশ হলেই পাওয়া যাবে ৬ ৷ মাধ্যমিকের ক্ষেত্রেও একই নিয়ম ৷

    আরও পড়ুন

    প্রতীক্ষার অবসান, প্রাথমিকে শিক্ষক নিয়োগের বিজ্ঞপ্তি প্রকাশিত

    তবে স্নাতক পরীক্ষার্থীরা বরাদ্দ ২০ নম্বর পাবেন ৬০ শতাংশের উপর স্কোর থাকলে ৷ স্নাতকে ৫০ শতাংশ নম্বর পেলে এসএসসির চুড়ান্ত পর্বে যোগ হবে ১৮ নম্বর ৷ তার চেয়ে কম হলে মাত্র ১৬ নম্বরই যোগ হবে ফাইনাল স্কোরে ৷

    টেট পরীক্ষার ১৫০ নম্বরকে ৪০-এর মধ্যে হিসেব করা হবে অর্থাৎ ১৫০ নম্বরকে ১০০ শতাংশ ধরে সেটাকে ৪০ নম্বর হিসেবে চুড়ান্ত ফলাফলে যোগ করা হবে ৷

    বহুদিন ধরে আইনি ফাঁসে আটকে ছিল টেটের ফল ৷ ১৪ সেপ্টেম্বর আদালতের রায়দানের একঘণ্টার মধ্যেই নজিরবিহীন ভাবে প্রাথমিক ও উচ্চ প্রাথমিক টেটের ফল প্রকাশ করে স্কুল সার্ভিস কমিশন ও পর্ষদ ৷

    আরও পড়ুন

    কী প্রক্রিয়ায় হতে চলেছে প্রাথমিক শিক্ষক নিয়োগের ইন্টারভিউ? দেখে নিন

    রাজ্যের স্কুলগুলিতে শিক্ষক সঙ্কট তীব্র ৷ বহুবছর ধরে বন্ধ নিয়োগ ৷ অবসরের বয়স এসে যাওয়ায় অবসর নিতে বাধ্য হচ্ছেন বহু শিক্ষক ৷ বিষয়াভিজ্ঞ শিক্ষকের পদ শূন্য ৷ অন্য বিষয়ের শিক্ষক-শিক্ষিকাকে নিতে হচ্ছে একাধিক বিষয়ের ক্লাস ৷ ইতিহাস শিক্ষকের শূন্যতা পূরণ করতে ইতিহাস ক্লাস নিচ্ছেন বাংলার শিক্ষিকা ৷ কখনও কখনও অঙ্কের শিক্ষিকাকে ভূগোল পড়ানোর দায়িত্ব নিতে হচ্ছে ৷ রাজ্যের বেশিরভাগ স্কুলে চিত্রটা এমনই ৷ নিয়োগ আইনি জালে অবস্থা সামাল দিতে অবসরপ্রাপ্ত শিক্ষকদের আরও ৬ মাসের জন্য নতুন করে নিয়োগ করার কথা ভাবছিলেন শিক্ষামন্ত্রী পার্থ চট্টোপাধ্যায় ৷ কিন্তু ১৪ সেপ্টেম্বর আদালত টেটের ফলপ্রকাশের উপর থেকে স্থগিতাদেশ তুলে নিলে আশা জাগে প্রাথমিক ও উচ্চ প্রাথমিক শিক্ষকপদে আবেদনকারীদের মনে ৷

    First published: