Home /News /kolkata /
কংগ্রেসের সঙ্গে জোটের সিদ্ধান্ত নিয়ে নয়া চিন্তাভাবনা বাম শিবিরে

কংগ্রেসের সঙ্গে জোটের সিদ্ধান্ত নিয়ে নয়া চিন্তাভাবনা বাম শিবিরে

কংগ্রেসের সঙ্গে জোটের সিদ্ধান্ত নিয়ে নয়া চিন্তাভাবনা বাম শিবিরে

  • Share this:

    #কলকাতা: রাজ্যে বিধানসভা নির্বাচনের পর পিছু হঠতে হয়েছে জোটপন্থীদের। কেন্দ্রীয় কমিটির আপত্তিতে কংগ্রেসের সঙ্গে জোটের সম্ভাবনা আপাতত হিমঘরে। তবে বিষয়টিকে এখানেই ছেড়ে দিতে রাজি নয় সীতারাম ইয়েচুরিরা। ভবিষ্যতে কংগ্রেসের সঙ্গে ফের জোটের পথ খুলে রাখতে মরিয়া জোটপন্থীরা দীর্ঘমেয়াদি কৌশল নিচ্ছেন। আগামী পার্টি কংগ্রেসে জোট নিয়ে অল আউট ঝাঁপাতে চলেছেন ইয়েচুরিরা। মার্কসের তত্ত্বকে হাতিয়ার করেই জোট সম্ভাবনার পক্ষে সওয়াল করবেন জোটপন্থীরা।

    কংগ্রেসের সঙ্গে জোটের বিরোধিতায় অনড় দলেরই একটি অংশ। বিশেষত দক্ষিণী লবির আপত্তিতেই জোট নিয়ে পিছু হঠতে হয়েছে জোটপন্থীদের। কেন্দ্রীয় কমিটি জোট না করার নির্দেশ দেওয়ায় এব্যাপারে আর এগোনো সম্ভবও ছিল না। কিন্তু জোটের প্রশ্নে এত সহজে হাল ছাড়তে নারাজ জোটপন্থীরা। ২০১৯ এর দিকে তাকিয়ে কংগ্রেসের সঙ্গে জোটের সম্ভাবনা খোলা রাখার চেষ্টা চলছে। উত্তর ২৪ পরগণা জেলা সিপিএমের কর্মসূচিতে এসে সেই ইঙ্গিত মিলল খোদ দলের সাধারণ সম্পাদকের কথায়। তিনি বলেন,‘ শক্রপত্রও মনে করে, সিপিএম দাঁড়ালে কংগ্রেস সহ বাকি দলগুলোকে ঐক্যবদ্ধ করতে পারে ৷ তাই একে দুর্বল করো ’৷ গত পার্টি কংগ্রেসে কংগ্রেস ও বিজেপির সঙ্গে সমদুরত্ব নেওয়ার কৌশল নেওয়া হয়। তারপরও রাজ্যে বিধানসভা নির্বাচনে কংগ্রেসের সঙ্গে জোট করে আলিমুদ্দিন। বিধানসভায় হারের পর চাপের মুখে জোট ভাঙতে কার্যত বাধ্য হন ইয়েচুরিরা। গত এক বছরে পরিস্থিতি যেভাবে বদলেছে, তাতে নতুন করে জোটের সম্ভাবনা উজ্জ্বল বলেই মনে করছেন জোটপন্থীরা। আর এক্ষেত্রে হাতিয়ার করা হচ্ছে কার্ল মার্কসের দেখানো পথকে। মার্কস বলে গিয়েছিলেন, পরিস্থিতি অনুযায়ী পদক্ষেপ করতে হবে। আক্রান্ত হলে সমভাবাপন্ন ও বন্ধু রাজনৈতিক দলকে সঙ্গে নিয়ে এগোতে হবে। এভাবেই রাজনৈতিক লক্ষ্যপূরণ সম্ভব। - কার্ল মার্কস ইয়েচুরিদের কৌশল স্পষ্ট। পার্টি কংগ্রেসে জোটের পক্ষে অনুমোদন আদায় করে নেওয়া। অন্তত সেব্যাপারে নমনীয় অবস্থান নেওয়া হলেও সুবিধাজনক অবস্থায় থাকতে পারবেন জোটপন্থীরা। রাজ্যে এরিয়া কমিটি গঠন নিয়েও গোষ্ঠীদ্বন্দ্ব ও কর্মী বিক্ষোভের অভিযোগ উঠছে। মঙ্গলবার রাজ্য কমিটির বৈঠকে এই বিষয়টি গুরুত্ব পাবে। যদিও এদিন ইয়েচুরির সঙ্গে একই মঞ্চে ছিলেন সিপিএম নেতা গৌতম দেব। দলীয় কর্মীদের তাঁর বার্তা, ক্ষোভ-বিক্ষোভকে গুরুত্ব দেবে না দল। যা দায়িত্ব দেওয়া হবে, তাই পালন করতে হবে।

    First published:

    Tags: Congress CPM alliance, Cpim, Left Front, Sitaram Yehchuri

    পরবর্তী খবর