‘পুলকার ও স্কুলবাসে প্যানিক বাটন আবশ্যক’-শুভেন্দু

‘পুলকার ও স্কুলবাসে প্যানিক বাটন আবশ্যক’-শুভেন্দু

পুলকার ও স্কুলবাসে প্যানিক বাটন বাধ্যতামূলক করতে হবে। দু’হাজার ছয়ের আগের কোনও গাড়িকেই নতুন ক’রে রেজিস্ট্রেশন দেওয়া হবে না।

পুলকার ও স্কুলবাসে প্যানিক বাটন বাধ্যতামূলক করতে হবে। দু’হাজার ছয়ের আগের কোনও গাড়িকেই নতুন ক’রে রেজিস্ট্রেশন দেওয়া হবে না।

  • Pradesh18
  • Last Updated :
  • Share this:

    #কলকাতা: পুলকার এবং স্কুলবাস নিয়ে কঠোর রাজ্য সরকার। ছাত্রছাত্রীদের নিরাপত্তায় কোনও অনিয়ম বরদাস্ত করা হবে না। আজ পুলকার ও স্কুলবাস চালকদের নিয়ে এক কমর্শালায এভাবেই সরকারি অবস্থান স্পষ্ট করলেন পরিবহনমন্ত্রী শুভেন্দু অধিকারী।

    মন্ত্রী বলেন, পুলকার ও স্কুলবাসে প্যানিক বাটন বাধ্যতামূলক করতে হবে। দু’হাজার ছয়ের আগের কোনও গাড়িকেই নতুন ক’রে রেজিস্ট্রেশন দেওয়া হবে না।

    গত তিন সপ্তাহ ধরে রাজ্যের বিভিন্ন প্রান্তে দুর্ঘটনার মুখে একের পর এক স্কুল বাস। পুলকার দুর্ঘটনায় চিন্তিত রাজ্য পরিবহণ দফতর। দুর্ঘটনা রুখতে তাই এবার কঠোর ব্যবস্থা নিচ্ছে তারা।

    বৃহস্পতিবার স্কুল বাস এবং পুলকার চালকদের একটি কর্মশালায় দাঁড়িয়ে চালকদের নিয়মাবলী স্মরণ করিয়ে দিলেন পরিবহণ মন্ত্রী। দফতরের সোজা কথা রাস্তায় গাড়ি নামিয়ে মালিকরা নিয়মভঙ্গ করলে চালকরা যেন পালিয়ে না যান।

    এর আগেও একাধিকবার স্কুল বাস সংগঠনের সঙ্গে বৈঠক করেছেন মন্ত্রী নিজে। দুর্ঘটনার পর আইনগত ব্যবস্থা নিয়েছে পুলিশও। যদিও হুঁশ ফেরেনি তাদের। তার বক্তব্য ছাত্রছাত্রীদের নিরাপত্তায় কোনও গাফিলতি বরদাস্ত করবেন না তারা।

     কলকাতা পুলিশ ও পরিবহণ দফতরের সহযোগিতায় স্কুল বাস ও পুলকার চালকদের প্রশিক্ষণতায় একটি কর্মশালার আয়োজন করা হয়। সেখানে পুলিশের পক্ষ থেকে তাদেরকে স্মরণ করিয়ে দেওয়া হয় পথ নিরাপত্তা সংক্রান্ত আইন কানুনও। পরিবহন দফতরের তরফে এদিন এক নির্দেশিকায় বলা হয়েছে,

    স্কুল অফিস বাসে একটি ছোট সাইজের জলের ট্যাঙ্ক অথবা দু-তিনটি বোতলে জল রাখা বাধ্যতামূলক করতে হবে। কলকাতা শহরে দু’বছরের বাস চালানোর অভিজ্ঞতা থাকলে তবেই স্কুল বাস চালাতে পারবেন চালক। ২০ বছরের নীচে স্কুল বাসে সহ চালক নেওয়া যাবে না। ছাত্র ছাত্রীদের বাস থেকে নামানোর সময় স্কুল গেটের কাছে বাসকে রাখতে হবে যাতে ছাত্রছাত্রীকে রাস্তা পার করতে না হয়। বাড়িতে নামানোর সময়েও বাড়ির দিকেই রাখতে হবে বাসকে, সেটা সম্ভব না হলে সহ চালককে দিয়ে রাস্তা পার করিয়ে দিতে হবে। মেয়েদের স্কুলের বাসকে বেশি মাত্রায় সাবধানতা অবলম্বন করতে হবে ।

    স্কুল ট্রিপ বা অফিস ট্রিপ করার আগে বাসের ব্রেক, টায়ার, রেডিয়েটার, লাইট, তেল ইত্যাদি ভাল করে চেক করে নিতে হবে ।তবে একটি কর্মশালা দিয়ে স্কুলবাস ও পুলকার চালকদের কতটা সচেতন করা যাবে তা নিয়ে প্রশ্ন থেকেই যাচ্ছে।

    First published: