corona virus btn
corona virus btn
Loading

মুর্শিদাবাদকাণ্ডে হাইকোর্টে জনস্বার্থ মামলা দায়ের

মুর্শিদাবাদকাণ্ডে হাইকোর্টে জনস্বার্থ মামলা দায়ের

মুর্শিদাবাদ মেডিক্যালের অগ্নিকাণ্ডের ঘটনায় হাইকোর্টে জনস্বার্থ মামলা। আমরির পর কী কী ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে? এই ঘটনায় দায় কার? এইসব প্রশ্ন তুলেই দায়ের হয়েছে মামলা।

  • Share this:

#কলকাতা: মুর্শিদাবাদ মেডিক্যালের অগ্নিকাণ্ডের ঘটনায় হাইকোর্টে জনস্বার্থ মামলা। আমরির পর কী কী ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে? এই ঘটনায় দায় কার? এইসব প্রশ্ন তুলেই দায়ের হয়েছে মামলা। অন্যদিকে, আজ মুর্শিদাবাদ মেডিক্যালে গিয়ে, সিবিআই তদন্তের দাবি জানালেন অধীর চৌধুরী। ধৃত কংগ্রেস কর্মী পল্টুকে ফাঁসানো হয়েছে বলেও ফের একবার সরব প্রদেশ কংগ্রেস সভাপতি।

মুর্শিদাবাদ মেডিক্যাল কলেজ ও হাসপাতালের অগ্নিকাণ্ডের ঘটনায় চাপ বাড়ছে প্রশাসনের উপর। একদিকে হাইকোর্টে জনস্বার্থ মামলা। অন্যদিকে কংগ্রেসের লাগাতার বিরোধিতা। অগ্নিকাণ্ডের ঘটনায় মঙ্গলবার হাইকোর্টে জনস্বার্থ মামলা দায়ের করা হয়েছে। মামলা দায়ের করে যে প্রশ্নগুলির উত্তর জানতে চাওয়া হয়েছে তা হল,

- আমরির পর কী কী ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে?

- এই ঘটনায় দায় কার?

 অগ্নিকাণ্ড এবং দলীয় কর্মীর গ্রেফতারিকে হাতিয়ার করে শাসকদের উপর চাপ বাড়াতে তৎপর অধীর চৌধুরী। এদিনই মুর্শিবাদ মেডিক্যালে যান প্রদেশ কংগ্রেস সভাপতি। কথা বলেন ধৃত দলীয় কর্মী অমল গুপ্ত ওরফে পল্টুর সঙ্গে। কংগ্রেসের রোগী সহায়তা কেন্দ্রের দেখভালের দায়িত্বে রয়েছেন পল্টু। ঘটনায় সিবিআই তদন্তেরও দাবি জানান অধীর।

ষড়যন্ত্রের অভিযোগে গ্রেফতার হলেও, মুর্শিদাবাদ মেডিক্যালে বেশ জনপ্রিয় পল্টু। এদিন অধীরের কাছেও পল্টুকে ছাড়ানোর আর্জি জানান হাসপাতালের সহায়িকারা।

কিন্তু কে এই পল্টু ?

- আদতে বহরমপুর পুরসভার কর্মী পল্টু - কিন্তু সকাল থেকে রাত পর্যন্ত হাসপাতালেই পড়ে থাকতেন - প্রায় ২০ বছর ধরে কংগ্রেস পরিচালিত রোগী সয়াহতা কেন্দ্রের সঙ্গে জড়িত - দূর থেকে আসা রোগীদের ডাক্তার দেখানো, এক্স-রে, রক্ত পরীক্ষায় সাহায্য করতেন পল্টু - কোনও রোগীকে কলকাতায় রেফার করলে তাঁদের অ্যাম্বুলান্সের ব্যবস্থাও করে দিতেন - কোনও সহায়িকা কোন শিফটে কাজ করবেন পল্টু তা ঠিক করে দিতেন - চিকিৎসক বা চিকিৎসা কর্মী দেরিতে এলে তাঁদের শাসনি দিতেন পল্টুই

এইসবের মধ্যেই নিজেদের তদন্ত জারি রেখেছে সিআইডি। এদিন হাসপাতালের চতুর্থ শ্রেণির কর্মীদের জিজ্ঞাসাবাদ করেন সিআইডি আধিকারিকরা। শনিবার উদ্ধারকাজে হাত লাগানো বেশ কয়েকজনকেও জিজ্ঞাসাবাদ করে রাজ্য গোয়েন্দা সংস্থা।

শনিবার সকালে আচমকাই মুর্শিদাবাদ মেডিক্যাল কলেজ আগুন লাগে হাসপাতালের দোতলার ভিআইপি কেবিনে। আতঙ্কে তাড়াহুড়ো করে নামতে গিয়ে পদপিষ্ট হয়ে মৃত্যু হল হাসপাতালের এক সহায়িকার ও এক রোগীর আত্মীয়ের। মৃত্যু হয় এক সদ্যজাতেরও ৷ এর পাশাপাশি আগুনের প্রচণ্ড ধোঁয়ায় অসুস্থ পড়েন বহু মানুষ ৷ মৃতদের পরিবারকে ২ লক্ষ টাকা করে ক্ষতিপূরণ দেওয়ার কথা ঘোষণা করার সঙ্গে সঙ্গে তৎক্ষণাৎ সিআইডি তদন্তের নির্দেশ দেন মুখ্যমন্ত্রী ৷ গাফিলতি ধরা পড়লে কাউকে রেয়াত করা হবে না বলেও সাফ জানিয়ে দিয়েছেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।

First published: August 30, 2016, 7:24 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर