corona virus btn
corona virus btn
Loading

হাওড়া ব্রিজে হুলস্থূল, ব্রিজে চড়ে বসলেন এক মানসিক ভারসাম্যহীন ব্যক্তি

হাওড়া ব্রিজে হুলস্থূল, ব্রিজে চড়ে বসলেন এক মানসিক ভারসাম্যহীন ব্যক্তি

হাওড়া ব্রিজের মাথায় ফের এক যুবক। দু-ঘণ্টার রুদ্ধশ্বাস নাটক। যুবককে নামাতে কালঘাম ছুটল দমকল, বিপর্যয় মোকাবিলা বাহিনীর।

  • Share this:

#কলকাতা: হাওড়া ব্রিজের মাথায় ফের এক যুবক। দু-ঘণ্টার রুদ্ধশ্বাস নাটক। যুবককে নামাতে কালঘাম ছুটল দমকল, বিপর্যয় মোকাবিলা বাহিনীর। কিছুতেই নীচে আসবে না সে। কাকুতি. মিনতি, বলপ্রয়োগ। কাজে আসেনি কিছুই।শেষমেয়ে জোর-জবরদস্তি করেই হাত, মুখ বেধে নীচে নামানো হল তাকে। যুবক মানসিক ভারসাম্যহীন বলে অনুমান পুলিশের।

সকাল দশটা। অফিস টাইমে হাওড়াব্রিজে তখন গাড়ির ঢল। আচমকাই পথচলতি মানুষের চি‍ৎকারে চোখ গেল ব্রিজের মাথায়। আর তাতেই চক্ষুচড়কগাছ। কলকাতা থেকে হাওড়া ব্রিজে ওঠার পথে ৩৬ থেকে ৩৮ নম্বর পোলের মাঝখানে ব্রিজের উপর দিব্বি ঘোরাফেরা করছে এক যুবক। ছুটে আসেন কর্তব্যরত পুলিশ। হাওড়া ও কলকাতা থেকে আসে দমকলের তিনটি ইনজিন। পৌঁছে যায় কলকাতা পুলিশের বিপর্যয় মোকাবিলা দল।

শুরু হয় উদ্ধারকাজ। জীবনের ঝুঁকি নিয়ে ব্রিজে উপর ওঠেন উদ্ধারকারীরা। সঙ্গে বিস্কুট, পাউুটি, কেক, লজেন্স। লক্ষ , এসব দিয়ে কোনওরকমে ভুলিয়ে ভালিয়ে তাকে নীচে নামিয়ে আনা। কিন্তু ভবি ভোলবার নয়। খাবার নয়। যুবক তখন হাওয়া খেতে চায়। আরও উপরে উঠবে সে।

প্রথমে কথা বলার চেষ্টা। কাকুতি মিনতি। মানেনি যুবক। উলটে উদ্ধারকারীদেরই ধাক্কা দিতে শুরু করে। খামচেও দেয় বলে অভিযোগ। এরপরই জোর করে তার হাত-মুখ বেধে রোপিং সিস্টেমে নীচে নামিয়ে আনেন উদ্ধারকারীরা।

দুঘণ্টা ধরে চলে এই নাটক। ততক্ষণে হাওড়া ব্রিজে ছড়িয়ে পড়েছে তীব্র যানজট । যুবকের কীর্তি দেখতে দাঁড়িয়ে পড়েন বহু পথচলতি মানুষ। এর আগেও বহুবার হাওড়া ব্রিজের মাথায় উঠে পড়ার উদাহরণ রয়েছে। কেউ নিজেই নেমে এসেছেন। কাউকে নামাতে জীবনের ঝুঁকি নিতে হয়েছে উদ্ধারকারীদের। ঘটনায় ফের একবার হাওড়া ব্রিজের নিরাপত্তা নিয়ে প্রশ্ন উঠল।

First published: July 14, 2017, 8:06 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर