corona virus btn
corona virus btn
Loading

মুক্ত মাওবাদী নেতা গৌর চক্রবর্তী

মুক্ত মাওবাদী নেতা গৌর চক্রবর্তী

অবশেষে মুক্তি পেলেন মাওবাদী নেতা গৌরনারায়ণ চক্রবর্তী ৷ মঙ্গলবার বিচারক কুমকুম চক্রবর্তীর নির্দেশে ইউএপিএ মামলা থেকে অব্যাহতি পেলেন মাওবাদী মুখপাত্র গৌরনারায়ণ চক্রবর্তী ৷

  • Share this:

#কলকাতা: সাত বছর আইনি লড়াইয়ের পর অবশেষে মুক্তি পেলেন মাওবাদী নেতা গৌরনারায়ণ চক্রবর্তী ৷ মঙ্গলবার বিচারক কুমকুম চক্রবর্তীর নির্দেশে ইউএপিএ মামলা থেকে বেকসুর মুক্তি পেলেন রাজ্যের মাওবাদীদের প্রথম প্রকাশ্য মুখপাত্র গৌরনারায়ণ চক্রবর্তী।  এদিনের রায়ে তিনিই রাজ্যের প্রথম মুক্তি পাওয়া মাওবাদী বন্দি ৷

লালগড়ের আন্দোলন তখন মধ্যগগনে। সশস্ত্র সংগ্রাম এবং গণ আন্দোলন একজোট হয়ে কার্যত মুক্তাঞ্চল করে তুলেছে লালগড়কে। সে সময় প্রথম প্রকাশ্যে নিজেকে মাওবাদীদের মুখপাত্র হিসেবে ঘোষণা করেন গৌরনারায়ণ চক্রবর্তী।

বাম আমলের শেষ দিকে ২০০৯ সালে ২৩ জুন গ্রেফতার করা হয় স্বঘোষিত মাওবাদী মুখপাত্র গৌরনারায়ণ চক্রবর্তীকে ৷ মাওবাদী আন্দোলনে যুক্ত থাকার অভিযোগে গ্রেফতার করা হয় তাঁকে ৷ UAPA-র ২০ নং ধারায় অভিযোগ আনা হয় এই মাওবাদী নেতার বিরুদ্ধে ৷

২০০৮ সালের ২ নভেম্বর, শালবনি থেকে মুখ্যমন্ত্রী বুদ্ধদেব বসু ফেরার সময় তাঁর কনভয়ে কৌটো বোমা বিস্ফোরণ ঘটায় মাওবাদীরা ৷ কনভয়ে মুখ্যমন্ত্রী ছাড়াও একাধিক কেন্দ্রীয় মন্ত্রীরাও ছিলেন ৷

তারপর ২০০৯ সালের ২২ জুন সিপিআই মাওবাদীকে নিষিদ্ধ সংগঠন বলে ঘোষণা করে কেন্দ্রীয় সরকার ৷ এর একদিন পরেই অর্থাৎ ২৩ জুন ২০০৯ সালে কলকাতা থেকে গ্রেফতার করা হয় গৌরনারায়ণ চক্রবর্তীকে ৷ একটি বেসরকারি নিউজ চ্যানেলে সাক্ষাৎকার চলাকালীন তাঁকে বন্দী করে পুলিশ ৷ তৎকালীন গোয়েন্দা পুলিশ প্রধান জাভেদ শামিম জানান, ‘নিষিদ্ধ মাও সংগঠনের মুখপাত্র হওয়ায় গ্রেফতার করা হল গৌর চক্রবর্তীকে ৷ ’

প্রাথমিকভাবে গৌরনারায়ণের বিরুদ্ধে ১২০এ, ১২১, ১২২,১২৩ ধারায় মোট পাঁচটি মামলা রুজু করা হয় ৷ পুলিশ পরে নগর দায়রা আদালতে UAPA ২০ নং ধারায় চার্জ গঠন করে ৷ নিষিদ্ধ জঙ্গী সংগঠনের সদস্য হওয়ায় গৌরনারায়ণ চক্রবর্তীর বিরুদ্ধে এই চার্জ আনে পুলিশ ৷ যার সাজা যাবজ্জীবন কারাদণ্ড ৷

ইতিমধ্যেই দুটি মামলায় বেকসুর খালাসের নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। দুটি মামলায় জামিন পেয়েছেন তিনি। সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ মামলায় রায় ঘোষণা হল মঙ্গলবার। দীর্ঘ আইনি লড়াইয়ের পর অবশেষে আনলফুল অ্যাক্টিভিটিজ প্রিভেনশন অ্যাক্টের মামলা থেকে অব্যাহতি পেলেন ৮০ বছরের তাত্ত্বিক নেতা গৌর চক্রবর্তী।

রাজ্যে সরকার পরিবর্তনের পর ২০০৯-এ রাজনৈতিক বন্দির স্বীকৃতি চেয়ে কেন্দ্রের দ্বারস্থ হয়েছিলেন ৭০ বছর বয়সী গৌর চক্রবর্তী ৷ ব্যাঙ্কশাল কোর্টের বিচার ভবনে দ্বিতীয় অতিরিক্ত দায়রা বিচারক সঞ্চিতা সরকারের এজলাসে চলতি বছরের জানুয়ারি মাসেই শেষ হয়েছে সেই মামলারই শুনানি ৷ এদিন নগর দায়রা আদালত সমস্ত অভিযোগ থেকে মুক্তি দেয় গৌরনারায়ণ চক্রবর্তীকে ৷ সাত বছর ধরে প্রেসিডেন্সি জেলে বন্দি থাকার পর এদিন মুক্ত হলেন প্রাক্তন মাও মুখপাত্র ৷

First published: July 20, 2016, 10:23 AM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर