• Home
  • »
  • News
  • »
  • kolkata
  • »
  • MADAN MIRTA IS IN TROUBLE BEACUSE OF CONDITION GIVEN BY COURT AT THE TIME OF BAIL

জামিনের শর্তে আজব সমস্যায় মদন মিত্র

সমস্যার বেড়াজালে বন্দি মদন মিত্র ৷ এক সমস্যা শেষ হতে না হতেই আরেকটি হাজির ৷ এবার আদালতের জামিনের শর্তে বিপাকে পড়েছেন সদ্য জামিনে মুক্ত মদন মিত্র ৷

সমস্যার বেড়াজালে বন্দি মদন মিত্র ৷ এক সমস্যা শেষ হতে না হতেই আরেকটি হাজির ৷ এবার আদালতের জামিনের শর্তে বিপাকে পড়েছেন সদ্য জামিনে মুক্ত মদন মিত্র ৷

  • Pradesh18
  • Last Updated :
  • Share this:

    #কলকাতা: সমস্যার বেড়াজালে বন্দি মদন মিত্র ৷ এক সমস্যা শেষ হতে না হতেই আরেকটি হাজির ৷ এবার আদালতের জামিনের শর্তে বিপাকে পড়েছেন সদ্য জামিনে মুক্ত মদন মিত্র ৷ শর্ত মানলেও বিপদ আর না মানলে শর্ত ভঙ্গ ৷

    ২২ মাসের বন্দীদশা ও বহু শুনানির পর গত ৯ সেপ্টেম্বর অবশেষে মদন মিত্রের জামিন মঞ্জুর করে নিম্ন আদালত ৷ জামিনের পরিবর্তে বেশ কতগুলি শর্ত দেয় আলিপুর কোর্ট ৷ তার মধ্যে লেখা দুটি শর্ত নিয়েই সমস্যায় পড়েছেন এই তৃণমূল নেতা ৷ এই দোটানার মাঝেই এক শর্তে রাখার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন মদন মিত্র বলে খবর ৷

    শর্তের গেরোয় মদন ৷ জামিননামায় লেখা রয়েছে তদন্তকারী অফিসারের সঙ্গে সপ্তাহে একদিন দেখা করতে হবে জামিনে মুক্ত মদন মিত্রকে ৷ সেক্ষেত্রে তাঁকে সিজিও কমপ্লেক্সে যেতে হবে ৷ এই শর্ত নিয়েই বিপাকে পড়েছেন ‘অভাবশালী’ নেতা ৷ কারণ, জামিনের আরেক শর্তে পরিষ্কার করে লেখা রয়েছে ভবানীপুর থানা এলাকার বাইরে বেরোতে পারবেন না এই তৃণমূল নেতা ৷ তাহলে কীভাবে যাবেন বিধাননগরে CBI দফতরে? এই নিয়েই উঠছে প্রশ্ন ৷

    অন্যদিকে, জেল থেকে বেরোবার পর সাত দিনে একবার হাজিরা দেওয়ার নির্দেশ আদালতের এবং সেই সাত দিন সময়সীমা শেষ হচ্ছে আজ অর্থাৎ বৃহস্পতিবার ৷ কিন্তু আজ CBI দফতরে যাচ্ছেন না মদন মিত্র ৷ তাঁর আইনজীবী জানিয়েছেন, জামিন শর্তের বিভ্রান্তি কাটাতে আলিপুর জেলা ও দায়রা  আদালতে আবেদন করেছেন তিনি ৷ আবেদনের নির্দেশের নিষ্পত্তি না হওয়া পর্যন্ত কোথাও যাবেন না তিনি ৷

    সব মিলিয়ে শর্তের গেরোয় আটকে এখন হাঁসফাঁস অবস্থা কামারহাটির মদন মিত্রের ৷ আগে থেকেই বেল অর্ডারের একটি ক্লারিকাল মিসটেকে বাড়ি ফেরা হয়নি তাঁর ৷

    আরও পড়ুন

    মদন মিত্রের জামিন খারিজে সিবিআইয়ের আবেদন ফেরাল হাইকোর্ট

    প্রকৃত ঠিকানা ভবনীপুর থানা এলাকা। কিন্তু বেল অর্ডারে তা লেখা রয়েছে কালীঘাট থানা এলাকা। আদেশনামার এই গেরোতেই এখনই বাড়ি ফেরা হল না মদন মিত্রের। জেল থেকে বেরিয়ে সোজা এলগিন রোডের হোটেলে ওঠেন তিনি।আইন অনুযায়ী, নির্দেশনামা সংশোধন না হলে, বাড়ি ফেরা যাবে না। এবার সেই ভুলের জন্য আরও বড় মাসুল দিতে হচ্ছে তাঁকে ৷  কোনও একটি শর্তের খেলাপ হলে তা হাতিয়ার হিসেবে জামিন খারিজের মামলায় ব্যবহার করতে পারে CBI , সেই আশঙ্কাও কাজ করছে তাঁর মনে ৷

    ২২ মাস বন্দিদশার পর মিলেছে মুক্তির আলো ৷ এর আগেও জামিন পেয়েও ফিরতে হয়েছে জেলে ৷ তাই খুব সাবধানে পা ফেলছেন মদন মিত্র ৷ কোনওরকম নিয়ম ভাঙতে চান না তিনি ৷ আদালতের দেওয়া সব শর্ত মাথা পেতে মেনে নিতে চান. কিন্তু এবার সামনে আজব সমস্যা ৷ শর্ত মানলেও সমস্যা না মানলে আরও বড় বিপদ ৷ তাই এখন ‘সবচেয়ে বড় প্রভাবশালী’ ভগবানই আশ্রয় মদনগোপাল মিত্রের।

    First published: