Home /News /kolkata /
শিক্ষক নিয়োগের নয়া বিলের বিরোধিতায় বামেরা, পাল্টা কটাক্ষ শিক্ষামন্ত্রীর

শিক্ষক নিয়োগের নয়া বিলের বিরোধিতায় বামেরা, পাল্টা কটাক্ষ শিক্ষামন্ত্রীর

বুধবার বিধানসভায় পাশ হয়ে গেল বহু প্রতীক্ষিত এসএসসি সংশোধনী বিল ৷ এর ফলে পরিবর্তিত রাজ্যে শিক্ষকপদে নিয়োগ ব্যবস্থায় এল প্রচুর পরিবর্তন ৷

  • Pradesh18
  • Last Updated :
  • Share this:

    #কলকাতা: বুধবার বিধানসভায় পাশ হয়ে গেল বহু প্রতীক্ষিত এসএসসি সংশোধনী বিল ৷ এর ফলে পরিবর্তিত রাজ্যে শিক্ষকপদে নিয়োগ ব্যবস্থায় এল প্রচুর পরিবর্তন ৷ যদিও বিধানসভায় এই বিলের বিরোধিতা করে বামফ্রণ্ট ৷ তাদের দাবি এই বিলের মাধ্যমে ক্ষমতা কুক্ষিগত করছে সরকার ৷

    বিধানসভায় এই সংশোধনী বিলটি পাশ হওয়ার পর  শিক্ষামন্ত্রী পার্থ চট্টোপাধ্যায় জানালেন,‘আগে ৫টি রিজিওন থেকে নিয়োগ হত ৷ কোন অঞ্চলে কটা শূন্যপদ তা পাঠাত রিজিওনগুলি ৷ অঞ্চল অনুযায়ী শূন্যপদে নিয়োগ করত কমিশন ৷ এবার থেকে কেন্দ্রীয় ভাবেই নিয়োগ করবে SSC ৷ এর ফলে যোগ্য প্রার্থী চাকরি পাবে, কমবে দুর্নীতিও ৷’

    বিলের এই জায়গাতেই আপত্তি জানায় বামেরা ৷ তাদের বক্তব্য, এর মাধ্যমে আঞ্চলিক বোর্ডগুলির ক্ষমতা খর্ব করছে শাসক দল ৷ তাদের দাবি, দুর্নীতির অভিপ্রায়ে ক্ষমতা কুক্ষিগত করতে চাইছে সরকার ৷

    বামেদের এই দাবির জবাবে শিক্ষামন্ত্রী পার্থ চট্টোপাধ্যায়, ‘রিজিয়ন কোনও স্বায়ত্তশাসন সম্পূর্ণ বা স্বাধীন বিভাগ নয় ৷ এটা রাজ্য সরকারের শিক্ষা দফতরের নির্দেশেই কাজ করে ৷’ বিরোধী বামেদের বিরুদ্ধে পাল্টা কটাক্ষ করে শিক্ষামন্ত্রী বলেন- ‘দুধে যে জল মেশানো হচ্ছে এই সুযোগে সেটা আটকানো সম্ভব হবে বলেই বিরোধীরা অসুবিধা বোধ করছেন এবং চেঁচামেচি করছেন ৷’

    বিধানসভায় এই এসএসসি বিল অর্থাৎ দি ওয়েস্ট বেঙ্গল স্কুল সার্ভিস কমিশন সংশোধনী বিল ২০১৬ পাশের পর রাজ্যের শিক্ষক নিয়োগ প্রক্রিয়ার খোলনলচে বদলে গেল ৷ এই বিল পাশ হওয়ার পর শিক্ষাব্যবস্থায় যে পরিবর্তন এল, তা হল-

    ১) এবার থেকে আর অঞ্চল ভিত্তিক কোনও শিক্ষক নিয়োগ হবে না ৷ মোট শূন্যতা পদের ভিত্তিতে শিক্ষকদের স্টেট লেভেল সিলেকশন পদ্ধতিতে বাছাই করা হবে ৷

    ২) রাজ্যে শিক্ষক নিয়োগের ক্ষেত্রে শুধুমাত্র যোগ্যতাই হবে একমাত্র মাপকাঠি ৷

    ৩) সংশোধনী বিল পাশ হওয়ার পর শিক্ষক নিয়োগের ক্ষেত্রে পুলিশ ভেরিকেশন ও মেডিক্যাল সার্টিফিকেটের উপর জোর দেওয়া হবে ৷

    ৪) অসুস্থতার কারণে শিক্ষকদের বদলিতে অগ্রাধিকার দেওয়া হবে ৷ বদলির আবেদনে মহিলাদের অগ্রাধিকার দেওয়ার কথা বলা হয়েছে এই বিলে ৷

    স্কুল সার্ভিস কমিশনের ১৯৯৭ সালের নিয়ম অনুযায়ী গোটা রাজ্যকে পাঁচটি অঞ্চল বা রিজিয়নে ভাগ করে শিক্ষক নিয়োগ সম্পূর্ণ করা হত ৷ সেই নিয়ম অনুযায়ী যে চাকরিপ্রার্থী যে অঞ্চল বা রিজিয়ন থেকে আবেদন করবেন তাকে সেই রিজিয়নেই নিয়োগ করা হত ৷ এতে অনেক অঞ্চলে শূন্য পদ ভরত না ৷ আবার অনেক অঞ্চলে পাশ করার পরও শূন্যপদ না থাকায় নিয়োগে সমস্যা তৈরি হত ৷ নয়া নিয়মে সে সমস্যা মিটে যাবে ৷

    তবে এই নয়া নিয়মে চাকরির নি্য়োগে ক্ষমতার অপব্যবহার হতে পারে বলে আশঙ্কা প্রকাশ করেছে বিরোধীরা ৷

    First published:

    Tags: Cpim, Education Minister, Leftfront, Partha Chatterjee, SSC New Bill

    পরবর্তী খবর