নারী পাচারে উদ্বিগ্ন কলকাতা হাইকোর্ট, স্ট্যান্ডার্ড অপারেটিং প্রসিডিওর গড়তে পরামর্শ

নারী পাচার রুখতে রাজ্যকে স্ট্যান্ডার্ড অপারেটিং প্রসিডিওর গড়ার পরামর্শ দিল হাইকোর্ট।

নারী পাচার রুখতে রাজ্যকে স্ট্যান্ডার্ড অপারেটিং প্রসিডিওর গড়ার পরামর্শ দিল হাইকোর্ট।

  • Pradesh18
  • Last Updated :
  • Share this:

    #কলকাতা: নারী পাচার রুখতে রাজ্যকে স্ট্যান্ডার্ড অপারেটিং প্রসিডিওর গড়ার পরামর্শ দিল হাইকোর্ট। নারী পাচার নিয়ে আজ গভীর উদ্বেগ প্রকাশ করেন বিচারপতি জয়মাল্য বাগচি। নানুরের কিশোরী নিখোঁজ মামলায় আদালতে সশরীরে হাজিরা দেন তৎকালীন এসএস সিআইডি। তাঁকে এজলাসে রেখেই নারী পাচারকারীদের রুখতে কড়া দাওয়াই বাতলে দেন বিচারপতি বাগচি।

    রাজ্যে দিন দিন বেড়েই চলেছে নারী পাচারের সংখ্যা। দুই পরগনা এবং উত্তরবঙ্গের কিছু জেলা আড়কাঠিদের সফট টার্গেট। থানায় নিখোঁজ ডায়েরি থেকে তদন্ত শুরুর মাঝের সময়ে, সুকৌশলে পুলিশের চোখে ধুলো দিচ্ছে পাচারকারীরা। তাই আড়কাঠিদের এই কৌশলকে ভোঁতা করতে দাওয়াই বালতে দিলেন বিচারপতি জয়মাল্য বাগচি। নারী পাচার রুখতে রাজ্যকে স্ট্যান্ডার্ড অপারেটিং প্রসিডিওর বা এসওপি তৈরির পরামর্শ দেন বিচারপতি। বীরভূমের নানুরের এক কিশোরী নিখোঁজ মামলায় এদিন রাজ্যকে পরামর্শ দেন বিচারপতি বাগচি।

    পাচার রুখতে কোর্টের দাওয়াই ৷ এক ছাতার তলায় থাকবে রাজ্যের সমস্ত নিখোঁজ ডায়েরির তথ্য ৷ থানায় নিখোঁজ ডায়েরি হওয়া মাত্রই তা আপলোড হয়ে যাবে সিআইডি-র ওয়েবসাইটে নিখোঁজের ছবি সহ সব তথ্য থাকবে সেখানে ৷ একইসঙ্গে নিখোঁজ ডায়েরি সম্পর্কে জানানো হবে মিসিং পার্সন স্কোয়াডকে ৷ কেন্দ্রীয় স্তরে ব্যবস্থা গড়ায় জোর প্রয়োজনে নেওয়া যাবে তদন্তকারী সংস্থাগুলির সাহায্যও ৷

    ২০১৫-র তেরোই মার্চ নানুর থেকে রহস্যজনক ভাবে নিখোঁজ হয়ে যায় এক কিশোরী। দুর্গাপুরের সুগত মালিকের বিরুদ্ধে নির্দিষ্টি অভিযোগ থাকা সত্বেও এফআইআর দায়ের করেনি পুলিশ। শুধু নিখোঁজ ডায়েরিই করা হয়েছিল। তাই মেয়ের খোঁজে হাইকোর্টে মামলা করেন চণ্ডীধর ঘোষ। বছর ঘুরলেও কিশোরী ঘরে না ফেরায় উদ্বিগ্ন হাইকোর্টে। তদন্তে সন্তুষ্ট না হয়ে, এদিন তৎকালীন এসএস ডিআইডি সোমা মিত্র দাসকে হাজিরার নির্দেশ দেয় হাইকোর্ট। তাঁকে এজলাসে রেখেই নারী পাচার রুখতে কড়া বার্তা দেন বিচারপতি। কিশোরী নিখোঁজের তদন্তভারও এদিন পুরোপুরি তুলে দেন এসএস সিআইডির হাতে। দু্'সপ্তাহর পর এই মামলার পরবর্তী শুনানি।

    First published: