Home /News /kolkata /
অমানবিক শিক্ষিকা! ২ পড়ুয়াকে বেঁধে, মুখে রুমাল গুঁজে চলল মারধর

অমানবিক শিক্ষিকা! ২ পড়ুয়াকে বেঁধে, মুখে রুমাল গুঁজে চলল মারধর

Representational Image

Representational Image

অমানবিক শিক্ষিকা! ২ পড়ুয়াকে বেঁধে, মুখে রুমাল গুঁজে চলল মারধর

  • Last Updated :
  • Share this:

    #কলকাতা: শাসনের নামে শিক্ষিকার অত্যাচার। টেবল পরিস্কার না করায় দুই খুদে পড়ুয়াকে পিছমোড়া করে বেঁধে, মুখে রুমাল গুঁজে মার প্রধান শিক্ষিকার। ঘটনার জেরে প্রিন্স আনওয়ার শাহ রোডের রাজেন্দ্র শিক্ষাসদন স্কুলে আজ তীব্র উত্তেজনা ছড়ায়। পুলিশ অভিযুক্ত দীপিকা ঘোষকে আটক করেছে। তাঁকে সাসপেন্ড করা হয়েছে।

    মিড ডে মিলের পর পরিস্কার করতে হবে টেবল। দুই পড়ুয়াকে এমনই নির্দেশ দিয়েছিলেন প্রধান শিক্ষিকা। কিন্তু, তা নিয়ে আপত্তি তুলেছিল দ্বিতীয় শ্রেণির দুই পড়ুয়া। তাতেই ক্ষিপ্ত হয়ে নির্মম অত্যাচার শিক্ষিকার। গত শুক্রবার প্রিন্স আনওয়ার শাহ রোডের রাজেন্দ্র প্রসাদ শিক্ষাসদনের প্রধান শিক্ষিকা দীপিকা ঘোষের বিরুদ্ধে এমন অভিযোগ ওঠে। যাদবপুর থানায় অভিযোগ দায়ের হয়। মঙ্গলবার, স্কুল চত্বরে বিক্ষোভে ফেটে পড়েন অভিভাবকরা।

    কেমন ছিল প্রধান শিক্ষিকার সেই সহবৎ শিক্ষা? প্রথমে দুই খুদের হাত-পা পিছমোড়া করে বেঁধে দেওয়া হয়। এরপর, চিৎকার থামানোর জন্য ঘর বন্ধ করে মুখে রুমাল গুঁজে দিয়ে চলে বেধড়ক মার।

    দিন কয়েক আগে দাসনগর প্রাথমিক স্কুল থেকে বদলি হয়ে রাজেন্দ্র প্রসাদ স্কুলে আসেন শিক্ষিকা দীপিকা ঘোষ। তাঁর আচরণে ক্ষুব্ধ সহ শিক্ষিকারাও।

    পুলিশ ওই শিক্ষিকাকে আটক করেছে। ইতিমধ্যেই তাঁকে সাসপেন্ড করা হয়েছে। পড়ুয়াদের গায়ে হাত নয়। এনিয়ে নির্দিষ্ট নির্দেশিকাও রয়েছে। কিন্তু, তা লঙ্ঘনের ঘটনাও ঘটছে বারবার।

    জেলা প্রাথমিক বিদ্যালয় সংসদ চেয়ারম্যান কার্তিক মান্না জানান, ‘এই ঘটনা কোনওভাবে বরদাস্ত নয় ৷ পুলিশকে প্রয়োজনীয় পদক্ষে করতে বলেছি ৷ আহত পড়ুয়াদের চিকিৎসার খরচ বহন করব আমরা ৷’

    First published:

    Tags: Inhuman punishment, Kolkata, School Teacher, Students Beaten Up