• Home
  • »
  • News
  • »
  • kolkata
  • »
  • সর্বদল বৈঠকে আশার আলো, ৭৮ দিন বনধের পর অচলাবস্থা কাটতে চলেছে পাহাড়ে

সর্বদল বৈঠকে আশার আলো, ৭৮ দিন বনধের পর অচলাবস্থা কাটতে চলেছে পাহাড়ে

সর্বদল বৈঠকে আশার আলো, ৭৮ দিন বনধের পর অচলাবস্থা কাটতে চলেছে পাহাড়ে

সর্বদল বৈঠকে আশার আলো, ৭৮ দিন বনধের পর অচলাবস্থা কাটতে চলেছে পাহাড়ে

সর্বদল বৈঠকে আশার আলো, ৭৮ দিন বনধের পর অচলাবস্থা কাটতে চলেছে পাহাড়ে

  • Share this:

     #কলকাতা: অবশেষে ৭৮ দিন পর অচলাবস্থা কাটতে চলেছে পাহাড়ে। আজ নবান্নে সর্বদলীয় বৈঠকে সবপক্ষই ইতিবাচক হয়েছে বলে মন্তব্য করেছে। ১২ সেপ্টেম্বর শিলিগুড়ির উত্তরকন্যায় পরবর্তী বৈঠক। বনধ প্রত্যাহার নিয়ে এদিন কোনও ঘোষণা না হলেও খুব দ্রুতই পাহাড়ে পরিস্থিতি স্বাভাবিক হওয়ার ইঙ্গিত দিয়েছে আন্দোলনকারীরা।

    কেন্দ্রীয় কমিটির সঙ্গে আলোচনার পরই বনধ তোলার প্রক্রিয়া শুরু হবে। মোর্চা নেতাদের বার্তাতেও তা স্পষ্ট। পাহাড়ের নেতারা স্বাভাবিকভাবেই গোর্খাল্যান্ডের দাবি তুলেছিলেন। কিন্তু বিষয়টি রাজ্য সরকারের এক্তিয়ারভুক্ত নয় বলেই জানিয়ে দেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। তিনি বলেন, ‘আজ পাহাড়ের ৪টি দল যোগ দিয়েছে ৷ পাহাড়ের দলগুলি গোর্খাল্যান্ডের দাবি তুলেছে ৷ ওটা আমাদের এক্তিয়ারের মধ্যে নয় ৷ শান্তি-শৃঙ্খলা ফেরানো নিয়ে কথা হয়েছে ৷’

    পাহাড় নিয়ে রাজ্যের এই অবস্থান রীতিমতো তাৎপর্যপূর্ণ। পাহাড়ের আবেগ ও দাবির বিষয়টি মাথায় রেখে শান্তি ফেরানোর পথে হাঁটতেই এই বার্তা বলে মনে করা হচ্ছে। পাহাড় আন্দোলনকারীদের বাধ্যবাধকতা বুঝেই যে সমস্যা সমাধানের পথে হাঁটা হচ্ছে, তাও এদিন স্পষ্ট হয়।
    ওঁদের সিদ্ধান্ত নেওয়ার সময় দেওয়া হোক। আলোচনা করে সিদ্ধান্ত নিতে হবে। আমরা জোর করে চাপিয়ে দিতে পারি না। তাই কথা চালিয়ে যাওয়া হবে।
    -- মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়, মুখ্যমন্ত্রী মুখ্যমন্ত্রীর এই প্রস্তাবে সম্মতি দিয়েছে মোর্চাও। বিনয় তামাং বলেন, ‘আমরা পাহাড়ে গিয়ে আলোচনা করে সিদ্ধান্ত নেব ৷’

    পাশাপাশি, পৃথক রাজ্যের দাবি তোলাটা পাহাড়ের নেতাদের স্বাভাবিক ও মৌলিক অধিকার বলে তাৎপর্যপূর্ণ মন্তব্য করেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। সবমিলিয়ে আজ নবান্নে সর্বদল বৈঠকে পাহাড়ের পরিস্থিতি স্বাভাবিক হওয়ার পথে বেশ খানিকটা এগিয়ে গেল।

    First published: