Home /News /kolkata /
দশমীতেই হবে বাড়ির পুজোর বিসর্জন, হাইকোর্টের রায়ে বাড়ল সময়সীমা

দশমীতেই হবে বাড়ির পুজোর বিসর্জন, হাইকোর্টের রায়ে বাড়ল সময়সীমা

দশমীর দিনই হবে বিসর্জন ৷ বাড়ির পুজোর বিসর্জন দশমীতেই করার পক্ষে নির্দেশ দিল হাইকোর্ট ৷

  • Pradesh18
  • Last Updated :
  • Share this:

    #কলকাতা: দশমীর দিনই হবে বিসর্জন ৷ বাড়ির পুজোর বিসর্জন দশমীতেই করার পক্ষে নির্দেশ দিল হাইকোর্ট ৷ একইসঙ্গে বিসর্জনের সময় সীমা বিকেল চারটে থেকে বাড়িয়ে ৬টা করার নির্দেশ দেন বিচারপতি দীপঙ্কর দত্ত ৷ একইসঙ্গে দুর্গাপুজোর প্রতিমা নিরঞ্জন নিয়ে কলকাতা পুলিশের জারি করা বিধিনিষেধের প্রবল সমালোচনা করেন বিচারপতি দীপঙ্কর দত্ত ৷

    পঞ্জিকা মতে আগামী ১১ অক্টোবর বিজয়া দশমী ৷ নিয়ম মতো বনেদি বাড়ি সহ কলকাতার বেশিরভাগ মণ্ডপের প্রতিমা ওই দিন নিরঞ্জন করা হয় ৷ কিন্তু ১২ তারিখই মহরম হওয়ায় কলকাতা পুলিশ শৃঙ্খলা রক্ষায় নির্দেশিকা জারি করে যে, দশমীর দিন বিকেল চারটের পর আর প্রতিমা বিসর্জন দেওয়া যাবে না ৷ এই নির্দেশিকার পরই শুরু হয় বিতর্ক ৷

    বিজয়া দশমীর দিন সূর্যাস্তের পরই প্রতিমা বিসর্জন দেওয়াই বেশ কিছু বনেদী বাড়ির প্রথা ৷ পুলিশের নির্দেশিকা মানতে গেলে ভেঙে যাবে সাবেকী নিয়ম ৷ যা মানতে নারাজ কলকাতার অনেক বনেদী বাড়ি ৷ এই নিয়ে আদালতের দ্বারস্থ হন উত্তর কলকাতার রূপ চাঁদ রায় স্ট্রিটের বাসিন্দা ধর পরিবার ও বিডন স্ট্রিটের দত্ত পরিবার ৷

    সেই মামলার শুনানিতেই এদিন প্রবল সমালোচনার মুখে পড়েন কলকাতা পুলিশ ৷ রাজ্যের ভূমিকা নিয়েও প্রশ্ন তোলেন বিচারপতি দীপঙ্কর দত্ত ৷ বুধবারের শুনানিতে এই নির্দেশিকার কারণ দর্শাতে বলা হয় কলকাতা পুলিশকে ৷ সেই নিয়ে এদিনও আদালত প্রশ্ন তোলেন ৷ সরকারপক্ষের আইনজীবীকে বিচারপতি প্রশ্ন করেন, নিরঞ্জন বন্ধ করার এই নির্দেশ জারির সময় কোন ধারা লাগু করা হয়েছে? তাঁর উত্তরে সরকার পক্ষের আইনজীবী জানান, এছাড়া তাদের কাছে কোনও সমাধান ছিল না ৷

    এতে প্রবল ক্রুদ্ধ বিচারপতি বলেন, ‘পুলিশ অদক্ষ, তাই দুই শোভাযাত্রা একসঙ্গে সামলাতে পারে না ৷’ মহরমের তাজিয়া ও বিসর্জনের শোভাযাত্রা বিঘ্নহীন রাখতে কলকাতা পুলিশকেই বিকল্প পথ খোঁজার নির্দেশ দেন বিচারপতি দীপঙ্কর দত্ত ৷

    হাইকোর্টের বিসর্জন নির্দেশিকা

    দশমীর দিন বিকেল ৪ টের বদলে সন্ধে ৬টা পর্যন্ত প্রতিমা বিসর্জন করা যাবে। বিকেল ৪ টের পর অবশ্য শোভাযাত্রা করা যাবে না। গাড়িতে করে প্রতিমা যাবে নির্দিষ্ট ঘাটে। গাড়িচালক ও খালাসি ছাড়া গাড়িতে সর্বোচ্চ ৫ জন থাকতে পারবেন। বাড়ি ও বিভিন্ন আবাসনের প্রতিমাই বিসর্জন করা হবে।

    কলকাতায় পারিবারিক ও আবাসন মিলে দেড় হাজার পুজো রয়েছে। বিসর্জনে এমন নির্দেশিকা জারি করায় বৃহস্পতিবার হাইকোর্টের সমালোচনার মুখেও পড়েছে পুলিশ।

    First published:

    Tags: Durga Idol, High Court, Immersion, Immersion Time

    পরবর্তী খবর