corona virus btn
corona virus btn
Loading

#DurgaPuja হাতিবাগানে হাজির রাজস্থান

#DurgaPuja হাতিবাগানে হাজির রাজস্থান

হাতিবাগানে এবার রাজস্থানি স্টোরি টেলিং। পাঁচশো বছরের পুরনো কাভাড বাক্সে সেজে উঠছে নবীন পল্লীর মণ্ডপ।

  • Share this:

#কলকাতা: হাতিবাগানে এবার রাজস্থানি স্টোরি টেলিং। পাঁচশো বছরের পুরনো কাভাড বাক্সে সেজে উঠছে নবীন পল্লীর মণ্ডপ। ছোট্ট রঙীন বাক্স ভরতি দেবদেবীর ছবি। এই বাক্স কাঁধেই গ্রামে গ্রামে ঘুরে গল্প শোনান চিতোরের বাসি গ্রামের শিল্পীরা। রাম , সীতা, দুর্গা, শিব, হনুমান, সতীর গল্প। সেই গল্পই এবার কলকাতাকে শোনাতে এসেছেন রাজস্থানের কাভাড শিল্পীরা।

কথায় বলে, চোরা না শোনে ধর্মের কথা।

কিন্তু এই ধর্মের কথা আজও শোনে রাজস্থানের চিতোর। বাসি গ্রামের ঘরে ঘরে আজও বাক্স কাঁধে কাভাড শিল্পীদের অবাধ যাতায়াত। সাইজ বড় জোর এক থেকে দেড় ফুট। লাল শালুতে মোড়া কাঠের বাক্স দেখিয়ে ধর্মের গল্প শোনান শিল্পীরা। পাঁচশো বছরের লিভিং ট্রাডিশন। মোগল আমলে বাড়বাড়ন্ত। মন্দির নেই এমন জায়গায় ধর্ম প্রচারের উদ্দেশ্যেই যাত্রা শুরু। সময় বদলালেও বদলায়নি কাভাড। বাংলার পটচিত্রের মত। শেষ হয়েও যার শেষ নেই।

সেই গল্পই এবার শোনা যাবে বিরাশিতে পা দেওয়া হাতিবাগান নবীন পল্লীতে। মণ্ডপ সাজাতে রাজস্থান থেকে এসেছেন ছজন বিশেষ শিল্পী। এসেছেন বর্ষিয়ান শিল্পী দ্বারকা প্রসাদ জাঙ্গীর। দুর্গার গল্প বলেছেন অনেকবার। কিন্তু এত বড় দুর্গা কখনও আঁকেননি। বাঙালীর দুর্গাপুজো তাঁই এই বয়সেও তাঁর কাছে এক বড় চ্যালেঞ্জ।

মণ্ডপ জোড়া কাভাড। উচ্চতা ছয় ইঞ্চি থেকে কুড়ি ফুট। চারদিকে দুর্গা মার্কণ্ড পুরাণের নানা চরিত্রের ভিড়। দর্শকদের গল্প শোনাবেন কাভাডিয়া ভাট কোজারাও। লোকগান শোনাবেন রাজস্থানের শিল্পী কালুরাম। কাভাডে ফিণিশিং টাচ দেবেন রাষ্ট্রপতি পুরস্কারপ্রাপ্ত শিল্পী সত্যনারায়ণ সুতার । থিমের ভিড়ে এক অন্য পুজোর রেশ এবার উত্তর কলকাতার হাতিবাগান নবীন পল্লীতে।
First published: September 12, 2016, 7:10 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर