Home /News /kolkata /
জটিলতা অব্যাহত, বামপ্রার্থী বিকাশ ভট্টাচার্যের মনোনয়ন নিয়ে সিদ্ধান্ত সোমবার

জটিলতা অব্যাহত, বামপ্রার্থী বিকাশ ভট্টাচার্যের মনোনয়ন নিয়ে সিদ্ধান্ত সোমবার

জটিলতা অব্যাহত, বামপ্রার্থী বিকাশ ভট্টাচার্যের মনোনয়ন নিয়ে সিদ্ধান্ত সোমবার

  • Share this:

    #কলকাতা: মুখ রক্ষায় মরিয়া বামেরা। রাজ্যসভায় বিকাশ ভট্টাচার্যের মনোনয়ন নিয়ে এখনও জটিলতা । দিল্লিতে নির্বাচন কমিশনে সিপিএম নেতারা। দেরিতে নথি জমা দেওয়ায় বাতিল হবে মনোনয়ন? সোমবার ফের স্ক্রুটিনি।

    বিকাশ ভট্টাচার্যের রাজ্যসভার মনোনয়ন নিয়ে জটিলতা কাটল না। মনোনয়ন বাতিলের সিদ্ধান্ত মুলতুবি রাখল নির্বাচন কমিশন। আজ মনোনয়নপত্র স্ক্রুটিনির সময় আনুষ্ঠানিক ভাবে সিদ্ধান্ত ঘোষণার কথা ছিল। কিন্তু সেই সিদ্ধান্ত মুলতুরি রাখল নির্বাচন কমিশন। সোমবার সকাল ন'টায় ফের এই বিষয়ে শুনানি হবে। পালটা কমিশনের উপর চাপ তৈরির কৌশল নিয়েছে সিপিএম।

    ষষ্ঠ আসনের প্রার্থী পদ নিয়ে লড়াই চলছিল কংগ্রেস ও বামফ্রন্টপ্রার্থীর মধ্যে ৷ বাম প্রার্থীর বিরুদ্ধে ছিলেন কংগ্রেস প্রার্থী প্রদীপ ভট্টাচার্য ৷ সঠিক সময়ে নথি জমা না দেওয়ায় বাতিল হতে পারে বামপ্রার্থী বিকাশরঞ্জন ভট্টাচার্যের মনোনয়নপত্র ৷

    সীতারাম ইয়েচুরিকে কি প্রার্থী করা হবে? তা নিয়ে টানাপোড়েন চলেছে দীর্ঘদিন। সীতারাম প্রার্থী হলে সমর্থনে তৈরি ছিল কংগ্রেস হাইকমান্ড। কিন্তু সিপিএম কেন্দ্রীয় কমিটিতে ভোটাভুটিতে কারাত শিবিরের কাছে হারতে হয় ইয়েচুরিদের। শেষ হয়ে যায় ফের রাজ্যসভায় সীতারামের প্রার্থী হওয়ার সম্ভাবনা। তারপরেই রাজ্যসভার ষষ্ঠ আসনের জন্য প্রদীপ ভট্টাচার্যকে প্রার্থী ঘোষনা করে কংগ্রেস। আলাদা প্রার্থী দিতে হয় বামেদেরও। শুক্রবারই রাজ্য বামফ্রন্ট ঘোষনা করে, তাঁদের প্রার্থী বিকাশ ভট্টাচার্য। কিছুক্ষণের মধ্যেই মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের মাস্টারস্ট্রোক।

    রাজ্যে বাম-কংগ্রেসের ঐক্য ভাঙার সুযোগটা হাতছাড়া করতে চাননি তৃণমূলনেত্রী। জানিয়ে দেন, প্রদীপ ভট্টাচার্যকেই সমর্থন করছেন তাঁরা। কিন্তু নাটকের বাকি ছিল অনেকটাই। বেলা ২টো ৩৫ মিনিটে মনোনয়নপত্র পেশ করতে ঢোকেন বামপ্রার্থী বিকাশ ভট্টাচার্য। কিন্তু রাজ্য সরকারের কাছে কোনও দেনা নেই, এ সংক্রান্ত হলফনামা ছিল না। পরে সেই হলফনামা জমা দিতে গেলে তা নিতে অস্বীকার করেন রাজ্যসভা ভোটের রিটার্নিং অফিসার বিধানসভার সচিব। তাঁর যুক্তি, হলফনামা জমা পড়েছে নির্ধারিত সময়ের ২ মিনিট পরে ৩টে ২ মিনিটে।

    বামেদের যদিও দাবি, তাঁরা হলফনামা জমা দিয়েছেন ২টো ৫৮ মিনিটে। শেষ পর্যন্ত দিল্লির নির্বাচন কমিশন থেকে ফ্যাক্স বা ই মেলে ওই হলফনামা পাঠাতে বলা হয়। রাত পৌনে সাতটা নাগাদ বিধানসভার সচিবকে দিল্লি হাইকোর্টের একটি রায়ের প্রতিলিপি-সহ নোট পাঠায় নির্বাচন কমিশন। তখনই স্পষ্ট হয়ে যায় বিকাশ ভট্টাচার্যর মনোনয়নপত্র বাতিল হচ্ছে। তবে শনিবার বেলা ১১টা নাগাদ মনোনয়নপত্র স্ক্রুটিনির সময় আনুষ্ঠানিক ভাবে তা ঘোষণা করা হবে।

    এরকম ভাবে বামপ্রার্থীর মনোনয়নপত্র বাতিলের পিছনে অন্য অঙ্ক কাজ করছে বলে মনে করছেন অনেকেই। তাঁদের মতে, প্রকাশ কারাতদের কট্টরপন্থী লাইনের বিরোধিতায় এটা সিপিএমের বঙ্গ ব্রিগেডের কৌশলী চাল। বিকাশ ভট্টাচার্যর মনোনয়নপত্র বাতিল হলে বাম বিধায়করা কী করবেন তা স্পষ্ট নয়। তবে স্পষ্ট রাজ্যসভার ছয় আসনে তৃণমূলের পাঁচ এবং কংগ্রেসের প্রদীপ ভট্টাচার্যর জয় নিশ্চিত।

    First published:

    Tags: Bikash Bhattacharya, Left Front, Nomination, Rajyasabha Election

    পরবর্তী খবর