চিটফান্ডের টাকা ফেরতে বড়সড় ধাক্কা

চিটফান্ডের টাকা ফেরতে বড়সড় ধাক্কা

চিটফান্ডের টাকা ফেরতে বড়সড় ধাক্কা। হাই কোর্ট ও রাজের সিদ্ধান্তে বাধা এনফোর্সমেন্ট ডিরেক্টরটের।

চিটফান্ডের টাকা ফেরতে বড়সড় ধাক্কা। হাই কোর্ট ও রাজের সিদ্ধান্তে বাধা এনফোর্সমেন্ট ডিরেক্টরটের।

  • Pradesh18
  • Last Updated :
  • Share this:

    #কলকাতা: চিটফান্ডের টাকা ফেরতে বড়সড় ধাক্কা। হাই কোর্ট ও রাজের সিদ্ধান্তে বাধা এনফোর্সমেন্ট ডিরেক্টরটের। বাধা দিয়ে সুপ্রিম কোর্টে মামলা ঠুকলো কেন্দ্রীয় তদন্তকারী সংস্থা। টাকা ফেরতে এমপিএস মডেল-কে চ‍্যালেঞ্জ ইডি-র। কেন্দ্রীয় সংস্থার পদক্ষেপে হতাশ রাজ‍্যের লক্ষ লক্ষ আমানতকারী।

     চিটফান্ডে প্রতারিতদের আশার আলো দেখিয়েছিলো হাই কোর্ট নিযুক্ত বিশেষ কমিটি। অবসর প্রাপ্ত বিচারপতি শৈলেন্দ্রপ্রসাদ তালুকদারের নেতৃত্বে কমিটি ইতিমধ্যেই এমপিএসের প্রতারিতদের টাকা ফেরতে পয়লা ফেব্রুয়ারি থেকে কাজ শুরু করেছে।

    সারদা কাণ্ডে গড়া শ্যামল সেন কমিশনের ধাঁচে কাজ করছে হাইকোর্ট নিযুক্ত কমিটি। কমিটির আর্থিক খরচ বহন করছে রাজ্য। প্রতি তিন মাস অন্তর হাইকোর্টকে রিপোর্টও দিচ্ছে কমিটি। আট মাস পর এই সিদ্ধান্তকে সুপ্রিম কোর্টে চ্যালেঞ্জ এনফোর্সমেন্ট ডায়রেক্টরেটের।

     সুপ্রিম কোর্টে ইডি-র যুক্তি সম্পত্তি বাজেয়াপ্ত ও বিক্রে করার অধিকার একমাত্র তাদেরই। হাইকোর্ট নিযুক্ত বিশেষ কমিটি এই কাজ করতে পারে না। ২২ অগাষ্ট শীর্ষ আদাততে ইডি আবেদনে জানিয়েছে ২৩ ডিসেম্বর ২০১৫ সালে কলকাতা হাইকোর্টের রায় আইন বিরুদ্ধ।

    বৃহস্পতিবারও হাইকোর্টের চিটফাণ্ড বিশেষ বেঞ্চ জানিয়েছে এমপিএসের পাশাপাশি অন্য চিটফাণ্ডের ক্ষেত্রেও কার্যকারী হবে বিশেষ কমিটি। এই অবস্থায় কমিটির ভবিষ্যৎ সুপ্রিম কোর্টে ঝুলে থাকায় প্রতারিতদের টাকা ফেরতের প্রক্রিয়া আরও জটিল হল।

     রাজ্য চিটফাণ্ড আইন ২০১৩ প্রথম প্রয়োগে ইতিমধ্যেই সম্মতি দিয়েছে হাইকোর্ট। এমপিএস মডেল সুপ্রিম কোর্টে বিচারাধীন হয়ে পরায় প্রতারিতদের টাকা ফেরতের একমাত্র রক্ষাকবচ এখন রাজ্যের এই আইন।

    First published: