corona virus btn
corona virus btn
Loading

ইস্ট-ওয়েস্ট মেট্রোয় কাটল জট, শর্তসাপেক্ষে সুড়ঙ্গ খোঁড়ার অনুমতি

ইস্ট-ওয়েস্ট মেট্রোয় কাটল জট, শর্তসাপেক্ষে সুড়ঙ্গ খোঁড়ার অনুমতি

ইস্ট-ওয়েস্ট মেট্রোয় কাটল জট, শর্তসাপেক্ষে সুড়ঙ্গ খোঁড়ার অনুমতি

  • Share this:

#কলকাতা: ৯ বছর পর অবশেষে ইস্ট-ওয়েস্ট মেট্রোয় হেরিটেজ জট কাটল। দু'হাজার আট সালে করা আবেদনের ভিত্তিতে শর্তসাপেক্ষে হেরিটেজ ভবনের পাশ দিয়ে সুড়ঙ্গ তৈরির অনুমতি দিল আর্কিওলজিক্যাল সার্ভে অফ ইন্ডিয় বা এএসআই। ইস্ট ওয়েস্ট মেট্রো প্রকল্পের সমস্ত কাজ হবে হাইকোর্টের নজরদারিতে। ৩ জুলাই ফের এই মামলার শুনানি।

ইস্ট-ওয়েস্ট মেট্রো প্রকল্পে গঙ্গার পশ্চিমপাড় থেকে ইতিমধ্যেই কলকাতার দিকে পূর্বপাড় ছুঁয়েছে টানেল বোরিং মেশিন বা টিবিএম। প্রকল্পিত সুড়ঙ্গ পথে তিনটি প্রাচীন সৌধ ও কারেন্সি বিল্ডিং থাকায় হঠাৎ করে কাজের গতি থমকে যায়। আর্কিওলজিক্যাল সার্ভে অফ ইন্ডিয়া অনুমতি না দেওয়ায় হাইকোর্ট টিবিএম-র গতি দিনে দশ মিটারের জায়গায় পাঁচ মিটার করে দিতে বাধ্য হয়। তবে হাইকোর্টের খোঁচায় উদ্যোগী হয় কেন্দ্র। উদ্যোগী হন রাজ্যের সাংসদ ও কেন্দ্রীয় প্রতিমন্ত্রী বাবুল সুপ্রিয়। ২০০৮ সালে ইস্ট ওয়েস্ট মেট্রো প্রকল্পের জন্য আর্কিওলজিক্যাল সার্ভে অফ ইন্ডিয়ার কাছে যে অনুমতি চাওয়া হয়েছিল শর্তসাপেক্ষে তার অনুমতি দেওয়া হয়। কোন কোন শর্তে হেরিটেজ জটমুক্ত ইস্ট ওয়েস্ট মেট্রো প্রকল্প? - মাটির উপরে হেরিটেজ ভবনগুলির ১০০ মিটারের মধ্যে কোনও মেট্রো স্টেশন তৈরি করা যাবে না
- এএসআই-এর রিজিওনাল ডিরেক্টরের চেয়ারম্যানশিপে গঠিত হবে যৌথ কমিটি - হেরিটেজ ভবনের পাশ দিয়ে সুড়ঙ্গ ও অন্যান্য প্রকল্প সংক্রান্ত কাজ তদারকির দায়িত্বে এই কমিটি - যৌথ কমিটিতে থাকবেন আইআইটি খড়গপুরের বিশেষজ্ঞরা - থাকবেন কেএমআরসিএল-এর বিশেষজ্ঞরাও - হেরিটেজ ভবনের কোনও অভিযোগ থাকলে তা জানানো যাবে যৌথ কমিটির কাছে - হেরিটেজ ভবনের মর্যাদা অক্ষুণ্ণ রাখতে যদি কোনও সংস্কার বা অন্য ধরনের কাজ করতে অর্থের দরকার হয় সেক্ষেত্রে পর্যাপ্ত ফান্ড প্রস্তুত রাখতে হবে ব্রেবোর্ন রোড বরাবর ১৫ থেকে ২২টি পুরনো বাড়ি আছে যার নীচ দিয়ে গর্ত খুঁড়বে টিবিএম। প্রতিটি বাড়ি ও আবাসিকদের যাতে কোনওরকম ক্ষতি না হয় তা নিশ্চিত করতে নির্দেশ দেওয়া হয়েছে কেএমআরসিএলকে। ৪২ নম্বর ব্রেবোর্ন রোডের নীচে টিবিএম কাজ শুরু করলে পরিস্থিতি জানাতে হবে হাইকোর্টকে। রাজ্যের তরফে অ্যাডভোকেট জেনারেল কিশোর দত্ত জানান, প্রকল্পে রাজ্যের সহযোগিতার কোনও অভাব হবে না। ৩ জুলাই ফের এই মামলার শুনানি।
First published: June 20, 2017, 12:44 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर