Home /News /kolkata /
রাজ্যপালের কাছে মুখ্যমন্ত্রীর নামে নালিশ ! রাজ্যে ৩৫৬ ধারার দাবি বিজেপি নেতাদের

রাজ্যপালের কাছে মুখ্যমন্ত্রীর নামে নালিশ ! রাজ্যে ৩৫৬ ধারার দাবি বিজেপি নেতাদের

আগামিকাল, রবিবারের বদলে এদিনই কলকাতায় পৌঁছে গিয়েছিলেন বিজেপি-র তিন কেন্দ্রীয় নেতা।

  • Share this:

    #কলকাতা: বসিরহাটের অশান্তিকে হাতিয়ার করতে বিজেপি-র কেন্দ্রীয় নেতারা কতটা মরিয়া সেটা ফের প্রমাণ পাওয়া গেল আজ শনিবার। আগামিকাল, রবিবারের বদলে এদিনই কলকাতায় পৌঁছে গিয়েছিলেন বিজেপি-র তিন কেন্দ্রীয় নেতা। তবে শেষপর্যন্ত তাঁদের বসিরহাট যাওয়া হয়নি। বিমানবন্দরের কাছে মাইকেল নগরেই তাঁদের গ্রেফতার করে পুলিশ।

    কিন্তু তাতে দমে না গিয়ে রাজ্যপাল কেশরীনাথ ত্রিপাঠীর দ্বারস্থ হলেন বিজেপি-র নেতারা ৷  রাজ্যে এবার ৩৫৬ ধারার দাবি করলেন তাঁরা ৷ রাজ্যপাল কেশরীনাথ ত্রিপাঠীর কাছে বিজেপি নেতাদের নালিশ, ‘‘ মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় পরিস্থিতি সামলাতে পারেন না ৷ তাই সবেতেই বিদেশি শক্তি ও বিজেপির হাত দেখেন ৷’’

    এদিকে পাহাড় নিয়ে মুখ্যমন্ত্রীর আজকের বক্তব্যকে কটাক্ষ করে বিজেপি-র রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ বলেন, ‘‘কেন্দ্র ৮ কোম্পানি দিতে চেয়েছিল ৷ উনি ৪ কোম্পানি কেন্দ্রীয় বাহিনী নিয়েছেন ৷ কেন্দ্রীয় বাহিনীই ওঁনাকে পাহাড় থেকে নামিয়েছে ৷ না হলে ওঁনাকে পাহাড়েই থাকতে হত ৷ ’’

    কথা ছিল রবিবার বসিরহাট যাবেন বিজেপি-র তিন কেন্দ্রীয় নেতা। কিন্তু শেষ মুহূর্তে কৌশল বদলে মীনাক্ষি লেখি, সত্যপাল সিং, ওমপ্রকাশ মাথুরদের শনিবারই কলকাতা পাঠিয়ে দিলেন বিজেপি-র শীর্ষ নেতারা। প্রথমে ঠিক ছিল, বিজেপি-র বিক্ষোভ মিছিলে যোগ দেওয়ার পরে তাঁরা বসিরহাটের পথে রওনা দেবেন। আচমকা সেই পরিকল্পনাও বদলে যায়। বেলা সাড়ে ১২টা নাগাদ বিমানবন্দর থেকেই বসিরহাটের রাস্তা ধরেন তিন বিজেপি সাংসদ। কিছুদূর এগোতেই অবশ্য তাঁদের আটকে দেয় পুলিশ। আটকানো হয় মাইকেল নগরে, শুক্রবার ঠিক যেখানে আটকানো হয়েছিল বিজেপি-র রাজ্য নেতাদের। গাড়ি থেকে নেমেই রীতিমতো পুলিশকে হুমকি দিতে শুরু করেন বিজেপি সাংসদরা।

    পুলিশের সঙ্গে বেশ খানিকক্ষণ তর্কাতর্কির পরে তিন সাংসদকে গ্রেফতার করে নিয়ে যাওয়া হয় এয়ারপোর্ট থানায়। ঘণ্টাখানেক বাদে ব্যক্তিগত বন্ডে তিন সাংসদকে জামিন দেয় পুলিশ। এখনই বসিরহাটে না যেতে অনুরোধ করেছিলেন মুখ্যমন্ত্রী। সেই নির্দেশকে বুড়ো আঙুল দেখিয়ে বিজেপি-র শীর্ষ নেতৃত্ব তিন সাসংদকে তড়িঘড়ি বসিরহাট পাঠানোয় ক্ষুব্ধ মুখ্যমন্ত্রী।

    বসিরহাটের অশান্তির আগুন থেকেই বিজেপি-র শীর্ষ নেতৃত্ব রাজনৈতিক লাভের খোঁজে মরিয়া বলেই মনে করছে রাজনৈতিক মহল।
    First published:

    Tags: Basirhat, BJP Central Team, বসিরহাট

    পরবর্তী খবর