?>
corona virus btn
corona virus btn
Loading

ফের বাধার মুখে শিক্ষক নিয়োগ, বিজ্ঞপ্তিকে চ্যালেঞ্জ করে মামলা হাইকোর্টে

ফের বাধার মুখে শিক্ষক নিয়োগ, বিজ্ঞপ্তিকে চ্যালেঞ্জ করে মামলা হাইকোর্টে

ফের আইনি ফাঁসে শিক্ষক নিয়োগ প্রক্রিয়া ৷ রাজ্যে শিক্ষক নিয়োগ নিয়ে নতুন করে আরও একটি মামলা দায়ের হল হাইকোর্টে ৷

  • Share this:

#কলকাতা: ফের আইনি ফাঁসে শিক্ষক নিয়োগ প্রক্রিয়া ৷ রাজ্যে শিক্ষক নিয়োগ নিয়ে নতুন করে আরও একটি মামলা দায়ের হল হাইকোর্টে ৷ মঙ্গলবার শিক্ষক নিয়োগের সরকারি বিজ্ঞপ্তিকে চ্যালেঞ্জ করে কলকাতা হাইকোর্টে মামলা দায়ের করলেন কর্মরত শিক্ষকরা ৷ তাদের দাবি, আপার প্রাইমারি ও মাধ্যমিকে শিক্ষক নিয়োগ বিজ্ঞপ্তিতে নিয়োগের যোগ্যতা মান নিয়ে ধোঁয়াশা রয়েছে ৷ সেই নিয়ে কোর্টের হস্তক্ষেপ চেয়ে মামলা করলেন কর্মরত দুই শিক্ষক ৷

রাজ্যে বহুদিন ধরে বাধাপ্রাপ্ত শিক্ষক নিয়োগ ৷ বিতর্ক ও আইনি ফাঁস পেরিয়ে সদ্য শিক্ষক নিয়োগ প্রক্রিয়া শুরু করেছে রাজ্য সরকার ৷ শিক্ষা দফতরের লক্ষ্য, বছর শেষ হওয়ার আগে সমস্ত শূন্য পদে শিক্ষক নিয়োগ সম্পূর্ণ করবে রাজ্য ৷

এই সরকারি ঘোষণায় নতুন করে আশার আলো দেখছিলেন চাকরিপ্রার্থীরা ৷ কিন্তু নিয়োগ প্রক্রিয়ায় ফের ঘনিয়েছে আশঙ্কার মেঘ ৷ হাইকোর্টে এদিন নিয়োগ প্রক্রিয়ার বিজ্ঞপ্তিকেই চ্যালেঞ্জ জানিয়ে দায়ের হয়েছে একটি মামলা ৷

গত ২৩ সেপ্টেম্বর রাজ্যে উচ্চ প্রাথমিক ও মাধ্যমিক স্তরে শিক্ষক নিয়োগের বিস্তারিত বিজ্ঞপ্তি স্কুল সার্ভিস কমিশনের ওয়েবসাইট অর্থাৎ http://www.westbengalssc.com -এ সাইটে প্রকাশিত হয় ৷ বিজ্ঞপ্তি অনুসারে গত ২৪ তারিখ থেকে অনলাইনে উচ্চ প্রাথমিক টেট উত্তীর্ণদের আবেদনপত্র গ্রহণ শুরু হয়ে গিয়েছে, চলবে ৩ অক্টোবর পর্যন্ত ৷

আরও পড়ুন

শুরু হল প্রাথমিকে নিয়োগ, বাড়ল শূন্যপদের সংখ্যা

এই নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি নিয়েই আপত্তি তুলেছেন দুই কর্মরত শিক্ষক প্রশান্ত মিস্ত্রি ও সৌরভ সাহা ৷ তাদের অভিযোগ, বিজ্ঞপ্তি কর্মরত শিক্ষকদের যে যোগ্যতামান বর্ণিত হয়েছে তাতে ধোঁয়াশা রয়েছে ৷ তাই মঙ্গলবার বিচারপতি দেবাংশু বসাকের এজলাসে অনুমতি নিয়ে হাইকোর্টে উচ্চ প্রাথমিক ও মাধ্যমিক স্তরে শিক্ষক নিয়োগের সরকারি বিজ্ঞপ্তিকে চ্যালেঞ্জ জানিয়ে মামলা দায়ের করেছে এই দুই কর্মরত শিক্ষক ৷ এই মামলার শুনানি হবে ২৮ সেপ্টেম্বর ৷

আরও পড়ুন

কী প্রক্রিয়ায় হতে চলেছে প্রাথমিক শিক্ষক নিয়োগের ইন্টারভিউ? দেখে নিন

এর ফলে ফের উচ্চ প্রাথমিক ও মাধ্যমিক স্তরে শিক্ষক নিয়োগের থমকে যাওয়ার সম্ভাবনা তৈরি হয়েছে ৷ এই মুহূর্তে সরকারি হিসেব অনুযায়ী আপার প্রাইমারিতে ১৪,০৮৮ জন শিক্ষকের পদ শূন্য এবং মাধ্যমিক স্তরে ১০,২৩৩ জন শিক্ষকের পদ শূন্য রয়েছে ৷ ফলে এই মামলার জেরে ২৪৩২১ শিক্ষক নিয়োগ বাধাপ্রাপ্ত হবে ৷

ইতিমধ্যেই প্রাথমিক টেট নিয়েও দায়ের হওয়া একটি মামলা ঝুলে রয়েছে হাইকোর্টে ৷

আরও পড়ুন

ফের মামলার ফাঁসে আটক টেট, থমকে যাবে প্রাথমিকে নিয়োগ ?

বহুদিন ধরে আইনি ফাঁসে আটকে ছিল উচ্চ প্রাথমিকের টেটের ফল ৷ ১৪ সেপ্টেম্বর আদালতের রায়দানের একঘণ্টার মধ্যেই নজিরবিহীন ভাবে উচ্চ প্রাথমিকে টেটের ফল প্রকাশ করে স্কুল সার্ভিস কমিশন ৷ স্কুল সার্ভিস কমিশনের ওয়েবসাইটে প্রকাশিত হয় কলকাতা আপার প্রাইমারির টেটের ফল ৷ http://www.westbengalssc.com ওয়েবসাইটে ৫ লক্ষ ৪৩ হাজার পরীক্ষার্থীর রেজাল্ট আপলোড করা হয় ৷ কিন্তু রেজাল্ট প্রকাশিত হলেও তাতে সফল পরীক্ষার্থীদের পরিসংখ্যান স্পষ্ট হয়নি ৷

আরও পড়ুন

প্রকাশিত হল উচ্চ প্রাথমিকে শিক্ষক নিয়োগের বিজ্ঞপ্তি, দেখে নিন পরীক্ষার খুঁটিনাটি

ফল প্রকাশের ২৪ ঘণ্টার মধ্যেই টেটের স্বচ্ছতা নিয়ে প্রশ্ন তুলে নতুন করে মামলা দায়ের হয় কলকাতা হাইকোর্টে ৷  বিচারপতি সি এস কারনানের বেঞ্চে মামলকারী চিন্ময় দলুই রিভিউ পিটিশন দাখিল করেন ৷ সেই মামলার শুনানিতে রাজ্যকে মোট কত পরীক্ষার্থী টেট পরীক্ষা দিয়েছিল, কত জন পাস করেছে এবং একইসঙ্গে কত জন প্রশিক্ষিত পরীক্ষার্থী ও কত জন প্রশিক্ষণহীন পরীক্ষা দিয়েছিলেন,তাদের পাসের পরিসংখ্যান সংক্রান্ত তথ্য রাজ্যকে জমা দেওয়ার নির্দেশ দেন বিচারপতি সিএস কারনান ৷

আরও পড়ুন

অপ্রশিক্ষণপ্রাপ্ত প্রার্থীদেরও ন্যায্য সুযোগ দেবে SSC-এর নয়া বিধি

গত ১৯ সেপ্টেম্বর রাজ্যের পক্ষে অতিরিক্ত অ্যাডভোকেট জেনারেল রিপোর্ট দিয়ে জানায়, পরীক্ষায় বসেছিলেন প্রায় ২২ লক্ষ চাকরিপ্রার্থী ৷ প্রশিক্ষিত ও প্রশিক্ষণহীনদের পরিসংখ্যান এখনই দেওয়া অসুবিধের ৷ টেট উত্তীর্ণদের ইন্টারভিউয়ের পরই পরিসংখ্যান স্পষ্ট করতে পারবে রাজ্য ৷ এই রায়ে অসন্তুষ্ট মামলাকারীরা স্থগিতাদেশ চেয়ে ফের ডিভিশন বেঞ্চে আবেদন জানিয়েছেন ৷

এই মামলা চললেও আদালতের তরফ থেকে নতুন কোনও নির্দেশ না আসায় পূবের্র নির্দেশানুযায়ী ২৬ সেপ্টেম্বর প্রাথমিকে নিয়োগের বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করেছে প্রাথমিক শিক্ষা পর্ষদ ৷

First published: September 27, 2016, 4:47 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर