আরব সাগরে ঘূর্ণিঝড়, ডিসেম্বরেও নেই উত্তুরে হাওয়ার দাপট

আরব সাগরে ঘূর্ণিঝড়, ডিসেম্বরেও নেই উত্তুরে হাওয়ার দাপট
সকাল সন্ধ্যা হালকা শীতের আমেজ

আরব সাগরের ঘূর্ণিঝড় 'পবন' টেনে নিচ্ছে উত্তুরে হাওয়া। রাজ্যে কমেছে উত্তর-পশ্চিম হাওয়ার প্রভাব।

  • Share this:

BISWAJIT SAHA

#কলকাতা: শীতের আমেজ কমলো কলকাতায়। স্বাভাবিকের চেয়ে ২ ডিগ্রি উপরে পারদ। আরব সাগরের ঘূর্ণিঝড় 'পবন' টেনে নিচ্ছে উত্তুরে হাওয়া। রাজ্যে কমেছে উত্তর-পশ্চিম হাওয়ার প্রভাব। পূবালী হাওয়ায় বেড়েছে তাপমাত্রা। বাতাসে জলীয়বাষ্পের পরিমাণ বেশী থাকায় দুপুরের দিকে সামান্য আর্দ্রতা জনিত অস্বস্তিও থাকবে।

আগামী ২৪ ঘণ্টায় সোমালিয়ায় নিম্নচাপ হিসাবে স্থলভাগে ঢুকবে ঘূর্ণিঝড় পবন। তারপর উত্তুরে হাওয়ার প্রভাব বাড়ার সম্ভাবনা। যদিও বুধবার ফের পশ্চিমী ঝঞ্ঝা ঢুকছে। এরজেরে আবার বাঁধা পাবে উত্তুরে হাওয়া। এই পশ্চিমী ঝঞ্ঝা চলে গেলে ডিসেম্বরের মাঝামাঝি শীতের একটা ভাল স্পেল হতে পারে মত আবহাওয়াবিদদের।

শনিবার কলকাতায় আংশিক মেঘলা আকাশ। সকালের সর্বনিম্ন তাপমাত্রা ছিল ১৮.৩ ডিগ্রি সেলসিয়াস, যা স্বাভাবিকের থেকে ২ ডিগ্রি উপরে। গতকালের সর্বোচ্চ তাপমাত্রা ছিল ২৯.৫ ডিগ্রি সেলসিয়াস যা স্বাভাবিকের চেয়ে ২ ডিগ্রী উপরে। বাতাসে আপেক্ষিক আর্দ্রতা পরিমাণ ৪৬ থেকে ৯৯ শতাংশ। গত ২৪ ঘন্টায় বৃষ্টি হয়নি।

ঘূর্ণিঝড় প্রবল দক্ষিণ-পশ্চিম আরব সাগরে অবস্থান করছে। ক্রমশ পশ্চিম ও দক্ষিণ পশ্চিম দিকে এগিয়ে সোমালিয়া উপকূলের দিকে অগ্রসর হচ্ছে। আগামী ২৪ ঘণ্টায় নিম্নচাপ হিসেবে স্থলভাগের ঢুকবে ঘূর্ণিঝড় 'পবন'। সোমালিয়ায় স্থলভাগের ঢোকার সময় ঝোড়ো হাওয়ার গতিবেগ থাকতে পারে ৭৫ কিলোমিটার প্রতি ঘন্টায়।

মালদ্বীপ ও ভারত মহাসাগর সংলগ্ন এলাকায় একটি নিম্নচাপ অক্ষরেখা ও ঘূর্ণাবর্ত রয়েছে। আগামী ২৪ ঘণ্টায় এই ঘূর্ণাবর্ত নিম্নচাপে পরিণত হওয়ার সম্ভাবনা। আগামী ৪৮ ঘন্টা এই এলাকায় সমুদ্র উত্তাল থাকবে।

ফের পশ্চিমী ঝঞ্ঝার ঢুকছে বুধবার রাতে। জম্মু কাশ্মীর ও সংলগ্ন এলাকায় ১০ ডিসেম্বর ঢুকবে পশ্চিমী ঝঞ্জা। পরদিন বৃহস্পতিবার জম্মু কাশ্মীর, হিমাচল প্রদেশ, উত্তরাখণ্ড এলাকায় বৃষ্টি ও তুষারপাতের সম্ভাবনা। এই পশ্চিমী ঝঞ্জা বেশ কিছুটা নিচে দিয়ে যাবে। বৃহস্পতিবার এর প্রভাব পড়তে পারে উত্তর প্রদেশ, মধ্য প্রদেশ ও বিহার সংলগ্ন এলাকায়। কোথাও কোথাও বজ্রবিদ্যুৎ-সহ বৃষ্টির সম্ভাবনা।

আবহাওয়াবিদদের মতে এই পশ্চিমী ঝঞ্জা বেশ কিছুটা নিচে দিয়ে যাওয়ার ফলে উত্তর-পশ্চিমের শীতল হাওয়া প্রভাব ফেলতে পারে আমাদের রাজ্যেও। ডিসেম্বরের মাঝামাঝি এর প্রভাবে একটা ভাল শীতের স্পেল পাওয়ার সম্ভাবনা তৈরি হচ্ছে। যদিও পশ্চিমী ঝঞ্ঝার ঠিক কতটা তুষারপাত ঘটায় জম্মু কাশ্মীর, হিমাচল প্রদেশ তার ওপরই নির্ভর করছে শীতের প্রভাব।

আগামী ২৪ ঘণ্টায় ঘন কুয়াশা হবে পঞ্জাব, হরিয়ানা, উত্তর প্রদেশ, আসাম, মেঘালয় আর ত্রিপুরাতে। বিহার, ঝাড়খন্ডে মাঝারি কুয়াশার সম্ভাবনা। বাতাসে জলীয় বাষ্প বেশি থাকায় সকালের দিকে হালকা কুয়াশা হতে পারে এ রাজ্যে বেশ কিছু জেলায়।

First published: 04:42:27 PM Dec 07, 2019
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर