corona virus btn
corona virus btn
Loading

আগামী ৪৮ ঘণ্টায় তুমুল বৃষ্টি, সপ্তাহ শেষে বৃষ্টি হবে আরও !

আগামী ৪৮ ঘণ্টায় তুমুল বৃষ্টি, সপ্তাহ শেষে বৃষ্টি হবে আরও !
জমা জল দ্রুত নামাতে পাম্পিং স্টেশনগুলিও তৈরি রাখা হচ্ছে। ৭৪টি পাম্পিং স্টেশনে ৩৮৯টি পাম্প চালানোর ব্য়বস্থা থাকছে। আরও ৪৫০টি পাম্প ভাড়ায় নেওয়া হয়েছে

সপ্তাহজুড়েই ঝড় বৃষ্টির সম্ভাবনা দক্ষিণবঙ্গে। উত্তরবঙ্গেও বিক্ষিপ্ত ঝড়-বৃষ্টি আগামী ৪৮ ঘণ্টায়।

  • Share this:

#কলকাতা: সপ্তাহজুড়েই ঝড় বৃষ্টির সম্ভাবনা দক্ষিণবঙ্গে। উত্তরবঙ্গেও বিক্ষিপ্ত ঝড়-বৃষ্টি আগামী ৪৮ ঘণ্টায়। শুক্রবার থেকে বৃষ্টি বাড়তে পারে দক্ষিণবঙ্গে। আগামী ৪৮ ঘন্টা তে বিক্ষিপ্ত ভারী বৃষ্টি দক্ষিণবঙ্গের বেশ কয়েকটি জেলায়। আন্দামান সাগরে বৃহস্পতিবার নাগাদ নিম্নচাপ তৈরীর সম্ভাবনা। রবিবারের মধ্যে এই নিম্নচাপ প্রতি গভীর নিম্নচাপ হয়ে মায়ানমার উপকূলে প্রবেশ করতে পারে। এই নিম্নচাপ এর ঘূর্ণিঝড় হওয়ার সম্ভাবনা কম বলেই জানাচ্ছে আবহাওয়া দপ্তর। এর কারণে মৎস্যজীবীদের বুধবার থেকে আন্দামান নিকোবর উপকূল, দক্ষিণ আন্দামান সাগর, দক্ষিণ-পূর্ব বঙ্গোপসাগর এবং পূর্ব-মধ্য বঙ্গোপসাগর এ প্রবেশ নিষেধ। কলকাতায় আজ মূলত মেঘলা আকাশ। সকালের দিকে আংশিক মেঘলা আকাশ থাকলেও পরে পরিবর্তন। বজ্রবিদ্যুৎ সহ বৃষ্টির সম্ভাবনা রয়েছে।

কলকাতার দিন ও রাতের তাপমাত্রা আজও স্বাভাবিকের নিচেই রয়েছে। সকালে সর্বনিম্ন তাপমাত্রা ২৫.১ ডিগ্রি সেলসিয়াস যা স্বাভাবিকের থেকে ১ ডিগ্রী নিচে।গতকাল বিকেলে সর্বোচ্চ তাপমাত্রা ছিল ৩০.২ ডিগ্রি সেলসিয়াস যা স্বাভাবিকের থেকে ৫ ডিগ্রি কম। বাতাসে আপেক্ষিক আদ্রতার পরিমাণ ৬৫ থেকে ৯০ শতাংশ। গত ২৪ ঘন্টায় বৃষ্টি হয়েছে ৯.৮ মিলিমিটার। আগামী ৪৮ ঘণ্টায় দার্জিলিং শহর উত্তরবঙ্গের বিভিন্ন জেলায় বিক্ষিপ্তভাবে ঝড় বৃষ্টির সম্ভাবনা। দক্ষিণবঙ্গে ঝড় বৃষ্টির পরিমাণ একটু বেশি। বিক্ষিপ্তভাবে ৪০ থেকে ৫০ কিলোমিটার বেগে ঝোড়ো হাওয়া বইতে পারে। কোথাও কোথাও ভারী বৃষ্টির সম্ভাবনা। মূলত ঝাড়গ্রাম ও পূর্ব পশ্চিম মেদিনীপুরে ভারী বৃষ্টির পূর্বাভাস। শুক্রবার থেকে বৃষ্টি বাড়বে দক্ষিণবঙ্গে। শুক্র শনি রবিবার বিক্ষিপ্তভাবে ভারী বৃষ্টির সম্ভাবনা রয়েছে দক্ষিণবঙ্গের বেশকিছু জেলাতে। সপ্তাহ জুড়ে ঝড়-বৃষ্টি দক্ষিণবঙ্গে। ৩০ এপ্রিল বৃহস্পতিবার দক্ষিণ আন্দামান সাগরে নিম্নচাপ তৈরীর প্রবল সম্ভাবনা। পরবর্তী ৪৮ ঘণ্টায় আন্দামান-নিকোবর ও মাত্রা দ্বীপের ওপরেই নিম্নচাপের অবস্থান থাকবে। নিম্নচাপ থেকে ক্রমশ অতি গভীর নিম্নচাপে পরিণত হবে। প্রথমে উত্তর ও উত্তর পশ্চিম এবং পরে তা অভিমুখ পরিবর্তন করে উত্তর-উত্তরপূর্ব দিকে অগ্রসর হবে। তেসরা মেয়ে অর্থাৎ রবিবারের মধ্যে এটি মায়ানমার উপকূলে প্রবেশ করবে। নিম্নচাপটি ক্রমশ শক্তিশালী হয়ে গভীর ও অতি গভীর নিম্নচাপে পরিণত হবে।প্রথমে ৪০ থেকে ৪৫ কিলোমিটার ঘন্টায় গতিবেগে ঝড়ো হাওয়া থাকলেও পরে এই ঝড়ো হাওয়ার গতিবেগ ৭০ কিলোমিটার পর্যন্ত বাড়তে পারে বলে অনুমান আবহাওয়াবিদদের।তবে এই নিম্নচাপ ঘূর্ণিঝড়ে পরিণত হবার সম্ভাবনা এখনো কম রয়েছে বলে অনুমান আবহাওয়া বিজ্ঞানীদের। এর প্রভাবে সুমাত্রা দ্বীপ আন্দামান ও নিকোবর আইল্যান্ড আন্দামান সাগর দক্ষিণ-পূর্ব বঙ্গোপসাগর এবং পূর্ব-মধ্য বঙ্গোপসাগর প্রভাব পড়বে। এই নিম্নচাপ এর সরাসরি প্রভাব রাজ্যে পড়ার সম্ভাবনা নেই বলেই জানিয়েছেন আবহাওয়াবিদরা।তবে পরোক্ষ প্রভাবে জলীয়বাষ্প কিছু ঢুকতে পারে এবং তার জেরে বৃষ্টির পরিমাণ বাড়তে পারে সপ্তাহান্তে।

Published by: Akash Misra
First published: April 28, 2020, 11:39 AM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर