সিঙ্গাপুরের ধাঁচে এ বার কলকাতাতেও রাস্তায় ই-টয়লেট

সিঙ্গাপুরের ধাঁচে এ বার কলকাতাতেও রাস্তায় ই-টয়লেট
ই-টয়লেট

কলকাতায় একাধিক গুরুত্বপূর্ণ মোড়ে আছে সুলভ কমপ্লেক্স। কিন্তু অনেক সময়েই তা নজরে আসছে না। অনেকের অভিযোগ শৌচালয় যথাযথ ভাবে পরিষ্কার করা হয় না।

  • Share this:

ABIR GHOSHAL

শহরের নানা জায়গায় রয়েছে সুলভ কমপ্লেক্স। যদিও রাস্তায় মূত্র ত্যাগ বন্ধ হয়নি। মল-মূত্র থেকে একদিকে যেমন ছড়াচ্ছে দূষণ, তেমনই ছড়িয়ে পড়ছে নানা রোগ জীবাণু। এ বার তাই শহরের শৌচালয়ে আসছে আমূল বদল। শহরে আনা হচ্ছে ই-টয়লেট। হংকংয়ের ধাঁচে এই সব ই-টয়লেট পাওয়া যাবে শহরের সমস্ত গুরুত্বপূর্ণ মোড়ের বাস স্ট্যান্ডের পাশে।

কলকাতায় একাধিক গুরুত্বপূর্ণ মোড়ে আছে সুলভ কমপ্লেক্স। কিন্তু অনেক সময়েই তা নজরে আসছে না। অনেকের অভিযোগ শৌচালয় যথাযথ ভাবে পরিষ্কার করা হয় না। বিশেষ করে মহিলাদের তরফ থেকে এমন অভিযোগ এসেছে। এছাড়া কলকাতার বিভিন্ন পাড়ায় যে সমস্ত পুরসভার তৈরি করা শৌচালয় আছে সেগুলিও রোগ জীবাণুর আখড়া বলে সচেতন করেছেন চিকিৎসকরা। তাই সাধারণ মানুষের কথা চিন্তা করেই নিয়ে আসা হচ্ছে এই স্মার্ট টয়লেট বা ই-টয়লেট। তবে এই টয়লেট একটু দামি।

ই টয়লেট কী? এটি বাস স্ট্যান্ড লাগোয়া জায়গাতে বসানো থাকবে। খানিকটা গাড়ির মতোই। টয়লেটের দরজায় থাকবে বিশেষ সেন্সর। মাত্র পাঁচ টাকার কয়েন ফেললেই খুলে যাবে টয়লেটের দরজা। দরজা খুললেই হয়ে যাবে একবার ফ্লাশ। আবার দরজা বন্ধ করে বেরিয়ে আসার সময় হবে আর একবার ফ্লাশ। ই টয়লেটে থাকবে ৫০০ লিটার জল বহনের ট্যাঙ্ক। তাতে ২৪ ঘন্টা জল সরবরাহ করবে কলকাতা পুরসভা। পুরসভা সূত্রে খবর, এই ই টয়লেট তৈরি করতে খরচ হবে প্রায় ২ লক্ষ টাকা।

আপাতত ঠিক হয়েছে দেশপ্রিয় পার্ক, রাসবিহারী, হাজরা, গড়িয়াহাট, চেতলা, কালীঘাট, পার্ক স্ট্রিট ও টালিগঞ্জ এলাকায় বিভিন্ন বাস স্ট্যান্ডের পাশে বসানো হবে এই সব ই-টয়লেট। টয়লেট সাফাই ও নজরদারি করার জন্য থাকবে কর্মী। কলকাতার মেয়র ফিরহাদ হাকিম জানিয়েছেন, শহর সুন্দর করে সাজানোর জন্য নানা ব্যবস্থা করা হয়েছে। দূষণ রুখতে পুরসভা নানা ব্যবস্থা নিচ্ছে। শৌচালয়গুলিকেও তার আওতায় আনা হচ্ছে। অত্যন্ত সহজ হবে এই টয়লেটগুলো ব্যবহার করা। চেষ্টা করা হচ্ছে যারা বিজ্ঞাপন দেন নানা বাসস্ট্যান্ড গুলিতে তাদের হাতেই এই ই টয়লেটের ভার দেওয়া হবে। আপাতত শহরে ৮০ টা হংকংয়ের ধাঁচে এই ই-টয়লেট আসতে চলেছে।

First published: 03:34:34 PM Dec 19, 2019
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर