corona virus btn
corona virus btn
Loading

হাল্কা বৃষ্টিতেই কলকাতায় ধুয়ে গেল পিচ রাস্তা, ক্ষুব্ধ মেয়র

হাল্কা বৃষ্টিতেই কলকাতায় ধুয়ে গেল পিচ রাস্তা, ক্ষুব্ধ মেয়র
মেয়র ফিরহাদ হাকিম

জীবন সাহার বিরুদ্ধে এর আগেও সরকারি জায়গা দখল করে রেস্তোরাঁ তৈরি থেকে শুরু করে অবৈধ নির্মাণ,পুকুর ভরাট-সহ নানা অভিযোগ রয়েছে। ওঁর বিরুদ্ধে এলাকাতে কাটমানির পোস্টার ও পড়েছিল।

  • Share this:

শঙ্কু সাঁতরা

#কলকাতা: পৌষের হাল্কা বৃষ্টিতেই খোদ কলকাতায় ধুয়ে গেল পিচ রাস্তা। থাকল পড়ে রাস্তার পাথর কুচি। সেই নিয়ে অভিযোগ, মস্করা দুইই চলল। ঘটনাটি কলকাতা কর্পোরেশনের ৫৭ নং ওয়ার্ডের। ট্যাংরা ক্যানেল রোডে বেশ কয়েক দিন ধরেই পিচ রাস্তা মেরামতের কাজ চলছে। সেই কাজ করছে কর্পোরেশনের রাস্তা সংক্রান্ত দফতর। ওয়ার্ড কাউন্সিলর জীবন সাহা এই খবর শুনে তো একেবারে চমকে গেলেন। খোদ মেয়র ফিরহাদ হাকিমের কাছে ফোনের মাধ্যমে অভিযোগ গিয়েছে।

জীবন সাহার বিরুদ্ধে এর আগেও সরকারি জায়গা দখল করে রেস্তোরাঁ তৈরি থেকে শুরু করে অবৈধ নির্মাণ,পুকুর ভরাট-সহ নানা অভিযোগ রয়েছে। ওঁর বিরুদ্ধে এলাকাতে কাটমানির পোস্টার ও পড়েছিল। এই বিষয় নিয়ে দলকে বেশ বিড়ম্বনাতে পড়তে হয়েছিল। বিরোধীরা এই বিষয়কে হাতিয়ার করে বেশ অপপ্রচার চালিয়ে ছিল। সেই খাঁড়ার ঘা যেতে না যেতে আবার রাস্তার কাজে অনিয়মের অভিযোগ। আর সেই অভিযোগ পেয়ে মেয়র নিজেই চলে এসেছিলেন।

শনিবার বিকেল ৫টা নাগাদ মেয়র নিজেই চলে আসেন। নিজে হেঁটে দেখেন সমস্ত কিছু। হাত দিয়ে রাস্তার পিচ পরীক্ষা করতেই হাতে উঠে আসে পাথর কুচি। ঘটনায় বেশ ক্ষুব্ধ হন মেয়র। সঙ্গে থাকা ডিজি (সড়ক)-কে নির্দেশ দেন, কেনও এই রকম হল, সেটি তদন্ত করে দেখতে। উল্লেখ্য, এই রাস্তাটি মেরামতের কাজ কোনও ঠিকাদার সংস্থা করছে না। পিচের মিক্সিং হচ্ছে গরাগাছা থার্মাল মিক্সিং প্রজেক্ট থেকে। তথাপি সম্পূর্ণ দায় বর্তায় কর্পোরেশনের ওপর। ক্ষুব্ধ ফিরহাদ হাকিম সঙ্গে সঙ্গে চলে যান গড়াগাছা ওই প্ল্যান্টে।

সেখানে গিয়ে খোঁজ নেন সমস্ত বিষয়। যেহেতু শনিবার ছুটির দিন, সে হেতু আধিকারিক কাউকে পাননি। তিনি বলেন, 'আমি ইঞ্জিনিয়ার নয়, তবুও অভিজ্ঞতা থেকে বলছি, যতটা অ্যাসফল্ট দেওয়ার কথা, ততটুকু দিয়েছে কি না, সেটা জানতে হবে। মনে হচ্ছে অ্যাসফাল্টের পরিমাণ কম আছে। কেন হল, সেটা জানবার জন্য এই নমুনা ল্যাবরেটরিতে পাঠিয়ে দেখতে হবে। সেই সময় যে কর্মী ছিল, সেই শিফটে কতটা মিশিয়েছেন তার রেকর্ড দেখতে হবে। তার পর ব্যবস্থা নেওয়া হবে৷'

First published: January 4, 2020, 9:51 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर