Home /News /kolkata /

আসছে তৃতীয় ঢেউ, শিশুদের বাঁচাতে বিনামূল্যে 'দুয়ারে দুধ' নিয়ে হাজির পুজো কমিটি!

আসছে তৃতীয় ঢেউ, শিশুদের বাঁচাতে বিনামূল্যে 'দুয়ারে দুধ' নিয়ে হাজির পুজো কমিটি!

অনবদ্য কর্মসূচী

অনবদ্য কর্মসূচী

Third Wave Hits Child: করোনার তৃতীয় ঢেউ থেকে শিশুদের বাঁচাতে কলকাতা পুরসভার ৭৪ এবং ৮২ নম্বর ওয়ার্ড অর্থাৎ আলিপুর চেতলা সংলগ্ন বস্তিগুলোতে কাজ করছেন আলিপুর সার্বজনীনের উদ্যোক্তারা।

  • Share this:

#কলকাতা: করোনা-কালে শিশুদের পুষ্টি বাড়াতে 'দুয়ারে দুধ' নিয়ে হাজির আলিপুর সর্বজনীন দুর্গোৎসব কমিটি। করোনার তৃতীয় ঢেউ আসতে চলেছে কিছু দিনের মধ্যেই। বিশেষজ্ঞরা বলছেন, এবার সবচেয়ে বেশি আক্রান্ত হবে শিশুরা। কিন্তু তাদের জন্য এখনও পর্যন্ত ভ্যাকসিন তৈরি হয়নি। অতএব শিশুদের ইমিউনিটি বাড়ানো ছাড়া দ্বিতীয় কোনও পথ খোলা নেই। লক ডাউনের জন্য এমনিতেই বহু মানুষের উপার্জন তলানিতে। দিন আনা দিন খাওয়া পরিবার গুলোর অবস্থা অত্যন্ত শোচনীয়। এই অবস্থায় বাড়তি খাওয়ারের ব্যবস্থা করে শিশুর পুষ্টি বাড়ানো অনেক পরিবারের পক্ষেই সম্ভব হচ্ছে না। এই পরিস্থিতির কথা বিবেচনা করে আলিপুর সর্বজনীন পরিকল্পনা করেছে,  এলাকার শিশুদের পুষ্টি বৃদ্ধির জন্য প্রতিদিন দুধ বিলি করা হবে। সেই মতো ৩ জুন থেকে শুরু হয় এলাকার শিশুদের জন্য দুধ বিলি।

মূলত কলকাতা পুরসভার ৭৪ এবং ৮২ নম্বর ওয়ার্ড অর্থাৎ আলিপুর চেতলা সংলগ্ন বস্তিগুলোতে কাজ করছেন উদ্যোক্তারা। প্রতিদিন গড়ে ৩০৭০ জন শিশুকে বিনামূল্যে ২৫০ মিলি দুধ দেওয়া হচ্ছে। তার জন্য কার্ড বানানো হয়েছে প্রতিটি শিশুর নামে। সেই কার্ড নিয়ে গেলেই মিলছে দুধ। সকাল বেলা থেকেই অভিভাবকদের সঙ্গে দুধের লাইনে হাজির হচ্ছে খুদেরাও।

পুজো কমিটির অন্যতম উদ্যোক্তা কৌশিক ভট্টাচার্য বলেন, 'গত বছর থেকে পুজোর বাজেট কমিয়ে লক ডাউনের মধ্যে আমরা অনেক রকম সামাজিক কাজ করছি। কিন্তু করোনার তৃতীয় ঢেউয়ে শিশুদের জন্য অশনি সংকেত শোনাচ্ছেন বিশেষজ্ঞরা। সেখান থেকে বাঁচাতে তাদের শরীরের আরও বেশি করে পুষ্টি দরকার। তাই আমরা এই কাজটা শুরু করেছে। কিন্তু কত দিন চলবে এই প্রকল্প? কৌশিক বাবু বলেন, 'জুলাই মাস পরও চালানো প্রাথমিক পরিকল্পনা আমাদের রয়েছে। অনেক সহৃদয় ব্যক্তি আমাদের সাহায্য করতে এগিয়ে আসছেন। তাদের সাহায্যে যদি চলতে থাকে তাহলে করোনার তৃতীয় ঢেউ শেষ না হওয়া পর্যন্ত আমরা বাচ্চাদের দুধের ব্যবস্থা করে যাব।'

Published by:Suman Biswas
First published:

পরবর্তী খবর